• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Kalna unnatural death: আঠারো বছরের দাম্পত্যে স্ত্রীর ‘অন্য সম্পর্কের’ কারণেই কি ‘আত্মঘাতী’ স্বামী?

Kalna unnatural death: আঠারো বছরের দাম্পত্যে স্ত্রীর ‘অন্য সম্পর্কের’ কারণেই কি ‘আত্মঘাতী’ স্বামী?

ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে

ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে

Kalna unnatural death: প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের ধারণা, শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে সবার অলক্ষে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন তিনি।

  • Share this:

কালনা : দু চার মাস নয়, বিয়ে হয়েছিল আঠারো বছর আগে। অনুমান, সেই বিবাহিত স্ত্রী অন্য পুরুষের সঙ্গে ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ায় অভিমানে আত্মঘাতী হলেন এক ব্যক্তি। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের ধারণা, শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে সবার অলক্ষে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন তিনি। পূর্ব বর্ধমানের কালনায় (Kalna of East Bardhaman) এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে মৃতদেহ কালনা মহকুমা হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

আরও পড়ুন : ১১ মাসের শিশুর মাথায় আটকে গেল হাঁড়ি, দীর্ঘ প্রচেষ্টায় অবশেষে স্বস্তি হাসপাতালে

এলাকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ১৮ বছরের বিবাহিত জীবন ছিন্ন করে অন্য পুরুষের সঙ্গে স্ত্রী চলে যাওয়ায় অপমানে শ্বশুরবাড়িতে এসে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন ওই ব্যক্তি। মৃত ওই ব্যক্তির নাম সুদেব দে। ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কালনা থানার অন্তর্গত শাসপুর মোল্লাপাড়া এলাকায়।

আরও পড়ুন : ফের কালনার গঙ্গায় দেখা মিলল কুমিরের, এ বার সরীসৃপের গতির অভিমুখ হুগলির দিকে

মঙ্গলবার কালনা মহকুমা হাসপাতালে মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করা হয় ।এদিন কালনা মহকুমা হাসপাতালে এসে মৃতের মেয়ে ও তার শাশুড়ি জানান, আঠেরো বছর আগে কালনা থানার অন্তর্গত বাঘনাপাড়ার খাসপুর এলাকার বাসিন্দা সুদেব দে-এর সঙ্গে বিয়ে হয় মোল্লাপাড়ার এলাকা ওই গৃহবধূর।

আরও পড়ুন : হাতিদের করিডরে যুক্ত হতে চলেছে পূর্ব বর্ধমান, ভাবনা বন দফতরের 

এর পরই স্বামী কর্মসূত্রে চেন্নাইয়ে চলে যান। বাড়ি ফিরে এসে দেখেন তাঁর স্ত্রী পরপুরুষের সঙ্গে চলে গিয়েছেন। পরিজনদের বক্তব্য, বেশ কয়েক দিন আগে স্ত্রীকে সুদেব ফিরিয়ে নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু অভিযোগ, সোমবার স্বামীর সামনে দিয়ে ওই মহিলা ফের প্রেমিকের মোটর বাইকে চেপে স্বামীকে ছেড়ে দিয়ে অন্যত্র চলে যান।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তির কাছ থেকে একটি কাগজ পাওয়া গিয়েছে। তা সুইসাইড নোট কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তের প্রয়োজনে মৃত ব্যক্তির অন্যান্য হাতের লেখার সঙ্গে তা মিলিয়ে দেখা হবে।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: