• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • THOUGH THERE IS MENTION OF CHARABISHNUPUR VILLAGE IN GOVERMENT DOCUMENTS BUT THERE IS NO EXISTENCE OF THE SAID VILLAGE IN REALITY

সরকারি নথিতে রয়েছে গ্রামের নাম, কিন্তু বাস্তবে নেই অস্তিত্ব! রহস্যটা কী? পড়ুন

representative image

সরকারি নথিতে রয়েছে গ্রামের নাম, কিন্তু বাস্তবে নেই অস্তিত্ব! রহস্যটা কী? পড়ুন

  • Share this:

    #কাটোয়া: খাতায় কলমে কাটোয়ার অগ্রদ্বীপ পঞ্চায়েতের চরবিষ্ণুপুর গ্রামের উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু বাস্তবে নেই গ্রামের অস্তিত্ব। কারণ, চরবিষ্ণুপুর গ্রামকে গিলে খেয়েছে ভয়ঙ্কর ভাগীরথী। ভিটেমাটি খুইয়ে আজ কেবল স্মৃতিই সম্বল গ্রামের বাসিন্দাদের। পাশের গ্রামে তাঁদের পুনর্বাসনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।

    একসময় নদিয়ার নাকাশিপাড়া থানা এলাকার আকন্দবেরিয়া গ্রাম ঘেঁষে বয়ে যেত ভাগীরথী নদী। ধীরে ধীরে সেই গতিপথ পরিবর্তন হয়েছে। গত ১৫ বছরে ভাগীরথী গ্রাস করেছে পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়ার অগ্রদ্বীপ পঞ্চায়েতের চরবিষ্ণুপুর গ্রামকে। মানচিত্রে রয়েছে। ভোটার কার্ড, পোস্ট অফিসের খাতায়ও রয়েছে উল্লেখ । কিন্তু বাস্তবে? গ্রামের কোনও অস্তিত্বই নেই!

    কাটোয়ার অগ্রদ্বীপ পঞ্চায়েতের চরবিষ্ণুপুর গ্রামে একসময়ে ছিল পাকা বাড়ি থেকে স্কুল, খেলার মাঠ! ৩৬৭টি পরিবারের প্রায় ১৬০০ লোক বাস করতেন। কিন্তু, চোখের সামনে নদীগর্ভে সবকিছু তলিয়ে যেতে দেখেছেন সাধন, গুরুদাস, হারাধনরা। সব খুইয়ে আতঙ্কই এখন তাঁদের সম্বল।

    এখন চরবিষ্ণুপুর গ্রামে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে ১৪৪টি পরিবার। পাশের কালিকাপুর মৌজায় তাঁদের পুনর্বাসন দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরিবার পিছু দেওয়া হবে ২ কাঠা জমি।

    আরও পড়ুন-এই গ্রামের মহিলাদের উপর ভর করছে ভূত !

    First published: