• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • Jamshedpur FC beat ATK Mohun Bagan : আইএসএলে টানা দ্বিতীয় হার এটিকে মোহনবাগানের, ফের বিতর্কিত রেফারিং

Jamshedpur FC beat ATK Mohun Bagan : আইএসএলে টানা দ্বিতীয় হার এটিকে মোহনবাগানের, ফের বিতর্কিত রেফারিং

আবার আটকে গেলেন এটিকে মোহনবাগানের রয় কৃষ্ণ

আবার আটকে গেলেন এটিকে মোহনবাগানের রয় কৃষ্ণ

Jamshedpur FC beat ATK Mohun Bagan in ISL. আইএসএলে টানা দ্বিতীয় হার এটিকে মোহনবাগানের, ফের বিতর্কিত রেফারিং। রেফারিং নিয়ে ফের ক্ষোভ উগরে দিতে দেখা যায় হাবাসকে।

  • Share this:

    জামশেদপুর - ২

    এটিকে মোহনবাগান -১

    #গোয়া: আবার প্রত্যাশার ফানুস চুপসে গেল এটিকে মোহনবাগানের। সোমবার আইএসএল এর অপরাজিত দল জামশেদপুরের কাছে হেরে গেল এটিকে মোহনবাগান (Jamshedpur FC beat ATK Mohun Bagan)। নাটকীয় ম্যাচ, মাথা গরম, হলুদ কার্ড, মারপিট - মশলার অভাব ছিল না। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ ৩ পয়েন্ট আবার হারিয়ে এল সবুজ মেরুন। প্রথম দলে আজকে আশুতোষ, সুমিত রথিকে নিয়ে এসেছিলেন হাবাস (Antonio Lopez Habas)। তিরিকে রিজার্ভ দলে রেখেছিলেন। মাঠে নামাননি।

    আরও পড়ুন - Ajaz Patel team India signed Jersey : ভারতীয় দলের থেকে বিশেষ উপহার পেলেন ১০ উইকেট নিয়ে ইতিহাস গড়া আজাজ প্যাটেল

    ধাক্কা খেলেন মোহনবাগান সমর্থকরা। গতবারেও হারতে হয়েছিল জামশেদপুরের কাছে। এটিকে মোহনবাগান প্রথম ম্যাচে কেরল ব্লাস্টার্স এফসিকে ৪-২ গোলে হারানোর পর এসসি ইস্টবেঙ্গলকে উড়িয়ে দিয়েছিল ৩-০ গোলে। তবে মুম্বই সিটির কাছে ১-৫ গোলে হারার পর আজ জামশেদপুরের কাছেও হারল বাগান। অন্যদিকে, জামশেদপুর এসসি ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র দিয়ে আইএসএল অভিযান শুরু করেছিল।

    পরের ম্যাচে এফসি গোয়াকে হারায় ৩-১ গোলে। হায়দরাবাদ এফসির বিরুদ্ধে ১-১ গোলে ড্রয়ের পর এদিন ফের গতবারের রানার-আপকে হারিয়ে চমক দিল জামশেদপুর। আজকের ম্যাচে আন্তোনিও লোপেজ হাবাস ৩-৪-৩ ছকে দল নামান। জামশেদপুর এফসি ৪-৪-২ ছকে প্রথম থেকেই আক্রমণ, প্রতি-আক্রমণ, প্রেসিং, ডিফেন্ডিংয়ে অনবদ্যভাবে খেলতে থাকে জামশেদপুর এফসি।

    আরও পড়ুন - VVS Laxman on Siraj: দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য বুমরাহ,শামির পর তৃতীয় পছন্দ সিরাজ, বলছেন লক্ষ্মণ

    প্রথমার্ধে অ্যাটাকিং থার্ডে এটিকে মোহনবাগানকে খুঁজেই পাওয়া যায়নি। শুধু ৪৩ মিনিটে রয় কৃষ্ণার (Roy Krishna) গোলমুখী শট আংশিক থামিয়ে দেন টিপি রেহনেশ, এরপরই সেই বলকে গোল লাইন পেরোতে দেননি এলি সাবিয়া। ম্যাচের ৩৭ মিনিটে জামশেদপুর এফসিকে এগিয়ে দেন সেইমিনলেন ডঙ্গেল (Seiminlen Doungel)। মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে সবুজ মেরুন বক্সের দিকে এগোতে থাকেন জিতেন্দ্র সিং, সঠিক সময়ে তিনি বল বাড়ান ডঙ্গলের দিকে। তাঁর শট বাঁচানোর কোনও উপায় ছিল না অমরিন্দর সিংয়ের।

    প্রথমার্ধে ১-০ গোলে এগিয়ে ছিল জামশেদপুর। দ্বিতীয়ার্ধে গোল শোধের মরিয়া লড়াই চালাতে থাকে এটিকে মোহনবাগান। ম্যাচের মেজাজও ছিল চড়া। দুই দলেরই কয়েকজন ফুটবলার অকারণে মাথা গরম করে হলুদ কার্ড দেখেন। চারটি হলুদ কার্ড দেখলে একটি ম্যাচে বসতে হবে, আইএসএলের এই নিয়মের কথা মাথায় রাখলে অকারণে মাথা গরমের বড় খেসারতও দিতে হতে পারে।

    ৮৪ মিনিটে গ্রেগ স্টুয়ার্টের পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নেমেই জামশেদপুরকে ২-০ গোলে এগিয়ে দেন আলেকজান্দ্রে লিমা। তিন সবুজ-মেরুন ডিফেন্ডারের ফাঁক দিয়ে মাটি ঘেঁষা শটে গোল করেন তিনি। যদিও এদিনও রেফারিং নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। সাবিয়া ও স্টুয়ার্টের হাতে দুটি বল লাগলেও তিনি এটিকে মোহনবাগানকে পেনাল্টি দেননি।

    তবে শেষদিকে জামশেদপুর ডিফেন্সে প্রচুর চাপ তৈরি করেও দ্বিতীয় গোল আদায় করতে পারেনি এটিকে মোহনবাগান। ব্রাজিলিয়ান এলি সাবিয়া এবং ব্রিটিশ ডিফেন্ডার পিটার হার্টলে দুরন্ত লড়াই করেন ইস্পাত নগরীর দলের হয়ে। রয় কৃষ্ণ এবং পরে নামা ডেভিড উইলিয়ামস এদিন একেবারেই ছিলেন সাদামাটা।

    হুগো বুমু চেষ্টা করলেন। লড়াই করলেন ফিনল্যান্ডের জনি কাউকো। ভাগ্য ভাল থাকলে অতিরিক্ত সময়ে গোল পেয়ে যেতেন। অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হল জনির শট। ম্যাচ শেষে রেফারিং নিয়ে ফের ক্ষোভ উগরে দিতে দেখা যায় হাবাসকে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: