• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Benefits of fruits and vegetables peels : এই ফল ও সব্জিগুলির খোসা না ফেলে ব্যবহার করুন, উপকার পাবেন নানা দিকে

Benefits of fruits and vegetables peels : এই ফল ও সব্জিগুলির খোসা না ফেলে ব্যবহার করুন, উপকার পাবেন নানা দিকে

বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যায় ফলের খোসা

বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যায় ফলের খোসা

Benefits of fruits and vegetables peels : বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যায় সব্জি ও ফলের খোসা৷ আসুন, দেখে নিই আমাদের অতি পরিচিত বিভিন্ন সব্জি এবং ফলের খোসা (benefits of fruit peels) কোন কোন কাজে লাগে৷

  • Share this:

    ফলের উপকারিতার (benefits of fruits) কথা আমরা সকলেই জানি৷ ডায়েটে কমবেশি ফল আমাদের থাকেও৷ কিন্তু ফলের মতো পুষ্টিতে ভরপুর তাদের খোসাও৷ বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যায় সব্জি ও ফলের খোসা৷ আসুন, দেখে নিই আমাদের অতি পরিচিত বিভিন্ন  সব্জি এবং ফলের খোসা (Benefits of fruit and vegetables peels) কোন কোন কাজে লাগে৷

    # শীতকাল মানেই কমলালেবুর সময়৷ ভিটামিন সি-এর আকর বলা হয় সাইট্রাস গোষ্ঠীর এই ফলকে৷ সমানভাবে উপযোগী কমলালেবুর খোসাও৷ ব্রণ, ব্ল্যাকহেড, মৃত কোষ, ত্বকের বলিরেখা, চোখের নীচে কালোদাগ দূর করতে কমলালেবুর খোসা কার্যকর৷ শুকনো ত্বককে হাইড্রেটেড রাখতে এবং ত্বকে উজ্জ্বলতা যোগ করতে কমলালেবুর খোসা কার্যকর৷ কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে নিয়ে গুঁড়ো করে রাখুন৷ তার পর জলের সঙ্গে মিশিয়ে আপনি মাখুন স্ক্যাল্পে৷ রেহাই পাবেন খুসকির সমস্যা থেকে৷ হজমের সমস্যা কমাতেও উপকারী কমলালেবুর খোসা৷

    আরও পড়ুন : কুমড়োর বীজ ফেলে দেন? হারাচ্ছেন আপনার হৃদযন্ত্রের সুস্বাস্থ্য

    # গরমে তেষ্টা মেটাতে তরমুজের জুড়ি নেই৷ কিন্তু আমরা অনেকেই জনি না, ফল হিসেবে তরমুজের তুলনায় এর খোসা অনেক বেশি উপকারী৷ তরমুজের খোসায় আছে জিঙ্ক, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, ভিটামিন এ এবং ভিটামি সি৷ পরিপাক ক্রিয়া-সহ সার্বিক স্বাস্থ্য ভাল রাখতে এবং শরীর থেকে বিষাক্ত বর্জ্য বার করে দিতে তরমুজের খোসা কার্যকর৷

    # অনেক বাঙাল বাড়িতে তেলে কালো জিরে ফোড়ন দিয়ে ভাজা করা হয় ঝুরো ঝুরো করে কাটা আলুর খোসা ৷ কিন্তু আবার অন্যদিকে বহু পরিবারের কাছে এই খাবার ‘অন্ত্যজ’৷ তাই আলুর খোসা রান্না করে খাওয়ার কথা ভাবাই হয় না৷ কিন্তু আলুর খোসায় আছে আয়রন, ক্যালসিয়াম, একাধিক ভিটামিন, পটাশিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম ৷ মেটাবলিজম হার বৃদ্ধি করে৷ নিয়ন্ত্রণে রাখে ব্লাড শুগার৷ অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল হিসেবে ত্বকের জন্যও উপকারী আলুর খোসা৷

    আরও পড়ুন : প্রাকৃতিক ভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখে ডায়াবেটিস, কী ভাবে বানাতে হয় দারচিনি জল?

    # বেদানার খোসা ভরপুর ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টে৷ ডিটক্স করতে সাহায্য করে৷ প্রতিরোধ করে হৃদযন্ত্রের সমস্যাও৷ সর্দিকাশি ও গলার সংক্রমণ উপশমেও উপকারী বেদানার খোসা৷ বেদানার খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন জলে৷ এই মিশ্রণে গার্গল করুন৷ রোজ দুবার করে অন্তত গার্গল করুন৷ এই মিশ্রণ স্কিন ময়শ্চারাইজার এবং সানব্লক উপাদান হিসেবেও ভাল৷

    # পেঁয়াজের খোসায় আছে অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট৷ হাঁপানি, ক্রনিক সংক্রমণ এবং মধুমেহ রোগ নিয়ন্ত্রণ করে পেঁয়াজের খোসা৷ এ ছাড়ায় পেঁয়াজের খোসার ফাইবার হৃদরোগ, হজমের সমস্যা এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে৷

    আরও পড়ুন : সন্তানের বয়স ৬ মাস? আপনার জন্য রইল কিছু টিপস

    # আপেলের খোসার গুণ অশেষ৷ এতে আছে প্রোটিন, ভিটামিন ও প্রয়োজনীয় খনিজ৷ ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি উপকারী ত্বক, দৃষ্টিশক্তি এবং রোগ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে৷ আপেলের খোসায় থাকা আয়রন ও ক্যালসিয়াম ভাল রাখে আমাদের দাঁত ও হাড়৷ এছাড়াও আছে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট৷ তার ফলে একাধিক অসুখ থেকে সুরক্ষিত থাকে আমাদের শরীর৷

    # কার্বোহাইড্রেটস ছাড়াও কলার খোসায় আছে ভিটামিন বি-৬, বি-১২, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাশিয়াম৷ দাঁত সাদা ঝকঝকে রাখতে এবং অ্যাকনের দাগ তুলতে ব্যবহার করা হয় কলার খোসা৷ ত্বকের সংক্রমণ প্রশমনে খুবই কার্যকর কলার খোসা৷

    # কলার খোসায় আছে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, ইনসল্যুবল ফাইবার , ভিটামিন কে, পটাশিয়াম এবং ফাইবার ৷ ফলে হাড়ের গঠন, কোষের বৃদ্ধি এবং চোখের উজ্জ্বলতার ক্ষেত্রে এই উপাদানগুলি প্রয়োজনীয়৷

    # সবেদার খোসায় আছে ফাইবার, ফ্ল্যাভোনয়েড, অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট ও ভিটামিন সি৷ ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, ফুসফুস ও হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে ব্যবহার করা যায়৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: