Home /News /national /
Jamtara Gang: Kyc আপডেটের নাম করে প্রতারণা! জামতারা গ্যাংয়ের মূল পান্ডা সিআইডির জালে

Jamtara Gang: Kyc আপডেটের নাম করে প্রতারণা! জামতারা গ্যাংয়ের মূল পান্ডা সিআইডির জালে

ধৃতরা সকলেই শিক্ষিত, কেউ ইলেকট্রিকাল পাস তো কেউ দিল্লি মেট্রোর কন্ট্রাকচুয়াল স্ট্যাফ

  • Share this:

#কলকাতা: কেওয়াইসি আপডেটের পিছনে জামতারা গ্যাং! জামতরা গ্যাংয়ের মূল পান্ডা সিআইডির হাতে ধৃত  মেহেতাব আলমকে জেরা করে চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এল। সিআইডির হাতে এর আগে দিল্লি থেকে গ্রেফতার হয় জামতারা পান্ডা অতুল কুমার ও আকাশ কুমার। জেরা করে নয়া তথ্য পেয়েছে সিআইডি। সিআইডি সূত্রে খবর, পশ্চিমবঙ্গ, বেঙ্গালুরু, হায়দ্রাবাদ, দিল্লি, মুম্বই, সহ দক্ষিণ ভারতের একাধিক জায়গায় প্রতারণা করেছে এই জামতারা গ্যাংটি। এক এক জনের থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে  বহু জনকে প্রতারিত করেছে ওই জামতারা গ্যাং। কোটি কোটি টাকা প্রতারণা করা হয়েছে বলে সিআইডি সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন Shocking Video: Parasailing করতে গিয়ে আকাশ থেকে মুখ থুবড়ে পড়ছেন ৩ পর্যটক! বীভৎস ভিডিও দেখতে গায়ে কাঁটা দেবে

ধৃত মেহেতাব আইটিআই থেকে ইলেকট্রিকাল পাস। অতুল দিল্লি মেট্রো স্ট্যাফ ছিল (কন্ট্রাকচুয়াল)। আকাশ একটি কাপড়ের দোকান চালায়। অতুলের হাতেখড়ি হয় মেসোর কম্পিউটার দোকান থেকে। এরপর নিজে জামতরা গ্যাংয়ে যুক্ত হয় অতুল প্রতারণা শুরু করে। দলে টেনে নেয় আকাশকেও। পরিচয় হয় মেহেতাবের সঙ্গে। সিআইডি সূত্রে খবর, এই কোটি কোটি প্রতারণার টাকা ঝাড়খন্ডে একাধিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে যেত।  সেই টাকার সাইফুন মেইনটেইন করত মেহেতাব অর্থাৎ ওই একাউন্টের টাকা কোথায় কোথায় কোন কোন অন্য একাউন্ট এ যাবে, কত টাকা তোলা হবে এই দায়িত্ব পালন করত মেহেতাব।

সাধারণ মানুষকে kyc আপডেট করার নাম করে কোটি কোটি টাকা প্রতারণা করেছে এই জামতারা গ্যাং। এই জামতারা গ্যাংয়ে ঝাড়খন্ড, দিল্লি, রাজস্থানের লোক জড়িয়ে রয়েছে বলে দাবি সিআইডির। এর পিছনে আরও বড় মাথা জড়িত কিনা, তার খোঁজ করছে সিআইডি। ঝাড়খন্ড থেকে জামতরা গ্যাংয়ের মাথা মেহেতাবকে সিআইডি গ্রেফতার করে সোমবার রাতে। এর আগে দিল্লি থেকে অতুল ও আকাশকে গ্রেফতার করেছিল সিআইডি।

আরও পড়ুন IPL| Rajasthan Royals: মাঝ আকাশে হু হু করে কেঁপে উঠল রাজস্থান রয়্যালসের বিমান! যা অবস্থা হল ক্রিকেটরদের, দেখুন ভিডিও

উল্লেখ্য লেক টাউনে এক ব্যক্তিকে kyc আপডেটর নাম করে appse ডাউনলোড করিয়ে ১২ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছিল বলে অভিযোগ হয়। ২০২০ সালে অভিযোগ হয় লেকটাউনে। সেই ঘটনায় সিআইডি সাইবার ক্রাইম বিভাগের তদন্তকারীরা তদন্ত হাতে নেয়। তারপরই গ্রেফতার হয় অতুল ও আকাশ। এরপর ধৃতদের জেরা করে মেহেতাবের খোঁজ পায় সিআইডি।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Crime News, Jamtara Gang

পরবর্তী খবর