Home /News /life-style /
Anti Ageing Home Remedies : কম বয়সেই বুড়িয়ে যাচ্ছে ত্বক? এই সব উপায় মানলে তারুণ্যে ফিরে পাবেন নিমেষে!

Anti Ageing Home Remedies : কম বয়সেই বুড়িয়ে যাচ্ছে ত্বক? এই সব উপায় মানলে তারুণ্যে ফিরে পাবেন নিমেষে!

এতে ত্বকও থাকবে স্বাস্থ্যোজ্বল ও জেল্লাদার

এতে ত্বকও থাকবে স্বাস্থ্যোজ্বল ও জেল্লাদার

Anti Ageing Home Remedies : বার্ধক্যের ছাপ যাতে না-পড়ে, কিংবা বলিরেখা দেরিতে আসে, তার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে।

  • Share this:

বয়স বাড়লে তার প্রভাব আমাদের দেহের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গের পাশাপাশি ত্বকের উপরেও পড়ে। আর বয়সের ছাপ ত্বকে প্রকট হয়ে ওঠে। শুধু তা-ই নয়, অনেক সময় কম বয়সেও ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ পড়ে যায়। তবে এর পিছনে কিছু কারণ রয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম হল জিনগত কারণ। এছাড়াও আর একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল- ত্বকের যত্নের রুটিনও। অর্থাৎ সহজ ভাবে বলতে গেলে লাইফস্টাইল, ত্বকের যত্নের রুটিন, হরমোনজনিত পরিবর্তনের জন্যই ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ পড়ে এবং বলিরেখা দেখা দিতে থাকে। মুখের ত্বকে এই বার্ধক্যের ছাপ যাতে না-পড়ে, কিংবা বলিরেখা দেরিতে আসে, তার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। এতে ত্বকও থাকবে স্বাস্থ্যোজ্বল ও জেল্লাদার।

ত্বকের যত্ন :

সূর্যরশ্মি, অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা, ভুলভাল স্কিনকেয়ার রুটিন, ডিহাইড্রেশন- এগুলোই ত্বকের ক্ষতির মূল কারণ। এই ধরনের বিষয়গুলোর দিকে নজর দিলেই মুখে বার্ধক্যের ছাপ দেরিতে আসবে। স্বাস্থ্যকর ডায়েট এবং এক্সারসাইজের পাশাপাশি ত্বকের যত্নের জন্য সঠিক সানস্ক্রিন, টপিক্যাল ক্রিম ইত্যাদি ব্যবহার করা বাঞ্ছনীয়। এতে ত্বক প্রাকৃতিক ভাবেই সুন্দর হয়ে উঠবে। ত্বকের যত্নের ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে হবে ভালো ময়েশ্চারাইজার অথবা নাইট ক্রিম। রাতে শোওয়ার আগে এই ময়েশ্চারাইজার বা ক্রিম লাগিয়ে নিলে দারুণ উপকার পাওয়া যাবে। দিনে অন্তত দু’বার ভালো এসপিএফ যুক্ত একটা সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া ত্বক যাতে আরও জেল্লাদার ও সুন্দর হয়ে ওঠে তার জন্য বিভিন্ন ধরনের নিউট্রিশনাল সাপ্লিমেন্টও ব্যবহার করা যায়। এই সবের পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার অভ্যেসও গড়ে তুলতে হবে। আর প্রতিদিন নিয়ম করে আধঘণ্টা থেকে ৪৫ মিনিট এক্সারসাইজ করতে হবে। এক্সারসাইজ করা সম্ভব না-হলে প্রতিদিন ৪৫ মিনিট দ্রুত হাঁটার অভ্যেস করতে হবে।

রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি (স্কিন টাইটনিং):

এই পদ্ধতির মাধ্যমে ত্বকের গভীর স্তরকে উত্তপ্ত করা হয়। এর পাশাপাশি ত্বকের উপরিভাগের অংশকে ঠান্ডা করা হয়, যাতে ত্বক অটুট থাকে। ত্বকের গভীরে তাপ দিয়ে ত্বককে নতুন জীবন দেওয়া হয়। যার ফলে উপস্থিত থাকা কোলাজেন আঁটোসাটো হয় এবং নতুন কোলাজেন তৈরি হয়। সময়ের সঙ্গে ঝুলে যাওয়া অথবা কুঁচকে যাওয়া ত্বকের সমস্যা দূর হয়। আর সেই সঙ্গে ত্বক আরও মোলায়েম, সুন্দর হয়ে ওঠে।

আরও পড়ুন : গরমে প্রাণ ভরে লস্যি পান করেন? দেখুন কী ভয়ঙ্কর বিপদের বীজ লুকিয়ে এই সুস্বাদু পানীয়ে

আরও পড়ুন : ৫০ পেরিয়েও ৩০-এর যুবকের মতো তারুণ্য আর ফিটনেস? পুরুষদের পাতে রাখতেই হবে এই সব খাবার!

ডার্মাল ফিলারস:

মুখের বিভিন্ন অংশের আকার-আকৃতি সুন্দর করা হয় এই পদ্ধতির মাধ্যমে। শুধু তা-ই নয়, এতে ত্বকের ঘনত্ব ফিরে আসে এবং ত্বক হাইড্রেটেডও হয়। আসলে এজিং বা ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ এক দিনে পড়ে না। তাই সঠিক যত্ন এবং ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে এই সমস্যা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। এমনকী ত্বকে বার্ধ্যক্যের ছাপ যাতে দেরিতে পড়ে, সেই ব্যবস্থা করা যায়। আর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল- ত্বকের যত্নের জন্য যা যা প্রয়োজন, সেই সব করার ক্ষেত্রে সামঞ্জস্য রাখতে হবে। রোজ নিয়ম মেনে যত্নের ফল এক দিনেই মিলবে না। ধীরে ধীরে দেখা যাবে পরিবর্তনগুলো। আর নিয়মিত যত্ন করার ফলে ত্বক হয়ে উঠবে তারুণ্যে তরতাজা।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published:

Tags: Anti ageing, Skin Care

পরবর্তী খবর