Home /News /kolkata /
Fraud Case: তিন হাজার টাকার লোন মেটাতে দিলেন ১১ লক্ষ টাকা! শিক্ষিতা হয়েও কোন ফাঁদে মহিলা! 

Fraud Case: তিন হাজার টাকার লোন মেটাতে দিলেন ১১ লক্ষ টাকা! শিক্ষিতা হয়েও কোন ফাঁদে মহিলা! 

Fraud Loan Case: মাত্র তিন হাজার টাকা লোন নিয়েছিলেন তিনি। শিক্ষিতা হয়েও কীভাবে ঠকলেন শুনুন।

  • Share this:

#কলকাতা: চটজলদি লোন নিতে গিয়ে বিপত্তি নামী এক টেকনোলজি কোম্পানির অফিসারের!

সোশাল মিডিয়ায় কল্যাণে টাকা চাইলেই মিলছে দেদার! হ্যাঁ, এই কথা শুনে অনেকে অবাক হলেও সত্যি। কম সময়ে লোন নিচ্ছেন অনেকেই, তাতেই ডেকে আনছেন বিপদ। যেমন এই শহরেরই এক বাসিন্দা নয়না সিং, পেশায় টেকনোলজি কোম্পানির পদস্থ অফিসারও পড়েছেন প্রতারণার ফাঁদে।

বছরের শুরুতেই একটি বিশেষ কারণে হঠাৎ দরকার হয় মাত্র তিন হাজার টাকা। ফেসবুকে বিজ্ঞাপনে দেখেন, দশ মিনিটে লোনের চমৎকার অফার। মাত্র তিন হাজার টাকা খুবই কম সময়ে দিতে পারেননি কোন বন্ধু। তার মধ্যেই ফেসবুকে দেওয়া লোভনীয় অফারে তিন হাজার টাকা লোন নেন নয়না সিং।

আরও পড়ুন- এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে ফের এফআইআর সিবিআই-এর, রয়েছে জামিন অযোগ্য ধারা

তিন হাজার টাকা লোনের জন্য KYC ফিলাপ করায় ব্যাক্তিগত বিভিন্ন তথ্য দেওয়ার পরই তাঁর কাছে আসে মাত্র তেরোশো টাকা। জানানো হয় সার্ভিস চার্জর জন্য মিলছে না ১৭০০ টাকা। সাত দিনের সময় সীমার কথা বলা হলেও দুদিনের মধ্যে আসে বিভিন্ন ফোন ও  মেসেজ। সেগুলি কার্যত ব্ল্যাকমেইল করার সমান।

হুমকি থেকে কটুক্তি সবই বলা হয় ফোনের মাধ্যমে। বহু মেসেজের মাধ্যমে টাকা পেমেন্ট করার কথা হলেও বেশিরভাগ মেসেজই অশ্লীল ভাষা ও ছবি দেওয়া। শুধুই যে হুমকি তা নয়, অন্য অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করে টাকা মেটালেও সমস্যার সমাধান করা যাবে বলা হয়।

ফোনের অপর প্রান্তে অচেনা ব্যক্তির কথা মতো টাকা মেটানোর পদ্ধতি ব্যবহার করার পরে বিপদ বাড়ে আরও। চার মাসে তিন হাজার টাকা মেটাতে ১১ লক্ষ টাকা উধাও হয় নয়নার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে। প্রায় চার মাসে এগারো লক্ষ টাকা চলে যাওয়ার পর তাঁর অনুমান, টাকার অঙ্ক হতে পারে প্রায় ১৬ লক্ষ।

আরও পড়ুন- তৃণমূলের প্রার্থী বাংলাদেশের নাগরিক, হাইকোর্টের নির্দেশকে অস্ত্র করলেন শুভেন্দু

ফোনে আসা নম্বর জামতারার মতো জায়গা থেকে, তা মোবাইলে ট্রু কলারে দেখা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও সাইবার বিশেষজ্ঞ অভিষেক মিত্র মনে করছেন রেজিষ্ট্রেশন করা লিঙ্ক ছাড়া কোনও লিঙ্কে প্রবেশ করা মনে বিপদকে ডেকে আনার সমান।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Fraud, Fraud Case, Loan

পরবর্তী খবর