• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Parenting: সন্তানের বয়স ৬ মাস? আপনার জন্য রইল কিছু টিপস

Parenting: সন্তানের বয়স ৬ মাস? আপনার জন্য রইল কিছু টিপস

বাচ্চার হাতে এই সময় মোবাইল ফোন একদমই তুলে দেবেন না

বাচ্চার হাতে এই সময় মোবাইল ফোন একদমই তুলে দেবেন না

Parenting: সদ্যোজাত (new born baby) অবস্থা থেকে বয়স ৬ মাসে পৌঁছতেই শিশুর অ্যাক্টিভিটি এক লাফে বেড়ে যায় অনেকটাই৷ শিশুর ধাপে ধাপে বড় হয়ে ওঠার পর্বে এই সময়টা একটা সন্ধিক্ষণ বলা যায়৷

  • Share this:

    সদ্যোজাত (new born baby) অবস্থা থেকে বয়স ৬ মাসে পৌঁছতেই শিশুর অ্যাক্টিভিটি এক লাফে বেড়ে যায় অনেকটাই৷ শিশুর ধাপে ধাপে বড় হয়ে ওঠার পর্বে এই সময়টা একটা সন্ধিক্ষণ বলা যায়৷ তাই সন্তানকে কী শেখাবেন, বা সে কী করবে, সেটা বাবা মায়েদের কাছে স্পষ্ট হওয়া দরকার৷

    বাচ্চার হাতে এই সময় মোবাইল ফোন একদমই তুলে দেবেন না ৷ বেশিরভাগ বাড়িতেই দেখা যায় বাচ্চাকে ব্যস্ত রাখার জন্য বা তার দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য মোবাইলের সাহায্য নেন৷ তার বদলে শিশুকে বই দিন৷ পশুপাখি, জীবজন্তুর বড় বড় ছবি-সহ রঙিন বই দিন শিশুসন্তানকে৷ হয়তো কিছুটা বই ছিঁড়ে ফেলবে, কিন্তু তাতেও নিরাশ হবেন না৷ মোবাইলের বদলে শিশুকে বই দিলে ভবিষ্যতে সুবিধে হবে ওরই৷

    আরও পড়ুন : পাবলিক টয়লেটের দরজায় উপরে ও নীচের অংশ থাকে না কেন?

    ৬ মাস বয়সে (6-month-old infant) পৌঁছে শিশুরা সাধারণত হাততালি দিতে শিখে যায়৷ সেটা করতে তাদের উৎসাহ দিন৷ বাচ্চাও এটা উপভোগ করবে৷ পরবর্তীতে এটা তাদের নতুন জিনিস শিখতেও উৎসাহ দেবে৷

    এই সময় থেকেই শিশু কথা বলতে শেখে৷ মুখ থেকে নানা রকম শব্দ বার করে৷ তাদের কথা বলার ধরন আলাদা৷ শুধুমাত্র নির্দিষ্ট কিছু শব্দ বেরিয়ে আসে মুখ থেকে ৷ এ সময়ে তাদের সঙ্গে বেশি করে কথা বলুন৷ শিশু হাসলে আপনিও তাকে হাসি ফিরিয়ে দিন৷

    আরও পড়ুন : প্রেমিক বা প্রেমিকা অনর্গল মিথ্যে বলেন? তাঁদের কোন আচরণ থেকে বুঝতে পারবেন?

    জামাকাপড়, খেলনা এবং তার নিজস্ব জিনিস নিয়ে শিশুকে সচেতন করে তুলুন৷ প্রতি জিনিসের নাম তাকে বলুন৷ চার ধারে যা যা দেখা যাচ্ছে, তাদের নামগুলো বলে দিন৷ চিনিয়ে দিন রংও৷ শিশুও এই সময় দ্রুত সব কিছু শিখে নিতে চায়৷

    শিশুর সঙ্গে সময় কাটানো পর্বে নানারকম খেলা নিজেই উদ্ভাবন করুন৷ হাত দিয়ে নিজের মুখ ঢাকুন আবার খুলে দিন৷ সাধারণ কথায়, ‘টুকি টুকি’ খেলুন৷ শিশুর খুবই ভাল লাগবে এই খেলা৷

    আরও পড়ুন : ঘুমোতে ভালবাসেন? জানেন কি অতিরিক্ত ঘুম স্ট্রোকের বড় কারণ!

    তবে মনে রাখবেন প্রতি শিশুই অন্য শিশুর থেকে আলাদা৷ তাই সকলের বৈশিষ্ট্য অন্যের সঙ্গে মিলবে না৷ প্রত্যেকের অগ্রগতিও একইরকম হবে না৷ শিশুর দৈহিক ও মানসিক বিকাশের পথে কোনও অসুবিধে হচ্ছে সন্দেহ হলে অবিলম্বে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: