১০০ বেডের প্রি-কোভিড হাসপাতাল হল কালনায়

কালনা মহকুমা হাসপাতালকে প্রি-কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করা হল। শুক্রবার ১০০ বেডের এই প্রি-কোভিড হাসপাতালের পরিকাঠামো খতিয়ে দেখল জেলা স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিনিধি দল

কালনা মহকুমা হাসপাতালকে প্রি-কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করা হল। শুক্রবার ১০০ বেডের এই প্রি-কোভিড হাসপাতালের পরিকাঠামো খতিয়ে দেখল জেলা স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিনিধি দল

  • Share this:

#কালনা: কালনা মহকুমা হাসপাতালকে প্রি-কোভিড  হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করা হল। শুক্রবার ১০০ বেডের এই প্রি-কোভিড হাসপাতালের পরিকাঠামো খতিয়ে দেখল জেলা স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিনিধি দল।

ইতিমধ্যেই বর্ধমান শহর লাগোয়া বামচাঁদাইপুরের ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে বেসরকারি ক্যামরি হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতাল করার পরিকল্পনা নিয়েছে জেলা প্রশাসন। কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালকেও প্রি-কোভিড হাসপাতাল করার পরিকল্পনা রয়েছে। পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, এতদিন বেসরকারি ক্যামরি হাসপাতাল জেলার একমাত্র কোভিড হাসপাতাল ছিল। করোনা আক্রান্তদের দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হচ্ছিল। কাটোয়া কালনা-সহ জেলার দূরবর্তী এলাকা থেকে দুর্গাপুরে করোনা পজিটিভ রোগীদের পাঠাতে সমস্যা হচ্ছিল। সময় লাগছিল অনেক বেশি। তাছাড়া ওই হাসপাতালের ওপর চাপ বাড়ছে দিন দিন। তাই বর্ধমান শহর লাগোয়া ক্যামরি হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতাল করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এ'ব্যাপারে রাজ্য সরকারের সবুজ সংকেতও মিলেছে। কাটোয়া হাসপাতালকেও প্রি-কোভিড হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে।

শুক্রবার পূর্ব বর্ধমান জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রণব কুমার রায়ের নেতৃত্বে স্বাস্থ্য দফতরের একটি প্রতিনিধি দল কালনা মহকুমা হাসপাতালে যায়। তাঁরা হাসপাতালের পরিকাঠামো খতিয়ে দেখেন। হাসপাতাল সুপার-সহ অন্যান্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকের পর জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রণব কুমার রায় জানান, '' রাজ্য সরকার কালনা মহকুমা হাসপাতাল হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করেছে। এ'জন্য মেল মেডিসিন ওয়ার্ডের রোগীদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ফিমেল মেডিসিন বিভাগের রোগীদের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হচ্ছে। ১০০ শয্যার এই প্রি-কোভিড হাসপাতালে প্রয়োজনীয় বেশিরভাগ পরিকাঠামোই রয়েছে। ছোটখাটো আর কী কী সামগ্রী প্রয়োজন, সে ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি সেইসব সরঞ্জাম পাঠিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। এর ফলে এই হাসপাতাল থেকে করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীদের বর্ধমানের প্রি-কোভিড হাসপাতালে পাঠাতে হবে না। শুধুমাত্র করোনা পজিটিভ রোগীদের বর্ধমানের কোভিড হাসপাতালে পাঠানো হবে।''

Saradindu Ghosh

Published by:Rukmini Mazumder
First published: