Home /News /national /
Union Ministry of Information and Broadcasting : সংবাদ পরিবেশন এবং শিরোনাম প্রসঙ্গে বেসরকারি চ্যানেলগুলির জন্য় উপদেশ-বিবৃতি কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের

Union Ministry of Information and Broadcasting : সংবাদ পরিবেশন এবং শিরোনাম প্রসঙ্গে বেসরকারি চ্যানেলগুলির জন্য় উপদেশ-বিবৃতি কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের

Union Ministry of Information and Broadcasting

Union Ministry of Information and Broadcasting

Union Ministry of Information and Broadcasting: শনিবার জারি করা সেই বিস্তারিত পরামর্শমূলক বিবৃতিতে বলা হয়েছে কেবল্ টেলিভিশন নেটওয়ার্কস (রেগুলেশন) অ্যাক্ট, ১৯৯৫-এর ২০ নম্বর ধারা অনুসরণ করে চলার কথা৷ এই ধারায় বলা হয়েছে প্রোগ্যাম কোড বা অনুষ্ঠান বিধি সম্বন্ধে৷

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    নয়াদিল্লি : সংবাদ পরিবেশন এবং শিরোনামের ক্ষেত্রে বেসরকারি চ্যানেলগুলিকে সতর্কতামূলক উপদেশ দিল কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক৷ অসত্য দাবি জানানো এবং বিকৃত শিরোনাম তৈরির দাবি তুলে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে উপযুক্ত আচরণবিধি৷ শনিবার জারি করা সেই বিস্তারিত পরামর্শমূলক বিবৃতিতে বলা হয়েছে কেবল্ টেলিভিশন নেটওয়ার্কস (রেগুলেশন) অ্যাক্ট, ১৯৯৫-এর ২০ নম্বর ধারা অনুসরণ করে চলার কথা৷ এই ধারায় বলা হয়েছে প্রোগ্যাম কোড বা অনুষ্ঠান বিধি সম্বন্ধে৷

    মন্ত্রকের দাবি, সাম্প্রতিক অতীতে বেশ কিছু উপগ্রহ টেলিভিশন চ্যানেলে কয়েকটি ঘটনা এমনভাবে সম্প্রচারিত হয়েছে, তা অসত্য, দর্শকদের ভুল পথে চালিত করে এবং স্পর্শকাতর৷ আরও অভিযোগ, সেই সব সম্প্রচারে আপত্তিজনক ভাষা ও মন্তব্য ব্যবহার করা হয়েছে৷ সুরুচি ও ভদ্রতার বিরোধী, অশালীন ও অবমাননাকর সেই ভাষা ও সম্বোধনে জাতিমূলক বিদ্বেষের ছায়াও ছিল বলে সরকারি মন্ত্রকের তরফে দাবি তোলা হয়েছে৷

    উদাহরণস্বরূপ অ্যাডভাইসরিতে বলা হয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন দ্বন্দ্ব এবং উত্তর পশ্চিম দিল্লিতে নির্দিষ্ট ঘটনার কথা৷ অভিযোগ, এই ঘটনাগুলির কভারেজের ক্ষেত্রে টিভি চ্যানেলের খবর ও বিতর্কের আসরে প্রোগ্র্যাম কোড বা অনুষ্ঠানবিধির অবমাননা করা হয়েছে৷

    আরও পড়ুন : ভিডিও দেখলে গায়ে কাঁটা দেবে! প্রাণ তুচ্ছ করে সমুদ্রে লাইফগার্ডকে বাঁচান সার্ফার

    রাশিয়া-ইউক্রেন দ্বন্দ্বের ক্ষেত্রে মন্ত্রকের মনে হয়েছে টিভি চ্যানেলগুলি কেচ্ছামূলক শিরোনাম পরিবেশন করছে, যার সঙ্গে সংবাদের কোনও সম্পর্ক নেই৷ সাংবাদিকরাও ভিত্তিহীন ও অতিরঞ্জিত দাবি করেছেন বলে অভিযোগ৷ তাঁদের অতিশয়োক্তিতে দর্শকরা উত্তেজিত হয়ে পড়েছেন বলেও দাবি করা হয়েছে মন্ত্রকের বিবৃতিতে৷ পাশাপাশি, দিল্লি হিংসার খবরে উস্কানিমূলক শিরোনাম ও সংঘর্ষের ভিডিওতে জাতিবিদ্বেষ ছড়িয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ৷ এর ফলে শান্তি ও আইনশৃঙ্খলার পরিবেশ বিঘ্নিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ সেইসঙ্গে আরও অভিযোগ, এই প্রসঙ্গে টিভি চ্যানেলগুলি বিকৃত শিরোনাম পরিবেশন করেছে, যাতে কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপে সাম্প্রদায়িক রং লেগেছে৷

    আরও পড়ুন : ১ ডজন পাউরুটির লোফে সবসময়ই ১২ টার বেশি স্লাইস থাকে!এই অদ্ভুত রীতির কারণ কী?

    বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলিকে বিতর্ক পরিবেশনের ক্ষেত্রেও সতর্ক করা হয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তরফে৷ অভিযোগ, এই বিতর্কের আসরে অসংসদীয়, উস্কানিমূলক এবং সামাজিকভাবে অগ্রহণযোগ্য ভাষা, সাম্প্রদায়িক মন্তব্য এবং নিম্নমানের উদাহরণ ব্যবহার করা হয়েছে৷ এর ফলে দর্শকমনে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে বলে অভিযোগ৷ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তির পরিবেশও এতে বিঘ্নিত হতে পারে দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তরফে৷

    আরও পড়ুন : গরমে এসির বিলের সঙ্গে নিজের ওজন দুই-ই কমাতে চান? পান করুন মাটির কলসির জল

    শনিবার প্রকাশিত এই বিবৃতিতে টেলিভিশনের এই ধরনের অনুষ্ঠান নিয়ে তীব্র উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক৷ জোরালো ভাবে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে দ্য কেবল টেলিভিশন নেটওয়ার্কস (রেগুলেশন) অ্যাক্ট, ১৯৯৫ এবং তার অধীনস্থ নিয়মনীতিগুলিকে অমান্য না করার জন্য৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Union Ministry of Information and Broadcasting

    পরবর্তী খবর