হোম /খবর /দক্ষিণ ২৪ পরগনা /
স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার সন্দেহ, স্কুল শিক্ষককে বেঁধে পেটাল স্বামী! উস্থিতে তুলকা

South 24 Paraganas News: স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার সন্দেহ, স্কুল শিক্ষককে বেঁধে পেটাল স্বামী! উস্থিতে তুলকালাম

উস্থিতে তুলকালাম কাণ্ড।

উস্থিতে তুলকালাম কাণ্ড।

বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই শিক্ষক। ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত শিক্ষক।

  • Hyperlocal
  • Last Updated :
  • Share this:

উস্থি: স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের সন্দেহ করে প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষককে বেঁধে বেধড়ক মারধর, রক্তাক্ত অবস্থায় পুলিশের অস্থায়ী ক্যাম্পে আশ্রয় নিলেন স্কুল শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটেছে ঘটনাটি ঘটেছে উস্থি থানার নৈনান এলাকায়। আহত ওই স্কুল শিক্ষক উত্তর চব্বিশ পরগণার বনগাঁর চাঁদপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

অভিযুক্ত ব্যক্তি  নৈনানের বাসিন্দা।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ডায়মন্ড হারবার থানার কুলেশ্বর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওই শিক্ষক প্রতিদিন অভিযুক্তের দোকানে সাইকেল রাখত। সোমবারও স্কুল শেষ করে প্রতিদিনের মতো  দোকান থেকে নিজের সাইকেল নিতে যান ওই শিক্ষক। তখনই অভিযুক্ত ব্যক্তি ওই  শিক্ষকের উপরে চড়াও হয় বলে অভিযোগ। তার স্ত্রীর সঙ্গে ওই শিক্ষকের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে, এমনটাই অভিযোগ তুলে শিক্ষককে বেধড়ক মারধর করে অভিযুক্ত। প্রাণ বাঁচাতে আক্রান্ত শিক্ষক নেতড়ার পুলিশ ক্যাম্পে আশ্রয় নেন। পরে ডায়মন্ড হারবার থানার পুলিশ আহত শিক্ষককে উদ্ধার করে  হাসপাতালে ভর্তি করে।

আরও পড়ুন: একদিনের ব্যবধানে নিখোঁজ বিবাহিত দুই বোন! নতুন সম্পর্কের টান না অন্য রহস্য, চাঞ্চল্য নদিয়ায়

বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই শিক্ষক। ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত শিক্ষক।আক্রান্ত শিক্ষক জানান, বনগাঁতে তাঁর বাড়ি হওয়ায় ডায়মন্ড হারবার থেকে নিত্যদিন যাতায়াত করতে অসুবিধা হতো। তাই নৈনান এলাকায় তিনি একটি ঘর ভাড়া নিয়ে থাকতেন।

সম্প্রতি ঘর মালিকের সঙ্গে মতপার্থক্যের জেরে তিনি ঘরভাড়া ছেড়ে দিয়ে বাড়ি থেকে যাতায়াত করতেন। নৈনান এলাকার ওই দোকানে সাইকেল দোকানে তাঁর সাইকেল রাখা ছিল। বাড়িতে বাবা মারা যাওয়ার কারণে দীর্ঘদিন তিনি আসতে পারেননি। তাই সোমবার স্কুল এসে স্কুল শেষ হওয়ার পর মিষ্টি নিয়ে ওই সাইকেলের দোকানে যান। তখনই অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের উপরে চড়াও হয়৷

শুধুু মারধরই নয়, অভিযুক্ত ব্যক্তি ওই শিক্ষকের থেকে জরিমানা বাবদ পাঁচ লক্ষ টাকা দাবি করে বলেও অভিযোগ৷ শিক্ষক অভিযোগ দায়ের করার পর গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ অভিযুক্তের কোনও প্রতিক্রিয়া অবশ্য পাওয়া যায়নি৷

আনিশ উদ্দিন মোল্লা

Published by:Debamoy Ghosh
First published: