Home /News /national /

Sexual Exploitation of minor: প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষার অজুহাতে ১৭ জন ছাত্রীকে নেশা করিয়ে যৌন নিগ্রহ, ধর্ষণের চেষ্টা! কাঠগড়ায় স্কুলের ম্যানেজার

Sexual Exploitation of minor: প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষার অজুহাতে ১৭ জন ছাত্রীকে নেশা করিয়ে যৌন নিগ্রহ, ধর্ষণের চেষ্টা! কাঠগড়ায় স্কুলের ম্যানেজার

১৭ জন ছাত্রীকে মাদকজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে যৌন নিপীড়ন এবং ধর্ষণ করার চেষ্টা করা হয়

  • Share this:

#মুজফ্ফরনগর: উত্তরপ্রদেশের মুজফ্ফরনগরের একটি বেসরকারি স্কুলে ঘটে গেল এক নিন্দাজনক ঘটনা। স্কুলের এক ম্যানেজার  ১৭ জন ছাত্রীকে নেশা জাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে যৌন নিপীড়ন করার চেষ্টা করে (Sexual Exploitation of minor)। অভিযোগ, ম্যানেজার স্কুলের ১৭ জন ছাত্রীকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করেছে মাদকজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে। এই মামলায় পুলিশ দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে ( Sexual Exploitation of minor)।

আরও পড়ুন:এক লহমায় খুশি বদলে গেল দুঃখে, বোনের বিয়ের শোভাযাত্রায় নাচতে নাচতেই মৃত্যু যুবকের!

জানা যায়,  ম্যানেজার দশম শ্রেণির ১৭ জন ছাত্রীকে প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষা দিতে অন্য স্কুলে নিয়ে গিয়েছিল। সেখানে তাদের সারা রাত থাকতে হত। সেই সময়েই ১৭ জন ছাত্রীকে মাদকজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে যৌন নির্যাতন এবং ধর্ষণ করার চেষ্টা করা হয় ( Sexual Exploitation of minor)।

মুজফ্ফরনগরের জেলার সিনিয়র পুলিশ আধিকারিক অভিষেক যাদব জানিয়েছেন , ভারতীয় জনতা পার্টির নেতা এবং স্থানীয় বিধায়ক প্রমোদ ওতওয়ালের হস্তক্ষেপে ছাত্রীদের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা করা হয়েছে। সূর্য দেব পাবলিক স্কুলের ম্যানেজার যোগেশ কুমার চৌহান এবং জিজিএস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ম্যানেজার অর্জুন সিংয়ের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন, মাদকজাতীয় দ্রব্য পান করানো এবং পকসো আইনের ধারা অনুযায়ী মামলা করা হয়েছে। সূর্য দেব পাবলিক স্কুলের ম্যানেজার যোগেশ কুমার চৌহান তাদের স্কুলের দশম শ্রেণির ১৭ জন ছাত্রীকে, জিজিএস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষা দিতে নিয়ে গিয়েছিল। সেখানে তাদের সারা রাত থাকতে হত। এই সময়েই সূর্য দেব পাবলিক স্কুলের ম্যানেজার যোগেশ কুমার চৌহান ও জিজিএস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ম্যানেজার অর্জুন সিং সেই ১৭ জন ছাত্রীকে মাদকজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে।

আরও পড়ুন: এ বার আফস্পা তুলে নেওয়ার দাবি জানাবে খোদ নাগাল্যান্ড সরকার, খবর রাজ্য সরকার সূত্রে

 পীড়িত ছাত্রীদের অভিভাবকদের অভিযোগ অনুসারে, দুই অভিযুক্ত ব্যক্তি নাবালিকা ছাত্রীদের মাদকজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে যৌন নিপীড়ন করেছে এবং তাদের ধর্ষণ করার চেষ্টা করেছে। এর পর দুই ব্যক্তি ছাত্রীদের ভয় দেখায় সেই ঘটনা অন্যদের না বলার জন্য। কিন্তু ছাত্রীদের অভিভাবকরা এই ঘটনা জেনে যখন স্থানীয় পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাতে যায় তখন পুলিশ কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এর পর  অভিভাবকরা স্থানীয় বিধায়ক প্রমোদ ওতওয়ালের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। অভিষেক যাদব জানিয়েছেন , অভিযুক্ত দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ধারা ৩২৮, ধারা ৩৫৪ অনুযায়ী মামলা দায়ের করা হয়েছে।

First published:

Tags: Minor Sexual Exploitation

পরবর্তী খবর