• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • Coronavirus| Bengal: এক করোনাই রেহাই নেই, দোসর বৃষ্টি! বিশ্বকর্মা-মনসা পুজোয়ে মন্দা শিল্পীদের

Coronavirus| Bengal: এক করোনাই রেহাই নেই, দোসর বৃষ্টি! বিশ্বকর্মা-মনসা পুজোয়ে মন্দা শিল্পীদের

চলছে শেষ মুহূর্তের মূর্তি তৈরির কাজ।

চলছে শেষ মুহূর্তের মূর্তি তৈরির কাজ।

শিল্প দেবতার পুজো সংখ্যা কমায়, উপার্জন কমেছে মৃৎশিল্পীদের। কমেছে মনসা পুজোর সংখ্যাও।

  • Share this:

    রাত পোহালেই বিশ্বকর্মা পুজো (vishwakarma puja 2021)। সঙ্গে মনসা দেবীর (Manasha Devi) আরাধনাতেও মাতবে বাংলা। শিল্পাঞ্চল দুর্গাপুরে বিশ্বকর্মা পুজো মানেই উৎসবের (Festivals) আমেজ। কিন্তু বিগত কয়েক বছরে বদলেছে ছবিটা। জৌলুস কমেছে বিশ্বকর্মা পুজোর। শিল্পাঞ্চলে শিল্প দেবতার আরাধনায় কার্যত ধ্বস। দুর্গাপুর (durgapur news) সহ সংলগ্ন অঞ্চলে কমেছে বিশ্বকর্মা পুজোর সংখ্যা। চিন্তা বেড়েছে মৃৎশিল্পীদের। শিল্প দেবতার পুজো সংখ্যা কমায়, উপার্জন কমেছে মৃৎশিল্পীদের। উল্লেযোগ্যভাবে কমেছে বড় মনসা পুজোর সংখ্যা।

    করোনার ধাক্কায় এমনিতেই অনেক দেরিতে প্রতিমা তৈরীর বরাত পেয়েছেন মৃৎশিল্পীরা (potters)। যেখানে আগে প্রতিটা মৃৎশিল্পী গড়ে ২৫ থেকে ৩০টি প্রতিমা তৈরি করতেন, এবছর সেই সংখ্যা অর্ধেক হয়েছে। বরাত দেরিতে পাওয়ার জন্য প্রতিমা তৈরীর কাজ শুরু হয়েছে দেরিতে।

    আরও পড়ুন Vishwakarma Puja 2021| Bengal News: রাত পোহালেই বিশ্বকর্মা পুজো! বরাত নেই প্রতিমার, চাহিদাও কম গয়না-দশকর্মের

    তারওপর নিম্নচাপের জেরে গত দুদিনের বৃষ্টিতে সমস্যা আরও বেড়েছে মৃৎশিল্পীদের।  প্লাস্টিক ঢাকা দিয়ে চলেছে প্রতিমা তৈরির কাজ। বরাত পাওয়া প্রতিমা তৈরি করতে গত দু'দিনে হিমশিম খেতে হয়েছে মৃৎ শিল্পীদের। করোনার ধাক্কায় মৃৎশিল্পীদের নাজেহাল ব্যবসার ক্ষতি বাড়িয়েছে গত দু'দিনে বরুনদেবের অক্লান্ত আশীর্বাদ বর্ষণ। করোনার ধাক্কা এবং টানা বৃষ্টির দ্বৈত প্রভাবে পুজো মরশুমের শুরুতেই ব্যবসা নিয়ে চিন্তিত মৃৎশিল্পীরা।

    এক মৃৎশিল্পী জানিয়েছেন, আগে যে পরিমাণ বিশ্বকর্মা মূর্তি (vishwakarma puja 2021) তারা তৈরি করতেন,  এখন সেই সংখ্যা অনেক কমে গিয়েছে। ফলে উপার্জন কমেছে তাদের। পাশাপাশি মূর্তি তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে অনেকটা। সুতলি দড়ি থেকে খড়, প্রতিমার সাজসজ্জা, সবকিছুর দাম বেড়েছে। যে কারণে দাম বেড়েছে প্রতিমার। স্বাভাবিকভাবে প্রতিমা কিনতে গিয়ে, দামের জন্য পিছিয়ে পড়ছেন অনেকে। বাজেট না বাড়িয়ে তুলনামূলক ছোট প্রতিমা নিয়ে যাচ্ছেন পুজো উদ্যোক্তারা। যার প্রভাবে ব্যবসায় ধাক্কা খেতে হচ্ছে মৃৎশিল্পীদের।

    আরও পড়ুন Coronavirus| Bengal: উপসর্গহীন করোনা আক্রান্ত রোগী কারা? খোঁজার অভিনব উপায় বীরভূম জেলা প্রশাসনের

    একইসঙ্গে মনসা পুজোর (Manasha Puja) সংখ্যা কমেছে শিল্পাঞ্চল জুড়ে। চাহিদা কমেছে প্রতিমার। পারিবারিক পুজো গুলিতেও আগের তুলনায় ছোট প্রতিমা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন ক্লাব বা সংস্থাগুলি আগে যেভাবে বড়বড় পুজোর আয়োজন করত, তারাও বাজেটে কাটছাট করেছে। স্বাভাবিকভাবে বিশ্বকর্মা এবং মনসা পুজোয় প্রতিমার চাহিদা কমে যাওয়ায়, ধাক্কা খেয়েছে মৃৎশিল্পীদের ব্যবসা।

    অন্যদিকে শিল্পাঞ্চলে, শিল্প দেবতার (vishwakarma puja 2021) চাহিদা কমে যাওয়ায় অশনি সংকেত দেখছে শ্রমিক মহল। তারা বলছেন, এই ঘটনা প্রমাণ করছে শিল্পাঞ্চলে আগে যে পরিমাণ কারখানা ছিল, তার সংখ্যা অনেক কমেছে। কমেছে আর্থিক লেনদেন। কমেছে কর্মস্থানের সুযোগ। শিল্পক্ষেত্রগুলি বন্ধ হয়ে যাওয়ার জন্যই দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে বিশ্বকর্মা পুজোর সংখ্যা কমেছে।

    আরও পড়ুন Durga Puja 2021: মৃৎশিল্পীদের হাতে কাজ কম, এবারও কি দুর্গাপুজো-এ থাকবে না চমক?

    তবে এইসব ঘটনাকে ছাড়িয়ে, কম জৌলুসেও বিশ্বকর্মা পুজোর (vishwakarma puja 2021) প্রস্তুতি শুরু করেছে দুর্গাপুর। সরকারি -  বেসরকারি, ছোট-বড় সব সংস্থা, নিজেদের মতো করে বিশ্বকর্মা পুজোর আয়োজন শুরু করেছে। বিশ্বকর্মা পুজো নিয়ে উদ্দীপনা রয়েছে শ্রমিক মহলে। পারিবারিক মনসা পুজো নিয়েও উদ্দীপনা তুঙ্গে। তবে এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞদের মতামত, উৎসব পালনে কেউ যেন করোনার কথা ভুলে না যান। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সমস্ত সাবধানতা অবলম্বন করেই মানুষ যেন উৎসবে সামিল হন।

    Published by:Pooja Basu
    First published: