বিমানবন্দরেই গেট-টুগেদার মোহনবাগানের, ডার্বি জয়ের পরে এখন সবুজ-মেরুণের চিন্তা 'ক্লান্তি'

বিমানবন্দরেই গেট-টুগেদার মোহনবাগানের, ডার্বি জয়ের পরে এখন সবুজ-মেরুণের চিন্তা 'ক্লান্তি'

নেরোকা ম্যাচ খেলতে ইম্ফলে বাগান। বিমানবন্দরে সৌজন্য সাক্ষাৎ। ভিকুনার ভাবনায় ফুটবলারদের ক্লান্তি।

  • Share this:

#ইম্ফল: পথে হল দেখা। একজনের গন্তব্য মুম্বই। অন্যদের ইম্ফল। দল মণিপুর খেলতে যাচ্ছে শুনেই বোর্ডিং গেট থেকে ফিরে গেলেন সঞ্জীব গোয়েঙ্কা। শুভেচ্ছা জানালেন ব্রিটো, শেখ সাহিল, সুহেরদের। টিম ম্যানেজার সিদ্ধার্থ রায়, সঞ্জয় ঘোষ, ইমরানদের পাশে নিয়ে ছবিও তুললেন। বিমানবন্দরেই হয়ে গেল ছোটখাটো একটা গেট টুগেদার। ক্লাবের নতুন বিনিয়োগকারীর শুভেচ্ছা সঙ্গী করেই মণিপুর উড়ে গেল টিম মোহনবাগান।ইম্ফলের খুমান স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার বাগানের প্রতিপক্ষ নেরোকা এফসি। দল হিসেবে নেহাতই সাদামাটা।

সাত ম্যাচে আট পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের ছয় নম্বরে আটকে মধ্যমেধার নেরোকা। ডার্বির পরের ম্যাচ বরাবরই কঠিন। ইতিহাস বলছে, অতিরিক্ত আত্মতুষ্টিতে পচা শামুকে পা কাটার নজিরও কম নয়। মধ্যমেধার নেরোকার বিরুদ্ধে তাই বাড়তি সতর্ক বাগান কোচ কিবু ভিকুনা।প্রতিপক্ষ নয়, বাগানের ভাবনায় বরং বেইতিয়া, গনজালেজদের ক্লান্তি।

MB

১৮ দিনে পাঁচটা ম্যাচ খেলতে হয়েছে সবুজ-মেরুনকে। নেরোকার বিরুদ্ধে ডার্বির প্রথম এগারো অপরিবর্তিত রাখছেন কোচ ভিকুনা। ৮ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট মোহনবাগানের। ৯ ম্যাচ খেলে মিনার্ভার সংগ্রহ ১৪। পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয় দলের সঙ্গে এই পার্থক্যটাই ধরে রাখতে মরিয়া বাগান কোচ। বলছেন,‘‘ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে জয় অতীত। ডার্বির জয় নিয়ে পড়ে নেই। সামনে নেরোকা। ওদের নিয়েই ভাবছি। চ্যাম্পিয়নশিপের লক্ষ্যে পৌঁছতে পুরো পয়েন্ট তুলতে হবে পাহাড় থেকে।’’টিম ম্যানেজার সিদ্ধার্থ রায় বলছিলেন,‘‘ইম্ফলের আবহাওয়া দারুণ। ছন্দে রয়েছে গোটা দলটাই। জিতে ফিরতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়।’’বুধবার মূল স্টেডিয়ামেই অনুশীলন করলেন বেইতিয়া, পাপা বাবাকর, গনজালেজরা। নেরোকা দলে বড় নাম না থাকলেও রোনাল্ড সিং, সুশীল মিতাইদের মতো স্থানীয় ফুটবলারে ভরা দলটার ফিটনেসকে সমীহ করছে বাগানের থিঙ্কট্যাঙ্ক। বৃহস্পতিবার ম্যাচ শুরু দুপুর ২টায়।

 PARADIP GHOSH

First published: January 22, 2020, 6:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर