Home /News /south-bengal /
Swasthya Ingit: রাজ্যে দ্বিতীয় বার, স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের মাধ্যমে প্রাণ বাঁচল রোগীর! জানেন এর বিষয়ে?

Swasthya Ingit: রাজ্যে দ্বিতীয় বার, স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের মাধ্যমে প্রাণ বাঁচল রোগীর! জানেন এর বিষয়ে?

স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের সাফল্য

স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের সাফল্য

Swasthya Ingit: স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের মাধ্যমে প্রাণ বাঁচল বীরভূমের রোগীর।

  • Share this:

#বোলপুর: রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য ইঙ্গিত প্রকল্পের স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের দ্বারা প্রাণ ফিরে পেল বীরভূমের সিউড়ির বাসিন্দা মহম্মদ ইব্রাহিম খলিল।রাজ্যের মধ্যে দ্বিতীয় এই ঘটনা। ২০১৬সালে শারীরিক অসুস্থতার কারণে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে মহম্মদ ইব্রাহিম খলিলের করা হয় সিটি স্ক্যান। আর তাতেই ধরা পরে, তার ব্রেন স্ট্রোক যাকে ডাক্তারি পরিভাষায় বলে ইচকামিং ইনফ্যাক্স। তবে তারপর তিনি সুস্থ থাকলেও গত কয়েকদিন আগে থেকে শরীরের অবনতি দেখা যায়। তাঁকে ভর্তি করা হয় প্রথমে সাঁইথিয়া হাসপাতালে। সেখানে ডাক্তাররা জানান, আগেও একবার স্ট্রোক হওয়ায় আবারও স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাই তাকে সিউড়ি জেলা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন তারা।

তারপরই ডাক্তারের পরামর্শ মতো রোগীর আত্মীয়রা তাকে সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। তারপর তার সিটি স্ক্যান করানোর পর চিকিতসকরা দেখেন তার ব্রেনের একটা অংশে রক্ত জমা হচ্ছে ধীরে ধীরে। তারপর তাঁরা স্বাস্থ্য ইঙ্গিত এপের সাহায্যে অনলাইনে কলকাতার বাঙ্গুর ইন্সটিটিউট নিউরোলজি নিউরোহাবে যোগাযোগ করেন। সেখান কার চিকিতসকরা অডিও ভিস্যুয়াল মাধ্যমে রোগীর সব প্যারামিটার দেখার পর স্ট্রমবলিসিস একটি ইনজেকশন টেনেক্টেব প্লাস বা অল্টো প্লাস রোগীকে পুশ করতে বলেন সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের চিকিতসকদের।

তার মাধ্যমে রোগীর ব্রেনের যেখানে রক্ত জমাট বেঁধে আছে ওই জায়গা থেকে রক্তটা গোলে যাবে। তারপরই তাকে সেই ইনজেকশন দেওয়া হয় এবং বর্তমানে রোগী এখন সুস্থ। সিউড়ি সদর হাসপাতালের মনোরোগ বিশেষজ্ঞ জিষ্ণু ভট্টাচার্য জানান, "এখন রোগীর শারীরিক অবস্থা ভালো। তবে আবারো তার স্ক্যান করা হবে।" রাজ্য সরকারের এই সুবিধা পাওয়ায় দারুন খুশি রোগীর পরিবার। জানা গিয়েছে। জানা গিয়েছে এই স্বাস্থ্য ইঙ্গিত এপের মাধ্যমে রাজ্যের দ্বিতীয় এই রোগী। এর আগে বারাসাতের এই রোগীকে সুস্থ করা হয়েছে এই এপের মাধ্যমে। রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি  হাসপাতালের বেশ কিছু চিকিতসকদের এই স্বাস্থ্য ইঙ্গিত অ্যাপের ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে ইতিমধ্যেই।

আরও পড়ুন: বিনপুর থেকে গ্রেফতার এক দম্পতি, পুলিশ সূত্রে মিলল মারাত্মক তথ্য! আশঙ্কায় জঙ্গলমহল

