দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

বচসার জেরে ছ'বছরের ছাত্রকে মারধর, শিক্ষিকার বিরুদ্ধে গোপনাঙ্গেও আঘাত করার অভিযোগ

বচসার জেরে ছ'বছরের ছাত্রকে মারধর, শিক্ষিকার বিরুদ্ধে গোপনাঙ্গেও আঘাত করার অভিযোগ
Representational Image

ছাত্রের বয়স ছয়। ছোট থেকে অসুস্থ। অসুস্থতা জানিয়েই হাওড়ার নামী ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে ভর্তি করেছিল পরিবার। বিশেষ দেখভালের প্রতিশ্রুতিও দেয় স্কুল। সেই ছাত্রকেই ছুঁচোল কোনও জিনিস দিয়ে আঘাত ও স্কেল দিয়ে গোপনাঙ্গে মারধরের মত অভিযোগ উঠল স্কুলশিক্ষিকারই বিরুদ্ধে।

  • Share this:

#হাওড়া: সহপাঠীর সঙ্গে বচসা। অভিযোগ জানাতে গেলে অসুস্থ ছাত্রকে মারধর ও ছুঁচোল জিনিস দিয়ে আঘাত। কাঠগড়ায় হাওড়ার নামী ইংরেজি মাধ্যম স্কুল। পরিবারের অভিযোগ, স্কেল দিয়ে ছাত্রের গোপনাঙ্গেও আঘাত করেন স্কুল শিক্ষিকা সংগীতা ঘোষ। বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়ে ছাত্র। শিবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

আরও পড়ুন: রাজ্যে এবার নয়া প্রকল্প ‘আলোশ্রী’, ট্যুইটে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

ছাত্রের বয়স ছয়। ছোট থেকে অসুস্থ। অসুস্থতা জানিয়েই হাওড়ার নামী ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে ভর্তি করেছিল পরিবার। বিশেষ দেখভালের প্রতিশ্রুতিও দেয় স্কুল। সেই ছাত্রকেই ছুঁচোল কোনও জিনিস দিয়ে আঘাত ও স্কেল দিয়ে গোপনাঙ্গে মারধরের মত অভিযোগ উঠল স্কুলশিক্ষিকারই বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন: ‘ইংলিশ ভিংলিশ’-এর অভিনেত্রী সুজাতা কুমার প্রয়াত

পরিবারের দাবি, শুক্রবার সহপাঠীর সঙ্গে স্কুলে বচসা হয় সাঁতরাগাছির বাসিন্দা ওই ছাত্রের। শিক্ষিকা সংগীতা ঘোষকে অভিযোগ জানাতে গেলে তিনি মারধর শুরু করেন। ছাত্রটি বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়ে। - আতসবাজির আগুন ছিটকে চোখে লেগেছিল শিশুর - তখন একটি চোখের কর্নিয়া ফেটে যায় - ওই চোখে ৩ বার অস্ত্রোপচার হয় - মাথার একটি নার্ভে সমস্যা হওয়ায় স্মৃতিশক্তিও দুর্বল পরিবারের আরও অভিযোগ, প্রতিশ্রুতি দিলেও অসুস্থ ছাত্রকে বিশেষ দেখভাল করেনি স্কুল। উলটে জুটেছে দুর্ব্যবহার। মারধর করা হয়েছে আগেও।

আরও পড়ুন: বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে নিজের ৭ বছরের ছেলেকে খুন করল মা

স্থানীয় কাউন্সিলর, হাওড়া পুরসভার মেয়র পারিষদেরও অভিযোগ, ওই স্কুলের বিরুদ্ধে হামেশাই অভিযোগ আসে।

স্কুলের বিরুদ্ধে শিবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। অভিযোগ অস্বীকার করে স্কুল কর্তৃপক্ষ পালটা দুষছে ছাত্রকেই।

স্কুলে ছাত্রকে পাঠাতে ভয় পাচ্ছে পরিবার। অভিযুক্ত শিক্ষিকার শাস্তির দাবি করছেন তাঁরা।

First published: August 20, 2018, 7:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर