Home /News /national /
Ancient India: বৈশালী ছিল প্রথম প্রজাতান্ত্রিক রাজ্য, বিশ্বের কাছে ভারতের দান বিপুল!

Ancient India: বৈশালী ছিল প্রথম প্রজাতান্ত্রিক রাজ্য, বিশ্বের কাছে ভারতের দান বিপুল!

বৈশালী

বৈশালী

Ancient India: প্রকৃত অর্থে পৃথিবীর যেখানেই প্রজাতন্ত্রী ব্যবস্থা দেখা যায়, বলা যেতে পারে তা প্রাচীন ভারতেরই দান।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আগামী দু’ দিন পরেই আমাদের দেশ তার ৭৩তম প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপন করবে। আমাদের সংবিধান ২৬ জানুয়ারি ১৯৫০ সালে কার্যকর হয়েছিল। কিন্তু প্রাচীনকালে ভারতবর্ষ প্রজাতন্ত্র ব্যবস্থা দ্বারাই শাসিত হত একসময়ে। প্রকৃত অর্থে পৃথিবীর যেখানেই প্রজাতন্ত্রী ব্যবস্থা দেখা যায়, বলা যেতে পারে তা প্রাচীন ভারতেরই দান।

বৈশালী ছিল প্রাচীন ভারতের প্রথম প্রজাতন্ত্র রাজ্য। বিহার প্রদেশটি তখনকার দিনে বৈশালী প্রজাতন্ত্র নামে পরিচিত ছিল।

বিশ্বের প্রথম প্রজাতন্ত্র ঐতিহাসিক প্রমাণ অনুসারে, খ্রিস্টের জন্মের প্রায় ষষ্ঠ শতাব্দী পূর্বে বৈশালীতে বিশ্বের প্রথম প্রজাতন্ত্র অর্থাৎ 'প্রজাতন্ত্র' শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। আজ সমস্ত গণতান্ত্রিক দেশগুলিতে, উচ্চকক্ষ এবং নিম্নকক্ষের একটি ব্যবস্থা রয়েছে, যেখানে মন্ত্রী মহোদয়রা জনগণের জন্য বিভিন্ন নীতি তৈরি করেন। বৈশালী প্রজাতন্ত্রেও একই ব্যবস্থা চালু ছিল।

বৈশালীতে প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা প্রকৃতপক্ষে বৈশালী শহর ছিল বজ্জি মহাজনপদ-এর রাজধানী। মহাজনপদ বলতে প্রাচীন ভারতের অন্যতম শক্তিশালী রাজ্যকে বোঝানো হয়েছে। প্রজাতন্ত্রী মূল্যবোধের কারণে এই অঞ্চলটি প্রভাবশালী ছিল। বৈশালীতে প্রজাতন্ত্র লিচ্ছবিদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। লিচ্ছবিরা হিমালয়ের উপজাতিদের অন্তর্গত ছিল।

শক্তিশালী রাষ্ট্র হিসেবে বৈশালীর আবির্ভাব প্রজাতন্ত্র গঠনের পর বৈশালী একটি শক্তিশালী রাজ্য হিসেবে আবির্ভূত হয়। এটি পরবর্তীতে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ দ্বারা গৃহীত হয়েছে এবং আধুনিক গ্লোবাল ওয়ার্ল্ডের সেরা সিস্টেম হিসাবে বিবেচিত হয়েছে।

আজ ভারত হোক বা ইউরোপ বা আমেরিকার যে কোনও দেশ, সবাই এই ব্যবস্থায় বিশ্বাস করেন।

আরও পড়ুন: কখন কোভিড টেস্ট করা প্রয়োজন, কখন নয়? জেনে নিন

কেমন ছিল বিচার ব্যবস্থা? ভারতকোষ ওয়েবসাইট অনুসারে, বৈশালী প্রতিষ্ঠানে সমস্ত রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হত। অপরাধীদের শাস্তির ব্যবস্থাও ছিল। অভিযুক্ত অপরাধীর শাস্তি প্রমাণের জন্য বিনিশ্চমহামাত্য, ব্যবহারিক, সূত্রধর অষ্টকুলিকা, সেনাপতি, উপরাজ বা উপগণপতি এবং সবশেষে গণপতিকে পর্যায়ক্রমে বিবেচনার নির্দেশ দেওয়া হত।

আরও পড়ুন: ভোর চারটে, পার্ক সার্কাসে এক সাফাইকর্মী যা দেখলেন, ফের সমাজের মাথা হেঁট!

প্রাচীন ভারতে বৈশালীর অবস্থান কেমন ছিল? প্রাচীন বৈশালী শহরটি ছিল একটি অত্যন্ত সমৃদ্ধ ও নিরাপদ শহর, যা একে অপরের থেকে কিছু দূরত্বে নির্মিত তিনটি দেয়াল দ্বারা বেষ্টিত ছিল। প্রাচীন গ্রন্থে বর্ণিত আছে যে, এই তিন শ্রেণীর দেয়াল দিয়ে যতদূর সম্ভব শহরের দুর্গ গড়ে তোলা হয় যাতে শত্রুর পক্ষে শহরের অভ্যন্তরে পৌঁছানো অসম্ভব হয়ে পড়ে। চিনা পরিব্রাজক হিউয়েন সাং-এর মতে, সমগ্র শহরের পরিধি ছিল প্রায় ১৪ মাইল।

বর্তমান বৈশালী অবস্থা বৈশালী হল বিহারের বৈশালী জেলায় অবস্থিত একটি গ্রাম। এটি ভগবান মহাবীরের জন্মস্থানও বটে, তাই বৈশালী জৈন ধর্মে বিশ্বাসীদের জন্য একটি পবিত্র স্থান বলে গণ্য করা হয়।

First published:

Tags: India, Republic Day

পরবর্তী খবর