• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Life Style: রাজমা, কাবলি ছোলা খেয়ে পেট আইঢাই? গ্যাস-অম্বলের সমস্যা থেকে বাঁচতে এই কৌশলে রান্না করে দেখতে পারেন!

Life Style: রাজমা, কাবলি ছোলা খেয়ে পেট আইঢাই? গ্যাস-অম্বলের সমস্যা থেকে বাঁচতে এই কৌশলে রান্না করে দেখতে পারেন!

প্রতীকী ছবি ৷

প্রতীকী ছবি ৷

Life Style|Cooking Process|Eating Habit: এই ভাবেই রাজমা, কাবলি ছোলা খান গ্যাস অম্বল অনেক দূরে চলে যাবে, রান্নার সময় কিছু কৌশল অবলম্বন করলেই গ্যাস-অম্বলের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। ঠিকঠাক ভেজানো এবং শুকনো করার উপরেই গোটা প্রক্রিয়াটা নির্ভর করছে।

  • Share this:

#কলকাতা: দুয়ারে শীত। আর বাজারে উঁকি দিচ্ছে মরশুমি সবজি। পাতে পড়ার অপেক্ষায় প্রহর গুনছে রকমারি বিনস, রাজমা, কাবলি ছোলা। কিন্তু সমস্যা হল, কবজি ডুবিয়ে এই সব খাবার পর পেট আইঢাই করতে শুরু করে। আর শেষ পরিণতি গ্যাস, অ্যাসিডিটি।

তবে রান্নার সময় কিছু কৌশল অবলম্বন করলেই এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। ঠিকঠাক ভেজানো এবং শুকনো করার উপরেই গোটা প্রক্রিয়াটা নির্ভর করছে। রাজমা, মুগ, উরদ, চানা বা ছোলা, মুসুর, মটরশুঁটি সঠিক পদ্ধতিতে রান্না করলে নিমেষে ওড়ানো যাবে গ্যাস বা অ্যাসিডিটির সম্ভাবনা। দেখে নেওয়া যাক, সঠিক ভাবে রান্না করার কৌশল। ভেজাতে হবে ৮ ঘণ্টা – রাজমা, কাবলি ছোলা বা রকমারি বিনস রান্নার আগে অন্তত ৮ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে।

আরও পড়ুন:  Winter: একটু উষ্ণতার ছোঁয়া, এই বদলগুলিতেই আপনার ঘর এবারের শীতে 'হটস্পট'!

সকালে রান্নার পরিকল্পনা থাকলে আগের রাতে ভিজিয়ে রাখা সব চেয়ে ভালো। রাতে রান্না করলে সকালেও ভিজিয়ে দিতে পারেন। এতেই রাজমা বা কাবলি ছোলার গ্যাস অনেকটা চলে যায়। আবার মুসুর ডালে রয়েছে ফাইটেজ নামের এক ধরনের এনজাইম। কিছু ক্ষণ ভিজিয়ে রাখার পর ফাইটিক অ্যাসিডকে ভেঙে তা সক্রিয় হয়।

ভেজানো জল ফেলে দিতে হবে – যে জলে রাজমা, কাবলি ছোলা বা রকমারি বিনস ভিজিয়ে রাখা ছিল, তা ভুলেও রান্নায় ব্যবহার করা উচিত নয়। এতে পেট ব্যথা, পেট ফুলে যাওয়া এবং গ্যাসের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

আরও পড়ুন:  Python Viral Video: ২০ ফুটের অজগরের ওপর গড়াগড়ি খাচ্ছে ছোট্ট মেয়ে! গায়ে কাঁটা দেওয়া ভাইরাল ভিডিও...

গরম জলে ধুয়ে নিতে হবে – এ বার গরম জলে এক ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। জল বদলে বেশ কয়েক বার ধুয়ে নিতে পারলে আরও ভালো। এর ফলে রাজমা, ছোলা বা বিনস ফুলে আকারে দ্বিগুণ হয়ে যাবে। আর রান্নার সময়েও এই আকারই থাকবে।

প্রেসার কুকারে বসাতে হবে – স্বাস্থ্যবিদরা বলেন, প্রেসার কুকারে রান্না করলে খাবারের লেক্টিনের মাত্রা কমে যায়। এই লেক্টিন এমন একটি ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান, যা খাবারের পুষ্টিগুণ নষ্ট করে দিতে সক্ষম। অর্থাৎ, প্রেসার কুকারে রান্না করলে খাবারের পুষ্টিগুণ বজায় থাকে ষোলআনা।

আরও পড়ুন:   Vastu Tips: কখনও টাকার অভাব হবে না! এই গাছ বাড়িতে থাকলে সংসারে উপচে পড়বে সুখ-সমৃদ্ধি...

শেষে দিতে হবে নুন, টমেটো – টমেটো এবং ভিনিগারেও কিছু অ্যাসিডিক উপাদান আছে। তাই রান্নার সময় এগুলো সবার শেষে দিতে হবে। নুনের ক্ষেত্রেও একই পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। এমন অনেকেই রয়েছেন, যাঁরা গ্যাস, অ্যাসিডিটির ভয়ে রাতে এই ধরনের খাবার এড়িয়ে চলেন। কিন্তু এই পদ্ধতিতে রান্না করে নিশ্চিন্তে ভূরিভোজ সারা যেতে পারে। কোনও সমস্যা হবে না।

First published: