Exclusive Offer:গ্রিপেন যুদ্ধবিমানের ব্যাপারে মোদিকে প্রস্তাব সুইডেনের

Exclusive Offer:গ্রিপেন যুদ্ধবিমানের ব্যাপারে মোদিকে প্রস্তাব সুইডেনের

আধুনিক যুদ্ধবিমান গ্রিপেন কেনার প্রস্তাব ভারতকে

ভারতের ক্ষেত্রেও এই প্রস্তাব রাখছে তাঁরা। ভারত ছাড়া এই প্রস্তাব অন্য কোনও বিমান বাহিনীকে দেয়নি স্যাব

  • Share this:

    #স্টকহোম: ফ্রান্সের রাফাল যুদ্ধবিমান এই মুহূর্তে ভারতের হাতে রয়েছে এগারোটি। এ বছরের শেষে বাকি ২৫ বিমান চলে আসার কথা। সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি তেজস মার্ক ওয়ান যুদ্ধবিমান এক,দু বছরের মধ্যেই চলে আসবে বিমান বাহিনীর হাতে। কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই ভারতীয় সংস্থা হ্যালকে সেই দায়িত্ব দিয়েছে। এর মধ্যে সুইডেনের প্রধানমন্ত্রী স্টেফান লোফভেন ভারতকে আধুনিক প্রজন্মের ফাইটার জেট গ্রিপেন কেনার ব্যাপারে প্রস্তাব দিয়েছেন। দু'দিন আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক হয় তাঁর। সেখানেই এই প্রস্তাব দেন তিনি।

    ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মেক ইন ইন্ডিয়া প্রকল্পে বিশ্বাসী। বিদেশ থেকে যুদ্ধবিমান না কিনে, ভারতীয় সংস্থার সঙ্গে যৌথভাবে দেশের মাটিতে বিমান তৈরি এবং প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি হস্তান্তর করার পক্ষপাতি তিনি। সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন ভারতের প্রস্তাবে রাজি তাঁরা। স্যাব গ্রিপেন পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ যুদ্ধবিমান জানিয়েছেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন দীর্ঘদিন ধরে ব্রাজিল বিমান বাহিনী এই যুদ্ধ বিমান ব্যবহার করছে। এখন নিজেরাই প্রযুক্তি হস্তান্তর হওয়ার পর থেকে এই বিমান উৎপাদন এবং রক্ষণাবেক্ষণ করছে। ব্রাজিল এই আধুনিক যুদ্ধবিমানের নতুন উৎপাদক দেশে পরিণত হয়েছে।

    ভারতের ক্ষেত্রেও এই প্রস্তাব রাখছে তাঁরা। ভারত ছাড়া এই প্রস্তাব অন্য কোনও বিমান বাহিনীকে দেয়নি স্যাব। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ভারতের ওপরেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হাতে প্রয়োজনের তুলনায় স্কোয়াড্রন সংখ্যা কম আছে। তবে সুইডেনের প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাব দিয়েছেন মাত্র। নরেন্দ্র মোদি একা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না।

    বিমান বাহিনীর শীর্ষকর্তা এবং প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করেই যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার নেবেন তিনি। তবে রাফালের পর সুইডেনের মাল্টিরোল ফাইটার গ্রিপেনকে যদি গ্রিন সিগন্যাল দেওয়া হয়, তাহলে নিঃসন্দেহে বিমান বাহিনীর শক্তি অনেকটাই বেড়ে যাবে। লড়াইয়ে রয়েছে রুশ, মার্কিন, ফরাসি সংস্থারাও।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: