Home /News /national /
6 Years Old Girl Donates Organ: ছ'বছরও বয়স হয়নি, অঙ্গদান করে দু'জনের জীবন বাঁচিয়ে গেল এই ছোট্ট মেয়ে

6 Years Old Girl Donates Organ: ছ'বছরও বয়স হয়নি, অঙ্গদান করে দু'জনের জীবন বাঁচিয়ে গেল এই ছোট্ট মেয়ে

6 Years Old Girl Donates Organ: মাত্র ৬ বছরেই চলে গেল ছোট্ট মেয়ে। তবে যা করে গেল তা লেখা থাকবে ইতিহাসে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দিল্লির এইমস (AIIMS)-এর ইতিহাসে এমন ঘটনা আগে কখনও ঘটেনি। মাত্র ৫ বছর এবং ১০ মাস বয়সী এক ছোট্ট মেয়ে অঙ্গদান করে দুজনের জীবন বাঁচিয়ে দিল। এইমস-এ সর্বকনিষ্ঠ দাতা হল এই ছোট্ট মেয়ে। অঙ্গদানের পর সেই মেয়ে নিজে পৃথিবীকে বিদায় জানালেও জীবন দিয়েছেন ২ জনের।

    ৫ বছর ১০ মাসের ছোট্ট একটি মেয়ে, যে কি না এখনও দুনিয়ার কিছুই দেখে উঠতে পারল না, মাথায় বুলেটের কারণে পৃথিবী ছেড়ে চলে গেল। তবে নিজের শরীরের অঙ্গ দান করে ইতিহাস লিখে রেখে গেল। এইমস (AIIMS)- দিল্লির ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ অঙ্গ দাতা ছিল এই মেয়ে।

    আরও পড়ুন- "ভারতে এখনও পর্যাপ্ত পরিমাণে কয়লা মজুত রয়েছে": দাবি কয়লা মন্ত্রকের

    রলি নামের সেই মেয়ের বাবা হরিনারায়ণ প্রজাপতি জানান, ২৭ এপ্রিল সন্ধ্যায় রলি নয়ডা সেক্টর ১২১-এ তাদের বাড়ির বাইরে খেলছিল। বাবা হরিনারায়ণ প্রজাপতি ঘরে ছিলেন। রলির মা পুনমও ঘরের কাজে ব্যস্ত ছিলেন। হঠাৎ একটা বিস্ফোরণের শব্দ হয় এবং তার পর তাঁরা রলির প্রচণ্ড কান্না শুনতে পান।

    বাবা হরিনারায়ণ বাইরে গেলে দেখেন রলির সারা শরীর রক্তে ভেসে যাচ্ছে। তার পর তাকে নিয়ে নয়ডার সরকারি হাসপাতালের দিকে ছুটে যান পরিবারের লোকজন। নয়ডার সরকারি হাসপাতাল থেকে দিল্লির AIIMS-এ রেফার করা হয় রলিকে। পরিবার রলিকে নিয়ে রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ AIIMS দিল্লি পৌঁছায়।

    রলিকে ভর্তির পর তার মাথার সিটি স্ক্যান করা হয়। তখনই দেখা যায়, তার মাথায় একটি গুলি লেগেছে এবং ২টি হাড় ভেঙে গিয়েছে।

    AIIMS দিল্লিতে ৫ বছর বয়সী রলির চিকিৎসা করা সিনিয়র নিউরোসার্জন ডাঃ দীপক গুপ্তা জানিয়েছেন, রলি গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে এসেছিল। টানা দুদিন রলির বিভিন্ন চিকিৎসা ও পরীক্ষাও করা হয়। কিন্তু শুক্রবার সকাল ১১.৪০ মিনিটে রলিকে ব্রেন ডেড ঘোষণা করা হয়।

    ডাঃ গুপ্তা জানান, রলির বাবা-মা দরিদ্র পরিবারের। কিন্তু তাঁরা খুব বুদ্ধিমান। ডাঃ গুপ্তা তাঁদের অঙ্গ দানের কথা বললে প্রথমে তিনি অস্বীকার করেন, তারপর কিছুক্ষণ পর নিজেই রাজি হন।

    আরও পড়ুন- ২৪ ঘণ্টায় ভারতে কোভিডে মৃত ৫০ জন! নতুন করে করোনা সংক্রামিত ৩,৬৮৮

    পরিবারের সম্মতির পর রাওলির লিভার অ্যাপোলোতে ভর্তি এক শিশুর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয় এবং দুটি কিডনিই এইমসের এক রোগীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয়। এ ছাড়া রলির হার্টের ভাল্ব এবং চোখের কর্নিয়া সুরক্ষিত ছিল, যা বাঁচাতে পারে আরও কিছু মানুষের জীবন।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    Tags: AIIMS Delhi, Kidney Transplant

    পরবর্তী খবর