চাহিদা বাড়ছে মাটির প্রদীপের ! অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরার আশায় মৃৎশিল্পীরা

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: বাজারচলতি টুনি, লেজারের রমরমায় একসময় পিছিয়ে পড়লেও, ফের চাহিদা বাড়ছে মাটির প্রদীপের । তবু সমস্যা কাটছে না পুরুলিয়ার মৃৎশিল্পীদের। দাম বাড়ছে কয়লা, মাটির। জিএসটির সৌজন্য রং-এর দামও চড়া। চাহিদা থাকলেও সামাল দিতে হিমসিম অবস্থা! তবে আশা ছাড়ছেননা পুরুলিয়ার মৃৎশিল্পীরা।

    দোড়গোড়ায় দীপাবলি, আলোর উৎসব। আশয় বুক বাঁধছেন পুরুলিয়ার মৃৎশিল্পীরা।  নাওয়া-খাওয়া ভুলে মাটি মাখা হাত কাজ করে চলেছে।পুরুলিয়া শহর হোক বা সংলগ্ন গ্রাম কোটলই, কুমোরপাড়া এখন ভীষণ ব্যস্ত।

    সারা বছর-ই মাটির কলসি, মাটির দৈনন্দিন জিনিস তৈরি করে সংসারযাপন! কালীপুজো তাঁদের বাড়তি আয়ের সময়! এই সময়টা মাটির বিভিন্ন ডিজাইনের প্রদীপ, প্রতিমা, পুতুল, খেলার জিনিসের চাহিদা বাড়ে! কিছুটা বাড়তি আয়ের আশা থাকে! কিন্তু এবার বিধি বাম। মাটি থেকে রং, কয়লা থেকে কাঠ--সবকিছুরই দাম আকাশছোঁয়া।

    নিরাশার মাঝে আশার কথা একটাই-- বিদেশী আলোর রমরমা বাজারেও চাহিদায় ফিরছে সাবেকী মাটির প্রদীপ। তাই কাঁচামালের চড়া দামে হাত পুড়িয়েও দিনরাত মাটি মাখছে পুরুলিয়ার কুমোরপাড়া। চিনে আলো ছেড়ে মানুষ ফিরছে মাটির প্রদীপে, অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরার আশায় লাল মাটির দেশের মৃৎশিল্পীরাও । তাঁদেরও হয়ত একদিন এভাবেই অন্ধকার ঘুচবে...!

    পুরুলিয়া থেকে ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল

    First published: