২১২ কিমি/প্রতি ঘণ্টা গতি তুলল Royal Enfield-এর এই মডেল, রেকর্ড

২১২ কিমি/প্রতি ঘণ্টা গতি তুলল Royal Enfield-এর এই মডেল, রেকর্ড

রয়্যাল এনফিল্ড-এর একটা বদনাম অবশ্য ছিল। রয়্যাল এনফিল্ড স্লো। এবার সেই বদনামও ঘুঁচল।

রয়্যাল এনফিল্ড-এর একটা বদনাম অবশ্য ছিল। রয়্যাল এনফিল্ড স্লো। এবার সেই বদনামও ঘুঁচল।

  • Share this:
    #মেলবোর্ন: একবার কিনলে লাইফটাইম। মেটাল বডি হওয়ার দরুণ Royal Enfield-এর টেকসই হিসাবে নামডাক রয়েছে। রাস্তা যেমনই হোক, রয়্যাল এনফিল্ড-এর ছুটতে খুব একটা সমস্যা হয় না। পাহাড়ি রাস্তা থেকে শুরু করে গ্রামের মেঠোপথ, সব জায়গাতেই সাবলীল দেশজ সংস্থার এই মোটরসাইকেল। তবে রয়্যাল এনফিল্ড-এর একটা বদনাম অবশ্য ছিল। রয়্যাল এনফিল্ড স্লো। এবার সেই বদনামও ঘুঁচল। যদিও এই সংস্থার মোটরসাইকেলের প্রত্যেক মডেলের আলাদা কিছু বিশেষত্ব রয়েছে। ফলে জনপ্রিয়তায় কখনও ভাঁটা পড়েনি। ঘন্টায় ২১২ কিমি গতি তুলে রয়্যাল এনফিল্ড-এর Interceptor 650 রেকর্ড গড়ল। এমন কাণ্ড রেকর্ড হয়ে থাকল। অস্ট্রেলিয়ার লেক গার্ডেনে স্পিড উইক রান- ইভেন্টের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই ইন্টারসেপ্টর ৬৫০ ২১২.৫১ কিমি প্রতি ঘন্টা গতিতে ছুটল। এর আগে ২০১৬ সালে রয়্যাল এনফিল্ড-এর এই মডেল ১৯৫.০৬ কিমি প্রতি ঘন্টা গতিতে ছুটে রেকর্ড গড়েছিল। কিন্তু এবার সেই রেকর্ড ভাঙল। স্পিড উইক রান-এ ইন্টারসেপ্টর ৬৫০ চালাচ্ছিলেন চার্লি হলাম। এই ইভেন্টে মোটরসাইকেলের সামান্য কিছু মডিফিকেশন করেছিলেন চালক। কমার্শিয়াল আনলেডেড ফুয়েল ব্যবহার করেছিলেন। তবে ইঞ্জিনে কোনওরকম মডিফিকেশন করা হয়নি। সংস্থার তরফ এই মডেলে ৬৪৮ সিসি প্যারালাল টুইন এয়ার কুল ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছিল। ৪৭.৪৫ পিএস পাওয়ার। ৫২ এমএম টর্ক জেনারেট করে ইঞ্জিন। রয়েছে সিক্স স্পিড ট্রান্সমিশন গিয়ার বক্স।। ২০১৮ সালে এই মডেল লঞ্চ করেছিল রয়্যাল এনফিল্ড। ভারত ছাড়াও ইউরোপ ও আমেরিকার বাজারে রয়্যাল এনফিল্ড-এর এই মডেল বেশ জনপ্রিয়।
    Published by:Suman Majumder
    First published: