Nestle food Controversy: শুধু ম্যাগিই নয়, নেসলের ৬০ শতাংশ খাবারই স্বাস্থ্যকর নয়! বলছে সংস্থারই রিপোর্ট

নেসলের খাবার নিয়ে ফের চূড়ান্ত বিতর্ক।

Nestle food Controversy:বিষয়টা স্বীকার করেই এই পোর্টফোলিও এবার বদলাতে চাইছে নেসলে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: আট থেকে আশি সকলের প্রিয় নেসলের  ম্যাগি কতটা স্বাস্থ্যকর এই নিয়ে তর্ক শুরু হয়েছিল বহু আগে। কিন্তু এবার শুধু ম্যাগি নয় বিশ্বের বৃহত্তম খাদ্য সংস্থার নেসলে-র অধিকাংশ খাদ্য এবং পানীয় নিয়েই প্রশ্ন উঠে গেল। কোন নিয়ামক সংস্থা নয়, এবার প্রশ্ন উঠেছে সংস্থার অন্দরেই। সংস্থার অভ্যন্তরীণ রিপোর্টে স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে নেসলের খাদ্য ও পানীয়ের পোর্টফোলিওর ৬০ শতাংশই স্বাস্থ্যের স্বীকৃত সংজ্ঞা পূরণ করে না। অর্থাৎ এই খাদ্যদ্রব্য গুলি কোনও ভাবেই স্বাস্থ্যকর নয়। খাদ্যদ্রব্যগুলিতে এমন উপাদান রয়েছে যে চেষ্টা করেও তাকে স্বাস্থ্যকর করা সম্ভব নয়।  কার্যত বিষয়টা স্বীকার করেই এই পোর্টফোলিও এবার বদলাতে চাইছে নেসলে।

    এখানেই শেষ নয় ফিনান্সিয়াল টাইমসে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, নেসলের তৈরি মাত্র ৩৭ শতাংশ খাদ্য ও পানীয়ের নির্মাণের রেটিং ৩.৫। অস্ট্রেলিয়ার হেলথ স্টার রেটিং সিস্টেমে এই নম্বর দেওয়া হয় ৫ এ। বলাই বাহুল্য বাকি ৬৭ শতাংশের রেটিং অনেকটা কম। কাজেই সেগুলি কতটা স্বাস্থ্যকর এই নিয়ে প্রশ্ন ওঠার যথেষ্ট অবকাশ থাকছে। সংস্থার তরফে অবশ্য নেসলের জল ও দুধকে ভালো রেটিং দেওয়া হয়েছে।

    সংস্থার এক মুখপাত্রের কথায় বেশ কিছুদিন ধরেই বহু সামগ্রীকে নতুন করে  গড়ে তোলার ব্যাপারে নজর দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যেই বহু খাবারের ১৪ থেকে ১৫ শতাংশ চিনি ও সোডিয়ামের ব্যবহার কমিয়ে ফেলা হয়েছে।পোর্টফোলিও বলছে সব থেকে বেশি ঝুঁকি রয়েছে নেসলের মিষ্টান্ন এবং আইসক্রিমের মধ্যে ৯৯ শতাংশই স্বাস্থ্যের স্বীকৃত সংজ্ঞা পূরণ করেনি।

    সংস্থার তরফে অবশ্য এমনও বলা হচ্ছে, বিগত দুই দশক ধরে খাদ্যপণ্যগুলিকে যাতে স্বাস্থ্যকর করে তোলা যায়, যাতে পুষ্টির মান বাড়ানো যায় সেদিকে নজর দেওয়া হয়েছে।

    Published by:Arka Deb
    First published: