Home /News /national /
Bulldozers Of Hate: "ঘৃণার বুলডোজার বন্ধ করুন": জাহাঙ্গিরপুরীতে বিজেপির অভিযান নিয়ে আক্রমণ রাহুল গান্ধির

Bulldozers Of Hate: "ঘৃণার বুলডোজার বন্ধ করুন": জাহাঙ্গিরপুরীতে বিজেপির অভিযান নিয়ে আক্রমণ রাহুল গান্ধির

Delhi Jahangirpuri Bulldozers Of Hate: উত্তর দিল্লি মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশনের দখল বিরোধী অভিযানের সময় জাহাঙ্গিরপুরীতে বেশ কয়েকটি বাড়ি ধ্বংস করে দেয় বুলডোজার

  • Share this:

    নয়াদিল্লি: বুধবার দিল্লি এবং মধ্যপ্রদেশের হিংসা কবলিত এলাকায় বুলডোজার ব্যবহারের বিষয়ে সরকারকে তীব্র আক্রমণ করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি! প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘ঘৃণার বুলডোজার’ বন্ধ করে পাওয়ার প্ল্যান্ট চালু করার আহ্বানও জানিয়েছেন রাহুল। উত্তর দিল্লি মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশনের দখল বিরোধী অভিযানের সময় জাহাঙ্গিরপুরীতে বেশ কয়েকটি বাড়ি ধ্বংস করে দেয় বুলডোজার। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের আদেশের পরে অভিযান বন্ধ হয়ে যায়। যদিও, সুপ্রিম কোর্ট বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়ার পরেও এক থেকে দেড় ঘণ্টা দখল বিরোধী অভিযান অব্যাহত ছিল।

    আরও পড়ুন- দেশে ফের বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ, তবে "চতুর্থ ঢেউ নয়" বলেই দাবি বিশেষজ্ঞের

    দেশে কয়লার ঘাটতির বিষয়টি উত্থাপন করে একটি প্রতিবেদন শেয়ার করেছেন রাহুল। যাতে বলা হয়েছে যে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কয়লার জোগান কম হওয়ায় বড়সড় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের দিকে এগিয়ে যেতে পারে এই দেশ।

    “আট বছর ধরে কেবল বড় বড় কথা! তার ফলেই ভারতে আর মাত্র ৮ দিনের কয়লা মজুত রয়েছে,” ট্যুইট করেন রাহুল গান্ধি। রাহুল বলেন, “মোদিজি, মুদ্রাস্ফীতি বাড়ছে। বিদ্যুৎ ঘাটতি ক্ষুদ্র শিল্পগুলিকে ভেঙে ফেলবে, যার ফলে আরও আরও মানুষ চাকরি হারাবেন।” “ঘৃণার বুলডোজার বন্ধ করুন এবং বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু করুন,” আবেদন করেন রাহুল।

    দিল্লি ধর্মীয় হিংসা বিধ্বস্ত জাহাঙ্গিরপুরীতে এবং মধ্যপ্রদেশে কিছু জনের বিরুদ্ধে দাঙ্গায় লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। এই লোকজনের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে এই দিন বুলডোজার ব্যবহার করা হয়। হনুমান জয়ন্তী উপলক্ষ্যে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে জাহাঙ্গিরপুরীতে হিংসার ঘটনা শুরু হওয়ার কয়েক দিন পরেই দিল্লির বিজেপি-চালিত মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশনের এলাকায় দু'দিনের দখলবিরোধী অভিযানকে বুধবার সুপ্রিম কোর্ট স্থগিত ঘোষণা করে।

    আরও পড়ুন- মডেল প্রেমিকার নামে লাহোরে সেতু গড়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ!

    পুলিশের কাছে একটি চিঠিতে, মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশন জানিয়েছে যে জাহাঙ্গিরপুরীতে গণপূর্ত বিভাগ, স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন বিভাগ এবং অন্যান্যদের সমন্বয়ে একটি যৌথ দখল-বিরোধী কর্মসূচী নির্ধারণ করা হয়েছে। দিল্লি বিজেপির প্রধান আদেশ গুপ্তও উত্তর কর্পোরেশনের মেয়রকে জাহাঙ্গিরপুরীতে ‘দাঙ্গাকারীদের’ বেআইনি নির্মাণ শনাক্ত করতে এবং সেগুলি ভেঙে ফেলার জন্য চিঠি লিখেছেন৷ চিঠির একটি অনুলিপি পৌরসভার কমিশনারের কাছেও পাঠানো হয়েছিল৷

    “ভারতে মাত্র ৮ দিনের কয়লা মজুত রয়েছে। বিজেপির বিদ্বেষপূর্ণ রাজনীতির কারণে রাস্তায় জ্বলতে থাকা আগুনে ঘরবাড়িতে আলো পৌঁছবে না,” অফিসিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেলে লিখেছে কংগ্রেস।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Rahul Gandhi

    পরবর্তী খবর