Home /News /south-bengal /
YouTube learning: ইউটিউব দেখেই কুস্তি শিখে চ্যাম্পিয়ান বীরভূমের দুই ছাত্র

YouTube learning: ইউটিউব দেখেই কুস্তি শিখে চ্যাম্পিয়ান বীরভূমের দুই ছাত্র

Birbhum News: বীরভূম জেলায় কোনও ক্লাবে নেই কুস্তির চর্চা সেরম প্রশিক্ষকও নেই কুস্তির জন্য ।

  • Share this:

#বীরভূম: প্রশিক্ষক ছাড়াই শুধু মাত্র মনের জোরেই বীরভূমের মহঃ বাজার ব্লকের দীঘলগ্রামের হাসিরুল শেখ ও মুস্তাকিম শেখ জিতে নিল রাজ্যস্তরে কুস্তি পদক । কলকাতার জোড়াবাগানে গত ১৩ই মে থেকে ১৬ই মে বেঙ্গল অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালনায় অষ্টম নেতাজি সুভাষ স্টেট গেমসের আয়োজন করা হয় । হাসিরুল শেখ সেখানই চ্যাম্পিয়ন হয় ৫০-৬০কেজি বিভাগে । আর মুস্তাকিম শেখ তৃতীয় স্থান পায় ৬০-৬৭ কেজি বিভাগে ।

মহঃ বাজার ব্লকের দীঘলগ্রামে বাড়ি দুই জনেরই । সেকেড্ডা হাইস্কুল থেকে হাসিরুল শেখ  এবার মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে ও গণপুর হাইস্কুলের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র মুস্তাকিম শেখ । দুই বন্ধুই পরস্পরের কুস্তি প্র্যাকটিশের পার্টনার । রাজ্যে সাফল্যের পর এবার ওদের লক্ষ্য জাতীয় স্তর ও পরবর্তীতে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করা । বীরভূম জেলায় কোনও ক্লাবে নেই কুস্তির চর্চা সেরম প্রশিক্ষকও নেই কুস্তির জন্য । তাই দুইজনেই ভর্তি হয় মুর্শিদাবাদের  কান্দিতে একটি আর্মি কোচিং সেন্টারে ।  তাদের প্রশিক্ষণ শুরু হয় কোচ সাইফুল খানের অধীনে । প্রশিক্ষণ নিতে নিতেই তাদের পদক জয় নবগ্রাম আর্মি ক্যাম্পে জেলাস্তরের প্রতিযোগিতায় । সেখানেই তাদের সাক্ষাৎ হয় বিশিষ্ট কোচ নন্দন দেবনাথ এর সঙ্গে এবং তাঁরই পরামর্শে কলকাতার জোড়াবাগানে বেঙ্গল অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালনায় অষ্টম নেতাজি সুভাষ স্টেট গেমসে অংশ নেয় তারা । আর সেখানেই প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়েই পদক জয় দুই যুবকের ।এখন দুইজনেরই লক্ষ্য জাতীয় প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে পদক জয় ।

আরও পড়ুন Python in Siliguri: বাপ রে বাপ! ৯ ফুট লম্বা অজগর বাড়ির সামনে, শিলিগুড়িতে হুলস্থুল, দেখুন ছবি

হাসিরুল শেখের বাবা নাজিম শেখ পেশায় চায়না ভ্যান চালক । তাদের রোজগার সামান্য৷ অপরদিকে বছর পাঁচেক আগেই মারা গিয়েছেন মুস্তাকিমের বাবা । তবে তার দাদা মহঃ হাসান শেখ পাথর খাদান এলাকায় এক্সকাভেটর অপারেটর । ভাইয়ের কুস্তিতে খুব উৎসাহ দেন দাদা । কিন্তু বীরভূমে নেই কুস্তির চর্চা । তবুও দুই বন্ধু মিলে গ্রামে বালির মধ্যেই চালিয়ে যেত কুস্তির চর্চা । প্রশিক্ষকের অভাব বারবার অনুভব করলেও হারবার পাত্র নয় তারা । সব প্রতিকূলতা জয় করে জাতীয় স্তরে পদক জয়ের লক্ষে কঠোর অনুশীলনে ব্যস্ত রেখেছে নিজেদের । তবে রাজ্যস্তরে পদক জয়ের পর এখন উৎসাহ দিচ্ছেন অনেকেই ।

আরও পড়ুন Siliguri News: টাকার বিনিময় অন্যের হয়ে কনস্টেবল পদের পরীক্ষা দিতে এসে ফাঁপড়ে 'ভুয়ো পরীক্ষার্থীরা'

এর আগেও ছোট থেকেই তাদের উৎসাহিত করে নানা ভাবে সাহায্য করেছেন দীঘলগ্রাম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মহঃ নাজেমহোসেন ও শিক্ষক  মুস্তাফা সিরাজ ।  পঞ্চায়েত প্রধান রুসাই আলি, মহঃ বাজার পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য আব্দুল সালাম, মহঃ বাজার থানার ওসি তাপাই বিশ্বাস এনাদের থেকেও অনেক উৎসাহ পেয়েছেন দুই বন্ধু । হাসিরুল শেখ ও মুস্তাকিম শেখ দুজনেই সাধারণ পরিবারের সদস্য। প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার জোগানোর সামর্থ্য নেই তাদের পরিবারের। নেই কুস্তি চর্চার ম্যাট ও প্রশিক্ষক। তাই তাদের আবেদন প্রশাসন ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে প্রশাসন এ ব্যাপারে  তাদের সাহায্য করুক যাতে তারা জাতীয় স্তরে জয়ী হয়ে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে পারে । মুস্তাকিম শেখ বলেন , " ছোটো থেকেই উৎসাহ পেয়েছি সকলের । তবে বীরভূমে ম্যাট না থাকায় মাটি খুঁড়েই প্যাকটিস করতাম দুই বন্ধু । তারপরই এই সাফল্য । তবে এই সাফল্যে আমার থেকেও বেশি খুশি আমার পরিবারের লোক , পাড়া প্রতিবেশী ও আত্মীয় স্বজন  । "তাদেরকে বীরভূমের মহম্মদবাজার থানার পক্ষ থেকে মহম্মদবাজার থানার ওসি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন গ্রামে গিয়ে৷

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: South bengal news, Wrestling

পরবর্তী খবর