• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Hibiscus Tea : এক জিনিসেই জব্দ মধুমেহ ও উচ্চরক্তচাপ? পান করুন জবাফুলের চা

Hibiscus Tea : এক জিনিসেই জব্দ মধুমেহ ও উচ্চরক্তচাপ? পান করুন জবাফুলের চা

হার্বাল টি বা ভেষজ চা তৈরি হয় চা পাতার বিকল্প দিয়ে

হার্বাল টি বা ভেষজ চা তৈরি হয় চা পাতার বিকল্প দিয়ে

‘ডিটক্স টি’ (detox tea) হিসেবে এখন প্রচলিত একাধিক ফ্লেভার৷ সেগুলির মধ্যে অন্যতম হিবিসকাস টি (Hibiscus Tea)

  • Share this:

    পানীয় হিসেবে চায়ের (tea) সর্বজনীন আবেদন আসমুদ্রহিমাচল৷ প্রাণশক্তির যোগান দেওয়ার পাশাপাশি এই পানীয় দিনভর পরিশ্রমের পর মানসিক প্রশান্তিও দেয়৷ শুধু দিনের নির্দিষ্ট সময়ে আপনাকে বেছে নিতে হবে পছন্দসই ফ্লেভার৷ দিনের শুরুতে যদি কড়া চা মানানসই হয়, সারা দিন ধরে চনমনে রাখতে গ্রিন টি  (green tea) জুড়িহীন৷ এছাড়াও আছে হার্বাল টি (herbal tea) বা ভেষজ চা৷

    হার্বাল টি বা ভেষজ চা তৈরি হয় চা পাতার বিকল্প দিয়ে৷ ফলে চায়ের সবরকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াকেও এড়িয়ে চলা যায়৷ পুষ্টিমূল্যের দিক থেকেও প্রথম সারিতে থাকায় ভেষজ চা ইদানীং খুব জনপ্রিয়৷ ‘ডিটক্স টি’ (detox tea) হিসেবে এখন প্রচলিত একাধিক ফ্লেভার৷ সেগুলির মধ্যে অন্যতম হিবিসকাস টি (Hibiscus Tea)৷

    আরও পড়ুন : দীপাবলির ভুরিভোজে বদহজমের ভয়? সঙ্গী হোক এই ঘরোয়া টোটকা

    ‘গুধল টি’ নামেও পরিচিত এই চা তৈরি হয় রোদে শুকিয়ে নেওয়া জবাফুলের পাপড়ি থেকে৷ ঘন ম্যাজেন্টা রঙের এই পানীয় একদিকে সুদিং এবং সুবাসিত৷ অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট এবং অ্যান্টি ইনফ্লেম্যাটরি উপাদানে ভর্তি এই চা সব টক্সিন শরীর থেকে বার করে দেয়৷ সবথেকে আকর্ষণীয় হল, এই চা গরম এবং ঠান্ডা, পান করা যায় দু’ভাবেই৷

    অ্যান্টি অক্সিড্যান্টের জন্য এই চা ডিটক্স উপাদান হিসেবে অতুলনীয়৷ মধুমেহ নিয়ন্ত্রণেও উপযোগী জবাফুলের চা৷ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের দাবি, এই চায়ের প্রভাব মধুমেহ রোগে খুবই কার্যকর৷

    আরও পড়ুন : ভূত চতুর্দশীর ‘১৪ শাক’ ঠিক কোনগুলো? জানুন তাদের অপরিসীম গুণাগুণ

    গবেষকদের দাবি, রোজ তিন কাপ জবা চা পান করলে নিয়ন্ত্রণে থাকে উচ্চরক্তচাপ৷

    জবাফুলের পাপড়ির নির্যাস মেশানো চা পান করলে প্রশমিত হয় বাতের ব্যথাও৷ ত্বকে জরার ছাপ পড়ে না৷ ফলে লুকিয়ে রাখা যায় বয়সের ছাপ৷

    আরও পড়ুন : অস্বস্তিকর ব্রেস্ট অ্যাকনের পিছনে আছে একাধিক কারণ

    ক্যালরি এবং ক্যাফেইন মুক্ত হওয়ায় এই চা উন্নত করে পরিপাক ক্রিয়া৷ অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট এবং ভিটামিন সি-এর প্রভাবে বশে থাকে মানসিক উদ্বেগও৷

    ঋতুস্রাবকালীন যন্ত্রণা, পেশির টান থেকে উপশম দেয় জবাফুলের চা৷ শরীরে হরমোনের ভারসাম্য ধরে রাখতে সাহায্য করা এই চা নিয়ন্ত্রণে রাখে ঘন ঘন মুড স্যুইংয়ের সমস্যাও৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: