Home /News /explained /

Health Tips: ২০২২ এ নিজেকে ফিট রাখতে শরীরকে জোগান দিন এই পুষ্টিগুণগুলি, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

Health Tips: ২০২২ এ নিজেকে ফিট রাখতে শরীরকে জোগান দিন এই পুষ্টিগুণগুলি, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

ছবি: পেক্সেলস

ছবি: পেক্সেলস

LifeStyle: শুধু কোনও একটা বছরের জন্য নয়, সারাজীবন নিজেকে সুস্থ রাখতে, ভাল রাখতে এবং স্বাস্থ্যবান রাখতে হবে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: নতুন বছর; নতুন নতুন রেজোলিউশন, নতুন প্রত্যাশা নিয়ে দিন শুরু করা। কারও কোনও স্বপ্নপূরণের ইচ্ছে থাকে তো কারও লক্ষ্যপূরণ করা। কারও আবার সারাবছর সুস্থ থাকার প্রত্যাশা তো কারও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত ঘুরে দেখার ইচ্ছা। বর্তমান পরিস্থিতিতে সবকিছুর মাঝেই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নিজেকে সুস্থ রাখা কারণ নিজেকে সুস্থ রাখলেই সমস্ত লক্ষ্যপূরণ, স্বপ্নপূরণ সম্ভব।

শুধু কোনও একটা বছরের জন্য নয়, সারাজীবন নিজেকে সুস্থ রাখতে, ভাল রাখতে এবং স্বাস্থ্যবান রাখতে হবে। ফলে এর জন্য বেশ কয়েকটি দিকে লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন। Abbott's Nutrition business-এর সায়েন্স ও মেডিক্যাল অ্যাফেয়ারের হেড অ্যাডাল্ট নিউট্রশন চিকিৎসক ইরফান শেখের (Dr. Irfan Shaikh) কথায়, নিজেকে সুস্থ রাখতে গেলে পেশি শক্তিশালী করতে হবে, হাড় মজবুত করতে হবে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হবে এবং সর্বোপরি সমস্ত দিক থেকে শক্তিশালী হতে হবে। এর জন্য শরীরে বেশ কয়েকটি জিনিসের মাত্রা ঠিক থাকা অত্যন্ত জরুরি-

১. প্রোটিন

পেশি, হার, হরমোন, অ্যান্টিবডি তৈরি করতে এবং শরীরের সেল তৈরি হতে সাহায্য করে প্রোটিন। শরীরে ওজন অনুযায়ী প্রত্যেক দিন কেজি প্রতি ০.৮ গ্রাম থেকে ১ গ্রাম পর্যন্ত উচ্চমানের প্রোটিন শরীরে প্রবেশ করলে তা পেশি শক্তিশালী করতে সাহায্য করবে এবং এরই সঙ্গে পেট অনেক্ষণ ভরতি রাখবে। এক্ষেত্রে ডিম, কাবুলি ছোলা, কটেজ চিজ, গ্রিক ইয়োগার্ট, কুইনোয়া, আমন্ড, চিনা বাদাম ইত্যাদি খাওয়া যেতে পারে। মাথায় রাখতে হবে, এরই সঙ্গে ডায়েটে যেন অবশ্যই দুগ্ধজাত দ্রব্য থাকে। কারণ দুগ্ধজাত দ্রব্যে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন থাকে।

আরও পড়ুন - করোনা মোকাবিলায় ফের চ্যালেঞ্জ, নয়া ভ্যারিয়ান্ট Flurona নিয়ে কী জানা যাচ্ছে

২. DHA ওমেগা থ্রি

ওমেগা থ্রির একাধিক পুষ্টিগুণ রয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম হল দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখা, ব্রেন শার্প করা এবং হার্ট ভালো রাখা। এই ইউনিক ফ্য়াটটি পাওয়া যায় মূলত সিফুডে। যে কোনও সামুগ্রিক তৈলাক্ত মাছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা থ্রি থাকে। তবে, মাছ যারা পায় না বা খায় না তারা ওমেগা থ্রি ইনটেক থেকে বঞ্চিত নয় কারণ অল্পবিস্তর ওমেগা থ্রি পাওয়া যায় অন্যান্য খাবারেও। এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন সবজি, বাদাম ও দানা শস্য। এছাড়াও ভেজিটেরিয়ানরা সিউইড, নোরি, স্পিরুলিনা, ক্লোরেলার মতো খাবার খেতে পারে তারা।

৩. কোলাইন

মুড, পেশি, স্মৃতিশক্তি সর্বোপরি নার্ভাস সিস্টেম ঠিক রাখার জন্য কোলাইনের প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু আমরা অনেকেই এটিকে সেভাবে গুরুত্ব দিই না। অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের ক্ষেত্রে এর প্রয়োজন আরও বেশি কারণ শিশুর বেড়ে ওঠার জন্য এবং ব্রেন ও নার্ভাস সিস্টেম তৈরি করার জন্য এটির প্রয়োজন পড়ে। এই কোলাইন সাধারণ পাওয়া যায় পশু খাদ্যে। মাছ, মাংস, ডিম এবং দুধে কোলাইন থাকে।

Abbott's Nutrition business-এর সায়েন্স ও মেডিক্যাল অ্যাফেয়ারের হেড অ্যাডাল্ট নিউট্রশন চিকিৎসক ইরফান শেখ। Abbott's Nutrition business-এর সায়েন্স ও মেডিক্যাল অ্যাফেয়ারের হেড অ্যাডাল্ট নিউট্রশন চিকিৎসক ইরফান শেখ।

