Home /News /business /
Online Fraud: অনলাইন প্রতারণা থেকে বাঁচবেন কীভাবে, এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন!

Online Fraud: অনলাইন প্রতারণা থেকে বাঁচবেন কীভাবে, এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন!

Online Fraud: সাধারণ মানুষ তো বটেই, সেলিব্রেটিরাও এমন প্রতারণার হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অনলাইনের দুনিয়ায় প্রতারণার ফাঁদ পাতা। চারপাশের ঘটনা দেখে এমনই বলছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা। ডিজিটাল দুনিয়ায় সাইবার ঠগরা প্রস্তুত হয়ে বসে আছে। মুহূর্তের অসতর্কতায় ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে অ্যাকাউন্ট। রক্ত জল করা পয়সা উধাও হয়ে যাচ্ছে নিমেষে। শুধু ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট লোপাট নয়, এটিএম বা ক্রেডিট কার্ডে প্রতারণার ঘটনাও সামনে আসছে। সাধারণ মানুষ তো বটেই, সেলিব্রেটিরাও এমন প্রতারণার হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না।

এই সব জালিয়াতির শুরুটা হয় লটারি দিয়ে। মেলে বা ফোনে মেসেজ আসে, ‘আপনি একটা বিএমডব্লিউ গাড়ি জিতেছেন’ কিংবা ‘আপনার কয়েক লক্ষ টাকার লটারি লেগেছে’। একটি লিঙ্ক পাঠিয়ে বলা হয়, ‘এতে ক্লিক করে ইউপিআই পিন দিন, তাহলেই আপনার ঘরে গাড়ি বা টাকা পৌঁছে যাবে’। এটাই ফাঁদ। ক্লিক করে ইউপিআই পিন দিলেই মুহূর্তে হাপিস হয়ে যাবে অ্যাকাউন্টের টাকা। অনেকে ব্যাপারটা বোঝেন। কিন্তু এখনও এমন অনেকেই আছেন, যারা লোভে পড়ে এই ফাঁদে পা দেন। আর অ্যাকাউন্টের সমস্ত টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারকরা।

আরও পড়ুন: সোনা-রুপোর দামে আজ বিপুল পতন, কেনার আগে দেখে নিন আজকের লেটেস্ট রেট....

এই ধরনের সাইবার অপরাধের ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে। এই নিয়ে জনগণকে সচেতন করতে মাঝে মাধ্যেই সতর্কতা জারি করে এনপিসিআই। তারা বারবার স্পষ্ট করে জানিয়েছে, টাকা পাওয়ার জন্য ইউপিআই পিন দিতে হয় না। একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে আরেকটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে কিংবা ইউপিআই পিন ব্যবহৃত হয়। তাই সবসময় মনে রাখতে হবে, ইউপিআই পিন ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেওয়া হয়, অ্যাকাউন্টে থাকা টাকা নয়।

আরও পড়ুন: এবার বাড়িতে বসে e-KYC করতে পারবেন না কৃষকরা, দেখে নিন তাহলে কী করতে হবে.....

অনলাইন লেনদেনের জন্য ইউপিআই পরিষেবা ব্যবহার করতে হবে। ইউপিআই-এর জন্য একটি ভার্চুয়াল পেমেন্ট ঠিকানা তৈরি করা হয়। এটা গ্রাহকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে লিঙ্ক করা থাকে। ভার্চুয়াল পেমেন্ট ঠিকানাই আর্থিক ঠিকানা হয়ে যায়। এর পরে আর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর, ব্যাঙ্কের নাম বা আইএসএসসি কোড ইত্যাদি মনে রাখার দরকার নেই। ইউপিআই ব্যবহারের জন্য মোবাইল নম্বরকে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে লিঙ্ক করানো আবশ্যক। অর্থাৎ একথা বলাই যায়, ইউপিআই পিনই মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেন করা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের চাবিকাঠি। তাই যখন কেউ এই চাবিটা পেয়ে যায়, তখন সে অনায়াসে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা হাতিয়ে নিতে পারে।

আরও পড়ুন: বাড়ছে গরম, তার মধ্যে কয়লা সঙ্কটের জেরে হতে পারে বিদ্যুৎ পরিষেবায় সমস্যা!

ইউনিফাইড পেমেন্ট ইন্টারফেস বা ইউপিআই ভারতের ন্যাশনাল পেমেন্টস দ্বারা প্রস্তুত করা হয়েছে। এর সাহায্যে মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে অন্য কারও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো যায়। এক্ষেত্রে গ্রাহক যে কোনও সময় যে কোনও জায়গা থেকে টাকা ট্রান্সফার করতে পারেন। তাই প্রতারণা এড়াতে বিশ্বস্ত অ্যাপের মাধ্যমে ইউপিআই পেমেন্টের পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। এক্ষেত্রে, ‘ভিম’ অ্যাপ হল সবচেয়ে বিশ্বস্ত ডিজিটাল পেমেন্ট অ্যাপ। কারও কথায় কোনও অজানা লিঙ্কে ক্লিক করা বা ইউপিআই পিন পাঠাতে বারণ করছেন বিশেষজ্ঞরা। শুধু তাই নয়, নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে ইউপিআই পিন পরিবর্তনের পরামর্শ দিচ্ছেন তাঁরা।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Cyber Crime, Online Fraud

পরবর্তী খবর