Home /News /south-bengal /
Berhampore Murder Update: মুখ কুলুপ, খাওয়া বন্ধ! লক আপে সুশান্তর আচরণে চিন্তায় পুলিশ

Berhampore Murder Update: মুখ কুলুপ, খাওয়া বন্ধ! লক আপে সুশান্তর আচরণে চিন্তায় পুলিশ

বহরমপুর হত্যাকাণ্ডে ধৃত সুশান্ত চৌধুরী৷

বহরমপুর হত্যাকাণ্ডে ধৃত সুশান্ত চৌধুরী৷

গত সোমবার সন্ধ্যায় বহরমপুরের গোড়াবাজার এলাকায় নিজের প্রেমিকাকেই রাস্তার উপরে কুপিয়ে খুন করে সুশান্ত৷

  • Share this:

#বহরমপুর: নিজের প্রেমিকাকে রাস্তার উপরে নির্মম ভাবে কুপিয়ে খুন৷ তার পর পালাতে গিয়ে পুলিেশর হাতে গ্রেফতার৷ কিন্তু তার পর থেকেই যেন থম মেরে গিয়েছে বহরমপুরে কলেজ ছাত্রী হত্যাকাণ্ডে ধৃত সুশান্ত চৌধুরী৷

মঙ্গলবারই সুশান্তকে দশ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ এই মুহূর্তে বহরমপুর থানার লক আপে রাখা হয়েছে তাকে৷ কিন্তু পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার রাতে গ্রেফতারির পর থেকেই কিছু খাচ্ছে না সুশান্ত৷ মঙ্গলবার শুধু একবার সামান্য চা এবং একবার মাত্র সামান্য মুড়ি খেয়েছে সে। বার বার চেষ্টা করেও সুশান্তকে খাওয়াতে ব্যর্থ হয়েছেন পুলিশ অফিসাররা৷

এ দিন সকাল থেকেও সুশান্ত মুখে কিছু তোলেনি৷ সুশান্ত নিজেই পুলিশকে জানিয়েছে যে সে ধূমপান করে, কিন্তু সোমবারের পর থেকে বিড়ি- সিগারেটেও অনীহা তৈরি হয়েছে সুশান্তর৷ বহরমপুর থানায় নিয়ে আসার পর থেকে সুশান্তকে একাধিকবার স্নান করানোরও চেষ্টা করেছেন পুলিশ কর্মীরা, কিন্তু রাজি হয়নি সে৷

আরও পড়ুন: প্রেমিকা কি মারা গিয়েছে? ধরা পড়েই পুলিশকে প্রশ্ন বহরমপুর কাণ্ডে ধৃত সুশান্তর

শুধু তাই নয়, তদন্তকারীদের প্রায় কোনও প্রশ্নেরই জবাব দিচ্ছে না সুশান্ত৷ যার ফলে তদন্ত প্রক্রিয়াও ব্যাহত হচ্ছে৷ সুশান্ত যাতে আত্মহত্যার চেষ্টার মতো কোনও অঘটন ঘটাতে না পারে, সে বিষয়েও সতর্ক হয়েছে পুলিশ৷ প্রায় সর্বক্ষণই সুশান্তর উপরে নজরদারি চালানোর জন্য একজন অভিজ্ঞ পুলিশকর্মীকে লকআপের বাইরে বসিয়ে রাখা হয়েছে৷ সুশান্তর কাউন্সিলিংয়ের কথাও ভাবছেন তদন্তকারী অফিসাররা৷

গত সোমবার সন্ধ্যায় বহরমপুরের গোড়াবাজার এলাকায় নিজের প্রেমিকাকেই রাস্তার উপরে কুপিয়ে খুন করে সুশান্ত৷ এর পর পালানোর সময় সামশেরগঞ্জ থেকে তাকে ধরে ফেলে পুলিশ৷ প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, প্রেমিকা সম্পর্ক ভেঙে বেরিয়ে যেতে চাইতেই তাঁর উপরে হামলা চালায় সুশান্ত৷

আরও পড়ুন: একই পাড়ায় বড় হওয়া, প্রেম! প্রেমিকার প্রত্যাখ্যানেই চরম পথ নিল সুশান্ত?

এখনও পর্যন্ত যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে, তাতে সুশান্ত এবং নিহত তরুণীর মধ্যে কিশোর বয়স থেকেই সম্পর্ক ছিল বলে জানা গিয়েছে৷ দু' জনেই মালদহের ইংরেজবাজারের বাসিন্দা৷ দীর্ঘদিন সম্পর্ক থাকলেও কোনও কারণে সুশান্তর সঙ্গে নিজেদের মেয়ের সম্পর্ক মেনে নেয়নি নিহত তরুণীর পরিবার৷

এর পর থেকেই সুশান্ত ক্রমাগত ওই ছাত্রীকে উত্যক্ত করত বলে অভিযোগ৷ দু' পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি মিটমাট করার চেষ্টা করেছিলেন মালদহের ইংরেজবাজার এলাকার স্থানীয় কাউন্সিলরও৷ কিন্তু প্রেমিকার উপরে জমে থাকা রাগের বহিঃপ্রকাশ করতে গিয়ে যে কম্পিউটার সায়েন্সের ছাত্র সুশান্ত তার প্রাণই নিয়ে নেবে, তা ভাবতে পারেননি কেউই৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Murder, Murshidabad

পরবর্তী খবর