Home /News /national /
Kissing And Fondling: কিশোরের গোপনাঙ্গে হাত, ঠোঁটে চুমু 'অস্বাভাবিক যৌনতা' নয়, হাইকোর্টের মন্তব্যে চাঞ্চল্য

Kissing And Fondling: কিশোরের গোপনাঙ্গে হাত, ঠোঁটে চুমু 'অস্বাভাবিক যৌনতা' নয়, হাইকোর্টের মন্তব্যে চাঞ্চল্য

বিতর্কিত মন্তব্য হাইকোর্টের

বিতর্কিত মন্তব্য হাইকোর্টের

Kissing And Fondling: কিশোরের ঠোঁটে চুমু খাওয়া ও গোপনাঙ্গে হাত দেওয়াকে 'অস্বাভাবিক' অপরাধ পর্যায়ে ফেলা যায় না। একথা স্পষ্ট জানিয়ে দিল আদালত। শুধু তাই নয়, ওই কিশোরকে যৌন হেনস্তায় অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে এই মর্মে জামিনও দিয়ে দিল বম্বে হাই কোর্ট (Bombay High Court)।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    মুম্বই: ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী ১৪ বছরের কোনও কিশোরের ঠোঁটে চুমু খাওয়া ও গোপনাঙ্গে হাত দেওয়াকে 'অস্বাভাবিক' অপরাধ পর্যায়ে ফেলা যায় না। একথা স্পষ্ট জানিয়ে দিল আদালত। শুধু তাই নয়, ওই কিশোরকে যৌন হেনস্তায় অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে এই মর্মে জামিনও দিয়ে দিল বম্বে হাই কোর্ট (Bombay High Court)। প্রসঙ্গত, গত এক বছর ধরে ওই ব্যক্তি জেলবন্দি ছিল। কিন্তু এবার বোম্বে হাইকোর্টের রায়ে জামিনে ছাড়া পেলেন ওই ব্যক্তি।

    আরও পড়ুন : ফের বিস্ফোরক অর্জুন সিং! নাড্ডার সঙ্গে বৈঠকের আগেই ফাটালেন বোমা, যা বললেন বিজেপি সাংসদ

    দেখে নেওয়া যাক ঠিক কী অভিযোগ ছিল? এফআইআর থেকে জানা যাচ্ছে, ওই কিশোরের বাবা হঠাৎ দেখেন আলমারি থেকে বেশ কিছু টাকা উধাও। পরে ছেলে তাঁর কাছে স্বীকার করে, ওই টাকা সে দিয়েছে অভিযুক্তকে। পরিবারের বয়ান অনুযায়ী ‘ওলা পার্টি’ নামের এক অনলাইন গেম রিচার্জ করতে ওই ব্যক্তির দোকানে যেত কিশোরটি। একদিন রিচার্জ করতে যাওয়ার পরে তার গোপনাঙ্গে হাত দেয় অভিযুক্ত দোকানি। তার ঠোঁটে চুমুও খায়।

    ঘটনায় পুলিশের দ্বারস্থ হন কিশোরের বাবা। পকসো আইন ও ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারায় মামলা রুজু করেন তিনি। গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তকে। অবশেষে জামিন পেলেন তিনি। বিচারপতি অনুজা প্রভুদেশাই তাঁর বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, ”আক্রান্তের বিবৃতি ও এফআইআরে বর্ণিত বিবরণ থেকে জানা যাচ্ছে, আক্রান্তের গোপনাঙ্গ স্পর্শ ও তার ঠোঁটে চুমু খেয়েছিলেন অভিযুক্ত। আমার মতে, প্রাথমিক বিচারে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারায় এটিকে অপরাধ হিসেবে গণ্য যায় না।”

    আরও পড়ুন : এই ভুলগুলি করছেন না তো? ছোটোখাটো ভুলেই কিন্তু টমেটো ফ্লু হতে পারে! আতঙ্কিত নয়, সতর্ক থাকুন...

    ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে অভিযুক্তকে জামিনও দেন বিচারপতি। জানান, গত এক বছর ধরেই কারাবন্দি রয়েছেন অভিযুক্ত। এবং বিচার প্রক্রিয়া এখনও শুরু করা যায়নি। সেই সঙ্গে তিনি আরও জানান, নিগৃহীত কিশোরের মেডিক্য়াল টেস্ট করে যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে, তা তার নিগ্রহ সংক্রান্ত বিবৃতির সঙ্গে সবক্ষেত্রে মিলছে না। পকসো আইনে যেহেতু সর্বোচ্চ ৫ বছরের জেল এবং তা জামিনযোগ্য অপরাধ তাই তিনি জামিন দিচ্ছেন অভিযুক্তকে।

    উল্লেখ্য, ৩৭৭ ধারায় 'অস্বাভাবিক' শারীরিক মিলন কিংবা অন্য যৌন আচরণ প্রমাণিত হলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হয়। শুধু তাই নয়, এই ধারায় দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পর্যন্ত হতে পারে। পাশাপাশি, বিচার চলাকালীন সহজে জামিন মেলেও না। কিন্তু এক্ষেত্রে কোনও অপরাধ এই অস্বাভাবিক যৌন আচরণ হিসেবে গণ্য নয় বলেই রায় দিয়েছে বোম্বে হাইকোর্ট। ফলে জামিন মিলেছে অভিযুক্তের। তবে এই রায় নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published:

    Tags: Bombay High Court, Kiss

    পরবর্তী খবর