Home /News /birbhum /
Birbhum News :নতুন ফাঁদ, অ্যাপ ডাউনলোড করেই অ্যাকাউন্ট থেকে হাওয়া ১১ লক্ষ টাকা!

Birbhum News :নতুন ফাঁদ, অ্যাপ ডাউনলোড করেই অ্যাকাউন্ট থেকে হাওয়া ১১ লক্ষ টাকা!

১১ লক্ষ টাকা উধাও

১১ লক্ষ টাকা উধাও

পেশায় ট্যাক্সি চালক তপন গড়াই এবং তার বাবা নারায়ণ গড়াই জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট হিসাবে থাকা অ্যাকাউন্ট থেকে ৭ লক্ষ ১৭ হাজার টাকা দফায় দফায় উধাও হয়ে যায়। এছাড়াও খোয়া গিয়েছে ৩ লক্ষ ৭২ হাজার টাকা

  • Share this:

    #বীরভূম: দিন দিন ডিজিটাল লেনদেন বেড়ে চলার পাশাপাশি বাড়ছে নানা ধরনের প্রতারণার ঘটনা। এই সকল প্রতারণার ক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ফাঁদ নজরে আসছে। ঠিক সেই রকমই এবার নতুন ফাঁদ পেতে বীরভূমের এক ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট থেকে আনুমানিক ১১ লক্ষ টাকা উধাও করে নেওয়া হল।

    আরও পড়ুন Howrah News: হাওড়া খড়গপুর শাখায় যাত্রীবোঝাই লোকাল ট্রেনের খুলে গেল বগি! ব্যাহত ট্রেন চলাচল

    বড় ধরনের এই প্রতারণার ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের দুবরাজপুর এলাকায়। বীরভূমের দুবরাজপুর পৌরসভার অন্তর্গত ছয় নম্বর ওয়ার্ডের এসএন রোডের বাসিন্দা তপন গড়াই। তিনি গত জুন মাসের ২৮ তারিখ সরকারি একটি জীবন বীমা সংস্থায় বেসরকারি একটি ব্যাংকের এক লক্ষ টাকার চেক প্রদান করেন। চেকের তারিখ অনুযায়ী জুলাই মাসের ২ তারিখ তা ক্যাশ হয়ে যায়। এ পর্যন্ত সবকিছু ঠিকঠাক ছিল, কিন্তু এরপরেই ঘটতে শুরু করে অঘটন।

    দু'তারিখ চেকের টাকা ক্যাশ হয়ে যাওয়ার পর তপন গড়াইয়ের মোবাইল নম্বরে এক ব্যক্তি ফোন করেন ব্যাংকের কর্মী পরিচয় দিয়ে। তারপর তাকে সেই চেক সম্পর্কে জানানো হয়। তপন বাবুকে বিভিন্ন কথা বলে তার বিশ্বাস অর্জন করেন এবং 'Auto forward a sms to pc' নামে একটি অ্যাপ ইন্সটল করার কথা বলা হয়। সেই অ্যাপটি ইন্সটল করার পর তা তপন বাবুর ফোনে মাত্র পাঁচ মিনিট ছিল বলে দাবি করেছেন তিনি।

    আরও পড়ুন Murshidabad News: কামড় দিয়ে দাদার কান ছিঁড়ে দিল ভাই, কেন?

    কিন্তু এরই মধ্যে দেখা যায় তার অ্যাকাউন্ট থেকে ৩ লক্ষ ৭২ হাজার টাকা এবং তার বাবা নারায়ণ গড়াইয়ের সঙ্গে জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট হিসাবে থাকা অ্যাকাউন্ট থেকে ৭ লক্ষ ১৭ হাজার টাকা দফায় দফায় উধাও হয়ে যায়। এছাড়াও তার স্ত্রীর অ্যাকাউন্ট থেকে ৩০০০ টাকা উধাও করে নেন প্রতারকরা। এরপরেও অনবরত ওই ব্যক্তির থেকে তপন বাবুর মোবাইল নম্বরে ফোন এবং OTP আসতে থাকে।

    আরও পড়ুন West Midnapore: কাজ চলাকালীন হঠাৎই ভেঙ্গে পড়ল বিদ্যাসাগরের তৈরি ১৫০ বছরের মাটির বাড়ি

    এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পেশায় ট্যাক্সি চালক তপন গড়াই এবং তার বাবা নারায়ণ গড়াই দুবরাজপুর থানা ও বীরভূম জেলা পুলিশের সাইবার সেল শাখায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি পুলিশ এবং সাইবার পুলিশের কাছে আবেদন জানিয়েছেন যাতে এই টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করে। Madhab Das

    First published:

    Tags: Bankura, Fraud, South bengal news

    পরবর্তী খবর