Home /News /hooghly /
Hooghly: শ্রীরামপুরের মানুষের কষ্টের অবসান, সুরাহা মিলবে জমা জল থেকে

Hooghly: শ্রীরামপুরের মানুষের কষ্টের অবসান, সুরাহা মিলবে জমা জল থেকে

বৃষ্টির জল নিকাশি নিয়ে দীর্ঘ দিনের অভিযোগ ছিল শ্রীরামপুর বাসির। শ্রীরামপুরের বেশ কিছু জায়গায় বর্ষাকালে এতটাই জল জমে যেত যার ফলে বিঘ্নিত হতো সাধারণ জনজীবন।

  • Share this:

    হুগলি: বৃষ্টির জল নিকাশি নিয়ে দীর্ঘ দিনের অভিযোগ ছিল শ্রীরামপুর বাসির। শ্রীরামপুরের বেশ কিছু জায়গায় বর্ষাকালে এতটাই জল জমে যেত যার ফলে বিঘ্নিত হতো সাধারণ জনজীবন। অবশেষে সুরাহার আশ্বাস সাধারণ মানুষের কাছে। শ্রীরামপুরে চালু হচ্ছে বৃষ্টির জল নিকাশি একটি পাম্পিং স্টেশন। মঙ্গলবার স্টেশনের উদ্বোধন এ আসেন রাজ্যের নগর উন্নয়ন মন্ত্রী ফিরাদ হাকিম। অল্প বৃষ্টিতেই শ্রীরামপুরের বিভিন্ন জায়গায় জল জমে যায় এমনই অভিযোগ রয়েছে সেখানকার সাধারণ মানুষের। শ্রীরামপুর ২৬, ২৭ ,১৬ নম্বর ওয়ার্ড সব থেকে বেশি বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। শ্রীরামপুর কাটাপোল এলাকা বর্ষাকালে কার্যত পুকুর হয়ে যায়। রেললাইনের কালভার্ট চলে যায় জলের তলায়। ফলে স্কুলপড়ুয়া থেকে সাধারণ বাসিন্দাদের বাধ্য হয়ে রেললাইনের উপর দিয়ে যাতায়াত করতে হয় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে।

    পাম্পিং স্টেশন উদ্বোধনের পর কিছুটা সুরাহা এর আশায় বুক বাঁধছেন সেখানকার মানুষরা। এদিন অনুষ্ঠানে ফিরহাদ হাকিম জানান, স্ট্রমজ ওয়াটার ড্রেনেজ সিস্টেম প্রকল্পটি তৈরি করা হয়েছে দশ কোটি টাকা খরচে।এটির উদ্দেশ্য বৃষ্টির জমা জল যাতে তাড়াতাড়ি নিকাশি ব্যবস্থার মধ্যে নিয়ে আসা যায়।

    আরও পড়ুনঃ পাহাড় সমান ঋণের বোঝা এভারেস্ট জয়ী বঙ্গ কন্যার কাঁধে

    তিনি আশাবাদী পাম্পিং স্টেশন লাগানোর পর শ্রীরামপুরের সাধারণ মানুষের বর্ষাকালে জল জমা দুর্ভোগের সম্মুখীন হতে হয় তা থেকে রেহাই মিলবে।ড্রেনেজ স্টেশনের একজন আধিকারিক জানান, পাম্পিং স্টেশন টি যখনই অধিক বৃষ্টির ফলে জল জমা শুরু হবে তখনই একে চালু করে দেওয়া হবে।

    আরও পড়ুনঃ মিলন মাঝির সঙ্গে সাক্ষাৎ ফুটবলার পলি কোলের! কী নিয়ে হল কথা?

    যার ফলে রাস্তায় জমে থাকা বৃষ্টির জল পাম্পের মাধ্যমে টেনে এনে তাকে সরাসরি গঙ্গায় ফেলা হবে। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দীর্ঘদিনের সমস্যার অবসান ঘটবে বলে জানান তিনি।

    Rahi Halder
    First published:

    Tags: Hooghly, Sreerampore

    পরবর্তী খবর