corona virus btn
corona virus btn
Loading

হারিয়ে গিয়েছে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের রত্ন ভাণ্ডারের চাবি!

হারিয়ে গিয়েছে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের রত্ন ভাণ্ডারের চাবি!
পুরীর জগন্নাথ মন্দির ৷ -ফাইল চিত্র ৷
  • Share this:

#পুরী: ধন-সম্পদের মালিকানার নিরিখে এ দেশের ধনীতম মন্দিরগুলির মধ্যে একটি হল ওড়িশার জগন্নাথ মন্দির ৷ মন্দিরে রয়েছে দু’টি রত্ন ভাণ্ডার ৷ যেগুলি হল-‘ভিতর ভাণ্ডার’ এবং ‘বাহার ভাণ্ডার’ ৷ মন্দিরে যখন কোনও উৎসব হয়, তখন জগন্নাথ, বলভদ্র ও সুভদ্রাকে অলঙ্কার দিয়ে সাজিয়ে তুলতে ‘বাহার ভাণ্ডারের’ অলঙ্কারই ব্যবহার করা হয় ৷ আর মন্দিরে যে দু’টি রত্ন ভাণ্ডার রয়েছে, তাতে রয়েছে সাতটি কক্ষ ৷ কিন্তু তার বেশির ভাগই বন্ধ থাকে ৷ এই রত্ন ভাণ্ডারে যে কত পরিমাণ ধন-সম্পত্তি রয়েছে, তার সঠিক পরিমাণ জানা নেই মন্দির কর্তৃপক্ষের ৷ আর খোঁজ মিলছে না সেই রত্নভাণ্ডারের চাবির ৷

এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আসাতে পুরীর মন্দিরে হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে ৷ শ্রী জগন্নাথ মন্দিরের ম্যানেজিং কমিটির এক সদস্য রামচন্দ্র দাস মহাপাত্র জানান, গত ৪ এপ্রিলে চাবি পাওয়া যায়নি ৷ গত ৪ এপ্রিল ওড়িশা হাইকোর্টের নির্দেশে দীর্ঘ ৩৪ বছর পর পরিদর্শনের জন্য জগন্নাথ মন্দিরের রত্ন ভাণ্ডারে ১০ জন আধিকারিকের প্রবেশ করার কথা ছিল ৷ কিন্তু জানা যাচ্ছে, চাবি খুঁজে না পাওয়ার কারণে রত্ন ভাণ্ডারের পরিদর্শন করা যায়নি ৷

৩৪ বছর আগে ১৯৮৪ সালে রত্ন ভাণ্ডারের সাতটি কক্ষের মধ্যে মাত্র তিনটি খোলা হয়েছিল পরিদর্শন করার জন্য ৷ ২০১৬ সাল থেকেই ভারতের আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে (এএসআই) পুরীর মন্দিরের রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করছে ৷ তবে, এবার চাবি না পাওয়ার কারণেই সার্চ লাইট দিয়ে বাইরে থেকেই কক্ষটির অবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে হয় তাঁদের ৷

এক সংবাদ সংস্থাকে রামচন্দ্র দাস মহাপাত্র জানান, মন্দির কর্তৃপক্ষ বা পুরী ডিস্ট্রিক্ট ট্রেজারি কারও কাছেই এই চাবি নেই ৷ এই ঘটনায় ওডিশা সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছেন পুরীর শঙ্করাচার্য স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী ৷ পাশাপাশি এই ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের দিকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছে বিজেপি ৷ সাংবাদিকদের কাছে বিজেপির মুখপাত্র পিতাম্বর আচার্য জানান, মুখ্যমন্ত্রীকে জবাবদিহি করতে হবে কিভাবে রত্নরত্নভাণ্ডারের চাবি হারিয়ে যেতে পারে, আর কে এর জন্য দায়ী৷ রাজ্য সরকার এই ইস্যুতে এখনও কোনও পদক্ষেপ না নেওয়াতেই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তিনি ৷

First published: June 4, 2018, 2:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर