Home /News /alipurduar /
Alipurduar: ঝড়ে উড়ে গেছে স্কুলের বারান্দার চাল! বর্ষায় চরম সমস্যায় পড়ুয়ারা

Alipurduar: ঝড়ে উড়ে গেছে স্কুলের বারান্দার চাল! বর্ষায় চরম সমস্যায় পড়ুয়ারা

title=

বিদ্যালয়ের বারান্দার টিন ঝড়ে উড়ে গিয়েছে।নতুন করে কোনও টিন না দেওয়ায় বিপাকে পড়ুয়ারা। গত বিধানসভা ভোটের আগে ঝড়ে আলিপুরদুয়ার জেলার কামাখ্যাগুড়ি সংলগ্ন মধ্য পারোকাটা নিউ প্রাইমারি স্কুলের বারান্দার টিন উড়িয়ে নিয়ে যায়।

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: বিদ্যালয়ের বারান্দার টিন ঝড়ে উড়ে গিয়েছে।নতুন করে কোনও টিন না দেওয়ায় বিপাকে পড়ুয়ারা। গত বিধানসভা ভোটের আগে ঝড়ে আলিপুরদুয়ার জেলার কামাখ্যাগুড়ি সংলগ্ন মধ্য পারোকাটা নিউ প্রাইমারি স্কুলের বারান্দার টিন উড়িয়ে নিয়ে যায়। তারপর থেকে প্রায় দেড় বছর হতে চলল,কিন্তু আজও মেরামত হয়নি এই বিদ্যালয় ভবনের বারান্দার টিন। দীর্ঘ সময় লক ডাউনের কারণে বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় কোনো সমস্যা হচ্ছিলনা।কিন্তু করোনা পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠে পঠন পাঠন আবার শুরু হতেই সমস্যায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক,পড়ুয়া সহ মিড ডে মিলের রাঁধুনীরা। পাশাপাশি বিরাট দুশ্চিন্তা নিয়ে সন্তানদের বিদ্যালয়ে পাঠাচ্ছেন অভিভাবকরা। এই মুহূর্তে আলিপুরদুয়ার জেলাজুড়ে চলছে প্রবল বৃষ্টি। গ্রীষ্মের ছুটি পেয়ে খুলেছে স্কুল।ঠিক এই সময় ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা গেল এক ভয়ংকর ছবি।

     

     

    বিদ্যালয়ের বারান্দা জলে ভেসে যাচ্ছে। এই ভেজা বারান্দা দিয়েই শ্রেণী কক্ষে প্রবেশ করতে এবং বাইরে বের হতে হচ্ছে খুদে পড়ুয়াদের।প্রায় প্রতিদিন এই বারান্দাতে অনেক পড়ুয়া চলতে গিয়ে পা পিছলে পরে আঘাত পেয়েছেন। এমনকি ছাউনিহীন বারান্দায় বসে বৃষ্টির মধ্যে ভিজে মিড ডে মিল খেতে দেখা গেল পড়ুয়াদের। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ তাদের অভিভাবকরা।

    আরও পড়ুনঃ জয়গাঁ সংলগ্ন গোপাল বাহাদুরবস্তিতে হাতির প্রাণ বাঁচালেন এলাকাবাসীরা

     

     

    তারা দ্রুত দাবি জানিয়েছেন স্কুল ভবন মেরামতের। নাহলে বাচ্চারা যে কোনো সময় বড় দুর্ঘটনার কবলে পড়বে। জলে ভিজে অসুস্থতার শিকার হতে পারে পড়ুয়ারা। তাই তারা জানিয়েছেন যদি প্রশাসন স্কুল বারান্দা মেরামতির কাজ না করে তবে গ্রামবাসীরা চাঁদা তুলে সারাই করার চিন্তা ভাবনা নেবেন।মিড ডে মিলের রাঁধুনীদের অসুবিধা হচ্ছে।

    আরও পড়ুনঃ জয়ন্তীতে জলের তোড়ে ভেসে গিয়ে মৃত্যু হল এক এসএসবি জওয়ানের! উদ্ধার ২

     

     

    খোলা ছাদে বারান্দায় রান্না করা কষ্টকর হয়ে উঠছে।বৃষ্টি বেশি হলে রান্না করা যাচ্ছেনা। প্রসঙ্গে জেলা প্রাথমিক সংসদের চেয়ারম্যান পরিতোষ বর্মন বলেন, বিদ্যালয়ের পরিস্থিতির বিষয়ে সরকারের কাছে লিখিত আবেদন জানান হয়েছে।টাকা এলেই কাজ শুরু হবে।

     

     

     

    Annanya Dey

    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Alipurduar, North Bengal

    পরবর্তী খবর