আপাতত ১২ টি জেলা হাসপাতাল এবং স্বাস্থ্য জেলাকে প্রাথমিক ভাবে নেওয়া হয়েছে এই অ্যাপের নেটওয়ার্কে। যেখানে যেখানে অন লাইনে সিটি স্ক্যান রিপোর্ট আপলোড করার সুবিধা আছে। এতে একটি পোর্টাল করা হয়েছে যাতে এই ১২ টা হাসপাতালের স্ট্রোক পেশেন্ট দের সিটি স্ক্যান রিপোর্ট আপলোড হবে এবং ট্রেনিং প্রাপ্ত মেডিক্যাল অফিসার ওই পোর্টালে নিজের ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে সেই স্ট্রোক পেশেন্ট টি নিয়ে সরাসরি বাঙ্গুর ইনস্টিটিউট অফ নিউরোলজি এর ডাক্তার দের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন ( অডিও ভিসুয়াল মাধ্যমে )। এবং পরবর্তী কালে এটাও ভাবা হচ্ছে যে গ্রামীণ বা শহরতলি এর হাসপাতাল  গুলো থেকে যখন ডাক্তার বাবু BIN এর ডাক্তার বাবুর সাথে কথা বলবেন তখন এই রুগী এর বাড়ির লোক ও কথা বলতে পারবেন।

আরও পড়ুন: গরমে পুড়ছেন, এই জায়গাটির তাপমাত্রা শুনলে মাথায় হাত দেবেন! কী করে থাকে মানুষ!

এই প্রজেক্টে তার প্রধান উদ্দেশ্য ......১. স্ট্রোক এর মধ্যে ischaemic ( রক্ত জমাট বা ক্লট তৈরি হওয়ার কারণে রক্ত সঞ্চালন বন্ধ ) স্ট্রোক গুলি তে যদি রুগী ,  স্ট্রোক হওয়ার ৪.৫ ঘণ্টা ( সাড়ে চার ঘণ্টা ) ( গোল্ডেন পিরিয়ড)এর মধ্যে আসে  তাহলে সেই রুগী এর বাকি সমস্ত vitals পরীক্ষা করে আমরা thrombolysis ( রক্তের ক্লট কে দ্রবীভূত বা ভেঙে ফেলার চেষ্টা) করতে পারবো। এর জন্য অনেক মূল্যবান ঔষধ --Tenecteplase / Alteplase ( যেকোনো একটি ব্যবহার করা হবে)... এবং এটি খুব সাধারণ ভাবে ইনজেকশন এর মাধ্যমে দেওয়া যায়। কোনরকম বিশেষ যন্ত্র পাতি এর প্রয়োজন নেই। গোল্ডেন পিরিয়ড এর মধ্যে thrombolysis করে দিলে স্ট্রোকের জন্য যে দুর্বলতা বা কথা জড়িয়ে যাওয়া বা প্যারালাইসিস হয় সেটা এর পরিমাণ কমে যাবে। মৃত্যু হার কমবে এবং ADL ( Activities of Daily living) উন্নত হবে। DALY ( disability adjusted Life years ) কমবে। ২. দ্বিতীয় উদ্দেশ্য যে স্ট্রোক সম্বন্ধিত প্রশ্ন গুলি সহজেই বাঙুর এবং sskm হাসপাতালের নিউরো বিশেষজ্ঞ দের সাথে আলোচনা করা যাবে।৩. কিছু কিছু খারাপ কেস যেমন Sub Arachnoid Hemorrhage, Extradural Hematoma, Subdural Hematoma  এই সব কেস গুলি কে জেলা হাসপাতাল থেকে নিকটবর্তী টার্শিয়ারি সেন্টারে পাঠাতে হবে। মহম্মদ মহিদুল ইসলাম নামে ওই রোগীর বাড়ির আত্মীয় খুব খুশী তার বাবা সুস্থ হয়ে যাওয়ায়। সিউড়ী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের চিকিতসকজিষ্ণু ভট্টাচার্য জানিয়েছেন এই এপের মাধ্যমে চিকিতসা পরিসেবা আরো উন্নত ভাবে এগিয়ে যাবে।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Swasthya Ingit app, West Bengal news

পরবর্তী খবর