Child Viral Fever in Siliguri: শিশুদের ভাইরাল ফিভারে কাবু শিলিগুড়িও, তৃতীয় ঢেউয়ের সঙ্গে যোগ নেই, আশ্বাস চিকিৎসকদের

শিশু কোলে হাসপাতালে উদ্বিগ্ন বাবা- মায়েরা৷

উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দপ্তর, আসছে বিশেষজ্ঞ টিম, উৎকণ্ঠায় মায়েরা!

  • Share this:

#শিলিগুড়ি:  জ্বর, সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত শিশুদের সংখ্যা বাড়ছে শিলিগুড়িতেও(Child Viral Fever in Siliguri)। জেলা হাসপাতাল তো বটেই, উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও বাড়ছে আক্রান্ত শিশুদের ভর্তির সংখ্যা বাড়ছে। সব হাসপাতালেই প্রতিদিন বহির্বিভাগে বাড়ছে রোগীর সংখ্যা। অন্তত কয়েকগুন বেড়ে গিয়েছে সংখ্যাটা। জেলা হাসপাতালের বহির্বিভাগে গড়ে প্রতিদিন প্রায় তিনশোটি শিশুকে নিয়ে আসছেন তাদের অভিভাবকরা৷ প্রতিদিন গড়ে তিরিশ থেকে চল্লিশটি শিশু ভর্তিও হচ্ছে (Viral Fever)।

উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে সংখ্যাটা আরও বেশী। স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলা হাসপাতালেই বর্তমানে ৭০ জন এবং মেডিক্যালের শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে শতাধিক শিশু। যা নিয়ে ক্রমেই বাড়ছে উদ্বেগ। প্রত্যেকেরই গায়ে টানা কয়েক দিনের জ্বর, সঙ্গে সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্টের মতো উপসর্গ রয়েছে। অনেক শিশুরই বুকে কফ জমে রয়েছে। যা ভাবাচ্ছে চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য আধিকারিকদের।

আরও পড়ুন: হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ! রাজ্যজুড়ে কেন জ্বরে কাবু শিশুরা!

চিকিৎসকদের মতে, মূলত ভাইরাল ফিভারেই কাবু হচ্ছে শিশুরা৷ তবু জরুরি চিকিৎসা প্রয়োজন বলেই জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা।চিকিৎসায় দেরি হলে পরে শিশুদের শারিরীক অবস্থার অবনতি হওয়ার আশঙ্কাও থাকছে। জেলা হাসপাতালের সুপার প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য জানান, 'আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। গ্রাফ আরও বাড়তে পারে। সবরকম ব্যবস্থাই নেওয়া হয়েছে। সকলেরই কোভিড পরীক্ষা করা হচ্ছে। রিপোর্ট নেগেটিভই এসছে। তবুও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। এ নিয়ে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারীকদের বিশদে জানানো হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের টিম আসছে।'

অন্যদিকে শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সুবীর ভৌমিক জানান, আক্রান্তের সংখ্যা কয়েকগুন বেড়ে গিয়েছে। বিশেষ করে ৫ মাসের কম বয়সি শিশুরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। প্রত্যেককেই ভর্তি করিয়ে চিকিৎসা শুরু করানো হয়েছে। এটি মূলত ভাইরাল ফিভার। কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় কিছুটা স্বস্তির। তবে এর সঙ্গে কোভিডের তৃতীয় ঢেউ মেলানো ঠিক নয়।

শিশুদের অসুস্থায় স্বভাবতই অভিভাবকদের উৎকণ্ঠাও বাড়ছে৷  সকাল হতেই কোলে শিশুদের নিয়ে হাসপাতালের বহির্বিভাগে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে পড়তে পড়ছেন বাবা- মায়েরা। কয়েক রাত যেমন ঘুম নেই, তেমনই ঠিক মতো খাওয়া দাওয়াও করছে না শিশুরা। এতেই বাড়ছে দুশ্চিন্তা। করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আগে শিশুদের জ্বর, সর্দিতে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় উদ্বেগ বাড়ছে জেলা জুড়ে।

Published by:Debamoy Ghosh
First published: