Home /News /north-24-parganas /
North 24 Parganas: অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আজ ভবঘুরে! অসুস্থ বৃদ্ধের পাশে দাঁড়ালেন এক মানবিক শিক্ষক

North 24 Parganas: অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আজ ভবঘুরে! অসুস্থ বৃদ্ধের পাশে দাঁড়ালেন এক মানবিক শিক্ষক

একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হয়েও আজ রাস্তায় ভবঘুরে হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন নুর ইসলাম। পরিবার থেকেও আজ নেই বলে দাবি বয়সের ভারে জরাজীর্ণ এই বৃদ্ধর।

  • Share this:

    #উত্তর ২৪ পরগনা: একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হয়েও আজ রাস্তায় ভবঘুরে হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন নুর ইসলাম। পরিবার থেকেও আজ নেই বলে দাবি বয়সের ভারে জরাজীর্ণ এই বৃদ্ধর। (যদিও এর সত্যতা নিউজ এইট্টিন লোকাল যাচাই করিনি) তবে এক শিক্ষক হয়ে আরেক শিক্ষকের এই দুর্দশার অবস্থা চোখে দেখতে পারেননি, বারাসাতের গেঞ্জি মিল এলাকার বাসিন্দা ফয়জুল রহমান মন্ডল। অসুস্থ ওই বৃদ্ধের প্রতি মানবিকতা থেকেই তৎপর হন ফয়জুল। নিজের উদ্যোগে বারাসাত থানায় যোগাযোগ করে পুলিশের সাহায্য নিয়ে অসুস্থ বৃদ্ধকে ভর্তি করা হয় বারাসাত জেলা হাসপাতালে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিক্ষক ফয়জুল রহমান মন্ডলের বাড়িতে টাঙানো নেমপ্লেট একজন পড়ছেন দেখতে পায়। তাকে দেখে প্রথমে প্রাথমিকভাবে মানসিক ভারসাম্যহীন মনে হলেও, ফয়জুল রহমান ওই ভবঘুরের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করার আগেই, ভবঘুরে তাকে বলেন আপনি কি শিক্ষক। ফজলুর রহমান বলে হ্যাঁ আমি শিক্ষক। তখন ভবঘুরে বলেন আমিও একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক। আমিও শিক্ষকতা করতাম। কোন স্কুলের শিক্ষক ছিলেন পাল্টা প্রশ্ন করতেই, উত্তর আসে বিবেকানন্দ হাই স্কুল, গুরাপ। এরপরই বারাসাতের ওই শিক্ষক আগ্রহবশত জানার চেষ্টা করেন, একজন শিক্ষক হয়ে এই অবস্থা কেন আপনার?

     

     

    ভবঘুরের উত্তর থেকে জানা যায়, আমি আমার মেয়ের বাড়ি এসেছিলাম ব্যারাকপুর শাখা পট্টিরপাশে তারপর সেখানে অসুস্থ হওয়ার পর আমায় হাসপাতালে ভর্তি করে। আর কোন খোঁজ নেয়নি কেউ। আমি বেওয়ারিশ হয়ে হাসপাতালে ছিলাম। তারপর হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে সব পথ ভুলে যাই। তারপর থেকে এভাবেই কাটছে বলে জানান ওই ভবঘুরে। শিক্ষক ফজলুর রহমান জানতে চায়, আপনিকি বাড়ি যেতে চান? কোন সাহায্যের প্রয়োজন ? টাকা দিতে গেলেও, বলেন না কোন টাকা পয়সা লাগবে না। বাড়িতেও আর ফিরতে চান না তিনি।

    আরও পড়ুনঃ সপরিবারে দত্তপুকুর থেকে ইতালি যাচ্ছে মা দুর্গা

     

     

    কিছু খাবেন কিনা জিজ্ঞাসা করতে উত্তর বৃদ্ধ জানান, না আমি অনেক খেয়েছি, আমার এই মুহুর্তে আর খাবারের প্রয়োজন নেই। কথা বলতে বলতেই অসুস্থতার কারণে শুয়ে পড়েন ভবঘুরে। অবশেষে স্থানীয় শিক্ষকদের সহযোগিতায় বারাসত থানায় খবর দেওয়া হয়। বারাসত থানার কর্তব্যরত অফিসার গোটা বিষয়টি শোনেন, তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তাকে আগে চিকিৎসা করাতে হবে। সেইমত বারাসত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

    আরও পড়ুনঃ রেললাইনে যুক্ত হবে মছলন্দপুর থেকে স্বরূপনগর

     

     

    ভবঘুরে তার নাম পুলিশকেও জানিয়েছেন নুর ইসলাম বলে। তবে, মেয়ের নাম বলতে পারেনি। জামাইয়ের নাম বলেছেন আবদুর সামাদ। ব্যারাকপুর শাখা পট্টির কাছে থাকে এবং জামাই সরকারি চাকরি করেন। বিষয়টি জানার পর থেকেই পুলিশ খোঁজখবর শুরু করেছে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার। মানবিক শিক্ষক ফজলুর রহমান মন্ডল এখন চান, প্রশাসন মিডিয়ার সাহায্যে যেন নিজের বাড়িতে ফিরে যেতে পারেন এই বৃদ্ধ। শিক্ষক হয়ে একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের পাশে দাঁড়াতে পেরেও খুশি তিনি।

     

     

     

    Rudra Narayan Roy

    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Barasat, North 24 Parganas

    পরবর্তী খবর