• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • দেশ
  • »
  • DONT SPARE HIM DELHI AIR HOSTESS JUMPS OFF TERRACE AFTER SENDING MESSAGE TO HER FAMILY ALLEGES DOWRY HARASSMENT

‘ওকে ছাড়বে না’, পরিবারকে মেসেজ পাঠিয়ে ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী বিমানসেবিকা

‘ওকে ছাড়বে না’, পরিবারকে মেসেজ পাঠিয়ে ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী বিমানসেবিকা

Picture Taken from Facebook

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন দিল্লির এক বিমানসেবিকা ৷ ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিল্লির হজ খাস আবাসনে ৷ মৃতার নাম আনিসিয়া বাত্রা ৷ তিনি জার্মান এয়ারলাইন্সে কাজ করতেন ৷ প্রাথমিক তদন্তে আত্মহত্যার কারণ হিসেবে পারিবারিক অশান্তির সঙ্গে সঙ্গে পণ চেয়ে অত্যাচারের অভিযোগও উঠে এসেছে ৷

    বছর চল্লিশের আনিসিয়ার সঙ্গে বছর দু’য়ের আগেই বিয়ে হয় সফটঅ্যয়ার ইঞ্জিনিয়ার ময়ঙ্ক সিংভির ৷ তাদের মধ্যে নিত্য অশান্তি লেগেই থাকত বলে জানিয়েছেন পরিবারের লোকজন ৷ শুক্রবার গুরুগ্রামে কর্মরত স্বামীকে মোবাইলে টেক্সট মেসেজ করে নিজেকে শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানান ৷ পুলিশ সূত্রে খবর, এরপরই ছাদ থেকে ঝাঁপ দেন পেশায় বিমানসেবিকা আনিসিয়া ৷

    স্ত্রীয়ের টেক্সট মেসেজ পেয়ে তড়িঘড়ি বাড়ি ফিরে ময়ঙ্ক দেখেন রক্তাক্ত আনিসিয়াকে ৷ তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন ৷

    আরও পড়ুন 

    মোদির সভায় মঞ্চের ছাদ ভেঙে দুর্ঘটনা, আহতদের সাহায্যের আশ্বাস দিয়ে ট্যুইট মমতার

    আনিসিয়ার পরিবার জানিয়েছেন, ময়ঙ্ক ও তাঁর পরিবার তাদের মেয়েকে পণ ও বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে অত্যাচার করত ৷ এমনকি ময়ঙ্কের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগও করেছেন তাঁরা ৷ আনিসিয়ার সঙ্গে বিয়ের আগে ময়ঙ্কের আরও একবার বিয়ে হয়েছিল, কিন্তু সেই কথা আনিসিয়া ও তাঁর পরিবারের কাছে লুকিয়ে রেখে দ্বিতীয়বার বিয়ে করেন বলে দাবি ৷ পরিস্থিতি চরমে পৌঁছানোতেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হয়েছে তাদের মেয়ে বলে পুলিশকে জানিয়েছে মৃতার বাবা-মা ৷ মৃত্যুর আগে তাদেরও টেক্সট করে আনিসিয়া লেখেন, ওদের ছেড়ো না ৷

    আরও পড়ুন 

    কুকুরের উপর নৃশংস অত্যাচার, মেরে তন্ত্রসাধনার অভিযোগ উঠল ডানকুনিতে

    আনিসিয়ার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতেই ময়ঙ্ক ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে ৩০৪ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ ৷ সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখছে পুলিশ ৷

    First published:

    লেটেস্ট খবর