Home /News /national /
Attractive Eyes: ‘‘কাজল নয়না হরিণী’’ হতে চান, চোখের মতো চোখের নিচের ত্বকেরও যত্ন নিন ঠিক এইভাবে

Attractive Eyes: ‘‘কাজল নয়না হরিণী’’ হতে চান, চোখের মতো চোখের নিচের ত্বকেরও যত্ন নিন ঠিক এইভাবে

Attaractive Eyes: you need to know an under eye skin care tips- Photo -Representative

Attaractive Eyes: you need to know an under eye skin care tips- Photo -Representative

Attractive Eyes: মুখের বাকি অংশের মতো চোখের নিচের ত্বকেরও (under eye skin care tips) যথেষ্ট যত্নের প্রয়োজন আছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: রাত্রে ঘুমোতে না যাওয়া পর্যন্ত আমাদের চোখ সারাদিন কাজ করে। ফলে চোখের আশেপাশের পেশি সব সময় সক্রিয় থাকে। যার সরাসরি প্রভাব গিয়ে পড়ে চোখের নিচের অংশে (Under Eye)। এই অংশের ত্বক অত্যন্ত কোমল ও স্পর্শকাতর। ফলে এই অংশে চটজলদি কালো ভাব বা ডার্ক সার্কেল এবং বলিরেখা বা ফাইন লাইন দেখা দিতে পারে। মুখের বাকি অংশের মতো এই অংশেরও (Under Eye Care) যথেষ্ট যত্নের প্রয়োজন আছে।

চোখের নিচের যত্ন (Eye Care Tips) নিতে কোন কোন উপাদান লাগবে

হায়ালুরোনিক অ্যাসিড: এই উপাদানটি চোখের নিচের অংশের (Under Eye Care) চারপাশে হাইড্রেশন এবং স্থিতিস্থাপকতা বাড়াতে সাহায্য করে, যতদিন সম্ভব ফাইন লাইন দূরে রাখে।

ভিটামিন সি: ভিটামিন সি কোলাজেন উৎপাদন করতে, বলিরেখা কমাতে ও চোখের আশেপাশে সূক্ষ্ম রেখা কমাতে সাহায্য করে। রূপ বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিচ্ছেন বায়োলুমিন-সি আই সিরাম ব্যবহার করতে, কারণ এই পণ্য অতি-স্থিতিশীল ভিটামিন সি কমপ্লেক্স সরবরাহ করে। এটি ব্যবহার করলে চোখের চারপাশ উজ্জ্বল হবে এবং ত্বকে স্থিতিস্থাপকতা আসবে।

ডি'গ্লুকোসিল গ্যালিক অ্যাসিড: এই উপাদান অপেক্ষাকৃত কম পরিচিত এবং এটি ত্বকের প্রাকৃতিক মাইক্রোবায়োম দ্বারা সক্রিয় হয় যা চোখের সংবেদনশীল এলাকার চারপাশের ডার্ক সার্কেল দূর করে ত্বক উজ্জ্বল করতে এবং ত্বককে টানটান করতে সাহায্য করে।

সাগরের জলের নির্যাস এবং আর্কটিক শৈবাল: এগুলোর একটি টোনিং প্রভাব রয়েছে যা বলিরেখা এবং চোখের নিচের ফোলা ভাব বা আইব্যাগ এবং বলিরেখা দূর করতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন -Maha Shivratri: আজ মহা শিবরাত্রি, এই মন্ত্র পাঠে হবে বিপদ থেকে মুক্তি, কী করবেন আর কী করবেন না জেনে নিন

চোখের নিচের অংশের যত্ন (Eye Skin care tips) নিতে কোনটা করা দরকার আর কোনটা করলে চলবে না-

যেগুলো করতে হবে:

পরিষ্কার ও এক্সফোলিয়েট করা ত্বকে সেরাম লাগাতে হবে।

আইক্রিম বা সেরাম চোখের অরবিটাল বোন থেকে বাইরের দিকে লাগাতে হবে।

চোখের নিচে যখনই কোনও ক্রিম বা সেরাম লাগানোর প্রয়োজন হবে অনামিকা বা রিং ফিঙ্গার দিয়ে লাগাতে হবে, এতে চাপ কম পড়ে।

যতক্ষণ না চোখের নিচের ত্বক সেরাম বা ক্রিম শুষে নিচ্ছে হালকা মাসাজ করতে হবে।

আরও পড়ুন - Maha Shivratri: শিবরাত্রির মহা পুণ্য তিথি দরজায়, জেনে নিন মহাদেবের দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গের মহিমা

যেগুলো করতে হবে না:

চোখ বেশি ঘষলে হবে না।

চোখের চারপাশে অ্যালকোহল-ভিত্তিক পণ্য ব্যবহার করা যাবে না।

কমেডোজেনিক উপাদান সহ পণ্য ব্যবহার করা যাবে না।

চোখের চারপাশে কোনও পণ্য পরিষ্কার করার বা প্রয়োগ করার সময় ত্বক টানা বা প্রসারিত করা যাবে না।

অকারণে অতিরিক্ত আই প্রোডাক্ট ব্যবহার করা যাবে না।

ল্যাশ লাইনের কাছাকাছি চোখের পণ্য প্রয়োগ করা যাবে না।

Published by:Debalina Datta
First published:

Tags: Eye, Lifestyle

পরবর্তী খবর