Home /News /kolkata /
Suvendu Adhikari: তৃণমূলের প্রার্থী বাংলাদেশের নাগরিক, হাইকোর্টের নির্দেশকে অস্ত্র করলেন শুভেন্দু

Suvendu Adhikari: তৃণমূলের প্রার্থী বাংলাদেশের নাগরিক, হাইকোর্টের নির্দেশকে অস্ত্র করলেন শুভেন্দু

আদালতের রায়কে অস্ত্র করলেন শুভেন্দু৷

আদালতের রায়কে অস্ত্র করলেন শুভেন্দু৷

নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকেও জানানো হয়, বাংলাদেশের ভোটার তালিকায় আলো রানির নাম রয়েছে৷

  • Share this:

    #কলকাতা: তিনি বাংলাদেশেরও নাগরিক৷ এই অভিযোগে ২০২১ সালের নির্বাচনে বনগাঁ দক্ষিণ কেন্দ্রের ফলকে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা তৃণমূল প্রার্থী আলো রানি সরকারের মামলা খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট৷

    অভিযোগ, ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশের ভোটার তালিকাতেও আলো রানির নাম ছিল বলে অভিযোগ৷ আদালতের এই নির্দেশকে তুলে ধরেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে বিঁধেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী৷

    ঘটনাচক্রে এই আলো রানি সরকারকেই ২০১৬ সালে বীজপুর কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করেছিল বিজেপি৷ সেই সময় তৃণমূল প্রার্থী শুভ্রাংশু রায়ের কাছে পরাজিত হন তিনি৷ পরবর্তী সময়ে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেন আলো রানি৷

    আরও পড়ুন: একশো দিনের কর্মীদের জন্য বিরাট সুখবর, বড় সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার

    ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বনগাঁ দক্ষিণ কেন্দ্র থেকে বিজেপি-র স্বপন মজুমদারের কাছে পরাজিত হন আলো রানি৷ এই ফলকে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা হাইকোর্টে ইলেকশন পিটিশন দায়ের করেন তিনি৷

    সেই মামলার শুনানিতেই বনগাঁ দক্ষিণের বিধায়কের তরফে আদালতকে জানানো হয়, আলো রানি সরকারের বাংলাদেশি নাগরিকত্ব রয়েছে৷ দাবির সমর্থনে বেশ কিছু নথিও আদালতে জমা দেন বিজেপি বিধায়ক৷ ওই সমস্ত নথি খতিয়ে দেখে আলো রানির বাংলাদেশী নাগরিকত্ব নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে রিপোর্ট জমা দেওয়া নির্দশ দেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি বিবেক চৌধুরী৷

    নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকেও জানানো হয়, বাংলাদেশের ভোটার তালিকায় আলো রানির নাম রয়েছে৷ ভারতে যেহেতু দ্বৈত নাগরিকত্ব নেওয়ার নিয়ম নেই, তাই আলো রানি ভারতের নাগরিকই নন বলে জানিয়ে দেয় হাইকোর্ট৷ নির্বাচনের ফলকে চ্যালেঞ্জ করে দােয়র করা তাঁর মামলাো বাতিল করে দেয় হাইকোর্ট৷ আলো রানির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতেও নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট৷

    আরও পড়ুন: 'মরি নাই, আপনাদের সঙ্গেই থাকব', বীরভূমে পা দিয়েই আশ্বাস অনুব্রতর

    আদালতের এই নির্দেশকেই অস্ত্র করে রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন বিরোধী দলনেতা৷ তিনি বলেন, 'নিজেদের ভোট ব্যাঙ্ক বাড়াতে তৃণমূল কংগ্রেস বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীদের এ দেশে থাকার বন্দোবস্ত করে দিত৷ কিন্তু ভারতের নাগরিকই নন, এমন একজনকে নির্বাচনে প্রার্থী করা বেনজির ঘটনা৷' আলো রানির মামলায় আদালতের নির্দেশের কপি ট্যুইটও করেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা৷ তাঁর আশা, আলো রানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে নির্বাচন কমিশন৷

    আদালতে শুনানি চলাকালীন স্বপন মজুমদারের আইনজীবীরা দাবি করেন, আলো রানির স্বামী হরেন্দ্র নাথ সরকার বাংলাদেশের বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজের একজন অধ্যাপক৷ পাল্টা আলো রানি সরকারের আইনজীবীরা আদালতকে জানান, ১৯৬৯ সালে পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলাতেই তাঁর জন্ম৷ ১৯৮০ সালে বিয়ের পর তিনি বাংলাদেশের নাগরিক হন৷ কিন্তু স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর আলো রানি ভারতে ফিরে আসেন বলেই আদালতকে জানান তাঁর আইনজীবীরা৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: BJP, Suvendu Adhikari

    পরবর্তী খবর