Home /News /national /
Monsoon Diet: বৃষ্টির মরসুমই শরীরে জল কমে যায়! বর্ষায় শরীর সুস্থ রাখতে চুমুক দিন এই ৪ ড্রিঙ্কে

Monsoon Diet: বৃষ্টির মরসুমই শরীরে জল কমে যায়! বর্ষায় শরীর সুস্থ রাখতে চুমুক দিন এই ৪ ড্রিঙ্কে

4 drinks that can help rehydrate your body in the monsoon -Photo- Representative

4 drinks that can help rehydrate your body in the monsoon -Photo- Representative

Monsoon Diet: বর্ষাকালে ব্যাপারটা আলাদা। এসময় শরীরে ভিটামিন এবং খনিজগুলোর সঙ্গে অতিরিক্ত ইলেকট্রোলাইটের প্রয়োজন হয়।

  • Share this:

    #কলকাতা: বর্ষার সময় শরীরকে আবার হাইড্রেটেড রাখার প্রয়োজন হয় না কি! চারিদিকে তো শুধু জল আর জল। এমনটা ভাবতে পারেন অনেকেই। গরমের সময় সারাদিন ঘাম হয়। এই সময় শরীরকে হাইড্রেটেড রাখাটা অপরিহার্য। শরীরের তাপমাত্রার সামঞ্জস্য বজায় রাখতেও হাইড্রেটেড থাকাতা জরুরি। কিন্তু বর্ষাকালে ব্যাপারটা আলাদা। এসময় শরীরে ভিটামিন এবং খনিজগুলোর সঙ্গে অতিরিক্ত ইলেকট্রোলাইটের প্রয়োজন হয়। এর ঘাটতি হলেই শরীর জলশূন্যতা অনুভব করে। এই সময় শরীরকে হাইড্রেটেড করার জন্য ৪ ধরণের পানীয়ের হালহদিশ দেওয়া হল।

    তরমুজের জুস: আর্দ্র মরসুমে শরীরকে ডিহাইড্রেটেড রাখার জন্য সবচেয়ে ভালো পানীয় হল তরমুজের জুস। এতে রয়েছে ভিটামিন এ, বি৬, বি১ এবং সি। এর সবকটাই শরীরকে বাড়তি সুবিধে দেয়। তরমুজে ৯০ শতাংশ জল রয়েছে। তাই শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে এর জুড়ি নেই। তাছাড়া এতে প্রচুর পরিমাণে অ্যামিনো অ্যাসিড, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং লাইপোসিন রয়েছে।

    আরও পড়ুন - Skin Care Tips: মুখ হবে চাঁদের মতো উজ্জ্বল, থাকবে না একটা দাগও!

    ডাবের জল: গরম কাল হোক কিংবা বর্ষাকাল- ডাবের জলের কোনও বিকল্প নেই। এতে ক্যালোরি এবং কার্বোহাইড্রেট কম। কিন্তু প্রচুর পরিমাণে প্রাকৃতিক ভিটামিন এবং খনিজ রয়েছে। ফলে হাইড্রেশন পানীয় হিসেবে এটা চমৎকার কাজ করে। ক্যালোরি এবং কার্বোহাইড্রেট গ্রহণকে ন্যূনতম রাখার সময় পানীয় শরীরকে হাইড্রেট করে। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, কপার, আয়রন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা বদহজম থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে। হজম হয় সবকিছু।

    আরও পড়ুন - Cricketer's Extramarital Affair: ১০ বছরের বিবাহিত স্ত্রী বাড়িতে, গাড়িতে বান্ধবীকে চুমু ক্রিকেটারের, তারপর সবই শেষ না শুরু!

    ইলেক্ট্রোলাইট পানীয়: ইলেক্ট্রোলাইট হল খনিজ। এটা শরীরে জলের স্তর বজায় রাখতে সাহায্য করে। এগুলো রক্ত, টিস্যু ইত্যাদিতে পাওয়া যায়। জল, ইলেক্ট্রোলাইটস (সাধারণত সোডিয়াম এবং পটাসিয়াম) হল ইলেক্ট্রোলাইট পানীয়ের প্রধান উপাদান। তবে বেশিটা থাকে জল। এই পানীয়ের প্রধান উদ্দেশ্যই হল শরীরকে হাইড্রেটেড রাখা। বিভিন্ন উদ্দেশ্যে ইলেক্ট্রোলাইট এবং চিনির মাত্রা পরিবর্তিত হয়। যেমন ডায়ারিয়া বা অসুস্থতা থেকে সেরে ওঠার সময় একরকম আবার ব্যায়ামের পর এই পানীয় খেতে চাইলে তাতে ইলেক্ট্রোলাইট এবং চিনির মাত্রা হবে অন্যরকম।

    স্মুদি: ইলেক্ট্রোলাইট-সমৃদ্ধ খাবারগুলিকে ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করার আরেকটি চমৎকার উপায় হল স্মুদি। এতে সম্পূর্ণ খাবার যেমন ফল, বীজ, শাকসবজি, বাদাম ইত্যাদি থাকে, যা শরীরকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করে। এখন যদি কেউ হারানো ইলেক্ট্রোলাইটগুলিকে স্বাস্থ্যকর এবং পুষ্টিকর উপায়ে প্রতিস্থাপন করতে চান তবে এই ধরনের পানীয়টি বেছে নিতে হবে।

    First published:

    Tags: Diet, Monsoon

    পরবর্তী খবর