Home /News /off-beat /
The Most Cursed Painting in The World: বাড়িতে রাখলেই মৃত্যু! নিষ্পাপ শিশুর কান্নাই নাকি পৃথিবীর 'অভিশপ্ততম' ছবি!

The Most Cursed Painting in The World: বাড়িতে রাখলেই মৃত্যু! নিষ্পাপ শিশুর কান্নাই নাকি পৃথিবীর 'অভিশপ্ততম' ছবি!

The Crying Boy

The Crying Boy

Crying Boy Picture: গুজব রয়েছে, যে স্টুডিওতে ছবিটি তৈরি করা হয়েছিল সেটিও নাকি আগুনে পুড়ে গিয়েছে।

  • Share this:

    The Most Cursed Painting in The World: পৃথিবীর ‘অভিশপ্ত’ চিত্রশিল্প কোনটি? নাহ, কোনও ভয়ঙ্কর মুখ বা রহস্যজনক ছবি নয়! একটি নিষ্পাপ মুখের শিশুর কান্নার ছবি নাকি ঘুম উড়িয়ে দেয় মানুষের। ব্রিটিশ যুক্তরাজ্যে এই ক্রন্দনরত শিশুর ছবিটি ‘অভিশপ্ত’ ছবি হিসেবে কুখ্যাত। কথিত আছে, চিত্রকর্মটি এঁকেছিলেন ইতালির চিত্রশিল্পী জিওভানি বারগোলিন। তবে, বিভিন্ন প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে যে ইতালিতে এই নামে কোনও চিত্রশিল্পীই নাকি নেই। অনেক জায়গাতেই কান পাতলে গুজব শোনা যায়, ফরাসি শিল্পী ব্রুনো আমেডিও নাকি আসলে এঁকেছিলেন এই ছবিটি।

    আরও পড়ুন- নিজে নিজেকে কাতুকুতু দিলে কেন কিছুই অনুভব হয় না? রইল আসল কারণ

    চিত্রশিল্পটিতে একটি নিষ্পাপ শিশুর মুখ দেখানো হয়েছে। যার চোখ থেকে ক্রমাগত অশ্রু ঝরছে। প্রথমদৃষ্টিতে মনে হতেই পারে যে, চিত্রশিল্পীর মাথায় ছিল খিদে বা তেষ্টায় কাঁদছে এমন একটি শিশুর ছবি আঁকতে হবে। বলা হয়, যে ব্যক্তি নিজেদের বাড়িতে এই চিত্রশিল্পটি রাখেন, এই শিশুর কান্না তাঁর সর্বনাশ ডেকে আনে।

    শুধু তাই নয়, আরও গুজব শোনা যায় যে হাজারেরও বেশি জীবন নিয়েছে এই চিত্রশিল্পটি। ছবিটি কখন আঁকা হয়েছিল তা কেউ জানে না। তবে কেউ কেউ বলেন, চিত্রটি যখন প্রথম বাজারে আসে বিক্রির জন্য তখন নাকি পঞ্চাশ হাজারেরও বেশি কপি বিক্রি হয়েছিল।

    আরও পড়ুন- "শিবের মতো বিষপান করে যন্ত্রণা সয়েছেন মোদিজি": গুজরাত দাঙ্গা প্রসঙ্গে অমিত শাহ!

    ক্রন্দনরত শিশুর এই ‘অভিশপ্ত’ চিত্রকর্মের গল্প একবার দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়লে আর কেউই তা কিনতে রাজি হয়নি। অনেকে এমনও বলেন যে ছবিটি দেওয়ালে টাঙানোর পরে, মানুষ তাঁদের আত্মীয়দের হারাতে শুরু করে এবং পরিবারে বা প্রিয়জনের মৃত্যু ঘটে।

    আরেকটি গুজব রয়েছে, যে স্টুডিওতে ছবিটি তৈরি করা হয়েছিল সেটিও নাকি আগুনে পুড়ে গিয়েছে।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Ghost, Painting

    পরবর্তী খবর