৪. ক্যালসিয়াম

শরীরের ৯৯ শতাংশ ক্যালসিয়াম পাওয়া যায় দাঁত এবং হাড়ে। তাই এর অভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় দাঁত এবং হাড়। এছাড়াও ক্যালসিয়াম ব্লাড ক্লটিং আটকায়, নার্ভ সচল রাখে এবং পেশি সচল রাখতে সাহায্য করে। তাই ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন শরীরে অত্যন্ত বেশি। ক্যালসিয়াম দুগ্ধজাত প্রোডাক্ট, দই, চিজ ইত্য়াদিতে পাওয়া যায়। এছাড়াও টোফু, বিভিন্ন সবুজ শাক-সবজি, বিন ইত্যাদিতেও পাওয়া যায়। তাই প্রতি দিনের ডায়েটে এই খাবারগুলি রাখা অত্যন্ত জরুরি।

আরও পড়ুন : ৩০-৪০ বছরে এগ ফ্রিজিংয়ের প্ল্যান? পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

৫. ভিটামিন D

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন D-র জুড়ি মেলা ভার। এটি বিভিন্ন খাদ্য থেকে ক্যালসিয়াম শুষে নিতে শরীরকে সাহায্য করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ভিটামিন D-র প্রধান উৎস রোদ বা সূর্য রশ্মি। তবে, ভিটামিন D খাবারেও পাওয়া যায়। তৈলাক্ত মাছ, ডিমের কুসুম, কমলালেবু ও চিজে ভিটামিন D থাকে। রোজকার ডায়েটে এই খাবারগুলি মিলিয়ে মিশিয়ে রাখলে শরীর ভিটামিন D-র ঘাটতি পূরণ হবে।

৬. জিঙ্ক

শরীরের যে কোনও ক্ষত সারাতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে জিঙ্কের প্রয়োজন পড়ে। এছাড়াও শরীর সঠিকভাবে বেড়ে ওঠা এবং শারীরিক বিভিন্ন জিনিস গঠনে এই উপাদানের প্রয়োজন পড়ে। ছোট থেকেই তাই জিঙ্কের চাহিদা শরীরে তৈরি হয়। আমরা প্রোটিন, ভিটামিনকে যেভাবে গুরুত্ব দিই জিঙ্ক বা এমনই অন্যন্য উপাদান নিয়ে তেমন ভাবি না। কিন্তু এগুলোরও শরীরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকে। ডিঙ্ক মাংসে থাকে, বিশেষ করে রেড মিটে। এছাড়াও কাবুলি ছোলা, চিনা বাদাম, লেন্টিস, বিভিন্ন বিনসে জিঙ্ক থাকে।

৭. সেলেনিয়াম

সেলেনিয়াম অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টস হিসেবে কাজ করে এবং শরীরের সেলগুলিকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। যাতে সহজেই সেল ড্যামেজ না হয় তার জন্য সেলেনিয়াম নির্দিষ্ট পরিমাণে শরীরে থাকা প্রয়োজন। এটি থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে। দুধ, দইয়ে সেলেনিয়াম থাকে। প্রতি দিন ডায়েটে দুধ বা দই থাকলে এটির ঘাটতি মিটবে। পাশাপাশি কাজু বাদাম, কলা, ডাল ও পালং শাকেও সেলেনিয়াম থাকে।

৮. ভিটামিন A

অ্যান্টিইনফেকটিভ ভিটামিন হিসেবে কাজ করে ভিটামিন A। এটি ত্বক ভালো রাখে, ভালো রাখে স্টমাক এবং ফুসফুস। যে কোনও ইনফেকশনের সঙ্গে লড়াই করতে এই ভিটামিন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। পাশাপাশি দৃষ্টিশক্তি বাড়াতেও ওই ভিটামিন কাজ করে। সামান্য ফ্যাটের সঙ্গে এই ভিটামিন শরীরে গেলে তা দ্রুত কাজ করে। মিষ্টি আলু, কুমড়ো, গাজর ও পালং শাকে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন A থাকে।

আরও পড়ুন : 6G পরিষেবা আনতে কী কী চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে দেশ? পরিকল্পনা কত দিনে বাস্তবায়িত হবে?

৯. ভিটামিন E

এই ভিটামিনও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে এবং ব়্যাডিক্যাল ফ্রি রাখে শরীরকে। যে কোনও খাবারেই এই ভিটামিন থাকে। বিশেষ করে ভোজ্য তেল, দানা শস্য, বাদাম ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন E থাকে।

১০. ভিটামিন C

করোনার হাত ধরে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর তাগিদে এই ভিটামিন আজ সকলের কাছে পরিচিত। এটিও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসেবে কাজ করে। অ্যানিমিয়া থেকে রক্ষা করে। কমলালেবুতে ভিটামিন C থাকে প্রচুর পরিমাণে। এছাড়াও কিউই, স্ট্রেবেরি, ব্রোকোলি, টমেটো, ফুলকপি এবং রেড পেপারও এই ভিটামিন পাওয়া যায়।

১১. ফ্লুইড অ্যান্ড ইলেকট্রোলাইট

সব কিছু উপাদানের মাঝে তরল গ্রহণ ভুলে গেলে চলবে না। তাতে পেশি সচল থাকে, জয়েন্ট ঠিক থাকে এবং টিস্যুকে ভালো রেখে শরীর ভালো থাকে। বিশেষ করে শরীর যখন খারাপ থাকে তখন এই উপাদানটির সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন পড়ে। কারণ এটি ইলেকট্রোলাইট শোষণ করে এবং শরীর হাইড্রেটেড রাখে। সবুজ শাকসবজি, পালং শাক, কালে, অ্যাপ্রিকট, বিনস, লেন্টিস, বাদাম, দানা শস্য ইত্যাদিতে ইলেকট্রোলাইট থাকে।

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Health Tips

পরবর্তী খবর