Home /News /north-bengal /
Bangla News: আর কাশ্মীর নয়, বাংলার বুকেই এবার ডাল লেক-শিকারা! জেনে নিন 'ঠিকানা'

Bangla News: আর কাশ্মীর নয়, বাংলার বুকেই এবার ডাল লেক-শিকারা! জেনে নিন 'ঠিকানা'

Bangla News

Bangla News

খুশি পর্যটক থেকে পর্যটন ব্যবসায়ীরা, চাহিদা বাড়লে বাড়বে শিকারার সংখ্যাও। (Bangla News)

  • Share this:

#মিরিক: কাশ্মীরের ডাল লেকের আদলে এবারে মিরিকে চালু হল শিকারা! আপাতত পরীক্ষামূলকভাবে এই পরিষেবা চালু করলো জিটিএ। দিন কয়েক আগে এর সূচনা করে জিটিএর পর্যটন দফতর। পর্যটকদের চাহিদা বাড়লে বাড়বে শিকারার সংখ্যাও!চারপাশে শাল-সেগুন আর মেহগনির হাতছানি। সবুজে মোড়া চা বাগিচা। কখনও মৃদু রোদ তো আবার কখোনো হালকা হাওয়ার আবহ। এহেন ছোট্ট পাহাড়ি জনপদ মিরিকের এখন পর্যটকদের কাছে ক্রমেই কদর বাড়ছে। আর মিরিক লেক তো পর্যটকদের কাছে বরাবরই পছন্দের।

সম্প্রতি কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে সেই লেক সংস্কার করা হয়েছে। শৈলরাণী দার্জিলিং বেরোনোর ফাকে পর্যটকরা ভিড় বাড়াচ্ছেন মিরিকে। এর জনপ্রিয়তা আরো বাড়াতেই জিটিএর নয়া উদ্যোগ। আপাতত একটি শিকারা চালু করা হয়েছে। শিকারায় চেপে আধ ঘন্টার লেক ঘোরার খরচ ৫০০ টাকা। এমনিতেই এখানে প্যাডেল বোটিং রয়েছে। পর্যটকদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে স্পিড বোট চালু করা হয়েছে। থাকছে লাইফ জ্যাকেটও। শিকারায় পর্যটক ছাড়াও থাকবেন একজন প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত মাঝিও। চাহিদা বাড়লে শিকারার সংখ্যা ১ থেকে বাড়িয়ে চার করা হবে বলে জিটিএর পর্যটন দপ্তরের সহকারী ডিরেক্টর জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: কালনা ছাড়া পূর্ব বর্ধমানের বাকি ৫ পুরসভায় শপথগ্রহণ, নির্বিঘ্নেই মিটল জরুরি কাজ

দিনভর মিরিক লেকে কাটিয়ে অনায়াসেই ঘুরে আসা যাবে ভারত-নেপাল সীমান্ত পশুপতি বাজার, একাধীক বৌদ্ধ গুম্ফা। সঙ্গে রয়েছে ঘোড়ার পিঠে চেপে লেকের চারপাশে দিন কাটানো। ঘোরার ফাঁকে সবুজে ঘেরা চা বাগানের অপরূপ স্নিগ্ধতা পর্যটকদের কাছে বাড়তি পাওনা। আর তাই প্রতিদিনই বাড়ছে পর্যটকের সংখ্যা। মিরিককে ঘিরে গড়ে উঠেছে একাধিক হোম স্টে। সবমিলিয়ে গরমের ছুটিতে পর্যটকদের কাছে মিরিক নয়া ডেস্টিনেশন হয়ে উঠছে।

আরও পড়ুন: চলন্ত অটো থেকে চোখের নিমেষে ব্যাগ সাফাই, শিলিগুড়িতে চা‍ঞ্চল্য

এই পরিষেবা চালু হওয়ায় উত্তরবঙ্গে ফ্লিম ট্যুরিজমেও যোগ হবে নতুন মাত্রা। কাশ্মীরের ডাল লেকে শিকারায় কম বলিউড ছবির শ্যুটিং হয়নি। পাহাড়েও টয়ট্রেন থেকে শুরু করে একাধীক জায়গায় বহু হিন্দি এবং বাংলা হিট ছবির শ্যুটিং হয়েছে। শিকারা সেখানে নতুন মাত্রা এনে দেবে বই কি!  পর্যটকদের কাছেও যা বাড়তি আকর্ষণ, মনে করছেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা। মিরিকের পর উত্তরে আগামীদিনে গজলডোবায় তিস্তা নদীর বুকেও শিকারা চালুর পরিকল্পনা রয়েছে বলে পর্যটন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে।

Published by:Raima Chakraborty
First published:

Tags: Bangla News, Siliguri

পরবর্তী খবর