Home /News /nadia /
Nadia: জরায়ু কেটে যমজ সন্তান প্রসবের জ্বটিল অস্ত্রোপচারে সাফল্য শান্তিপুরে

Nadia: জরায়ু কেটে যমজ সন্তান প্রসবের জ্বটিল অস্ত্রোপচারে সাফল্য শান্তিপুরে

বিভিন্ন জটিল অপারেশন করার জন্য শহরতলীর ভালো বেসরকারি হাসপাতালকেই বেছে নেন সাধারণ মানুষ। এই সমস্ত হাসপাতাল গুলিতে পরিষেবা ভালো হলেও তা অত্যন্ত খরচসাপেক্ষ।

  • Share this:

    #নদিয়া: বিভিন্ন জটিল অপারেশন করার জন্য শহরতলীর ভালো বেসরকারি হাসপাতালকেই বেছে নেন সাধারণ মানুষ। এই সমস্ত হাসপাতাল গুলিতে পরিষেবা ভালো হলেও তা অত্যন্ত খরচসাপেক্ষ। যা কিনা একজন মধ্যবিত্ত মানুষের ক্ষেত্রে অনেক সময়ই সম্ভব হয়ে ওঠেনা। স্বাস্থ্য বীমা না থাকলে অনেকেই যেতে পারেন না সেই সমস্ত বেসরকারি হাসপাতালে। তবে বর্তমানে পিছিয়ে নেই জেলার বিভিন্ন সরকারি হাসপাতাল। একাধিক গুরুত্বপূর্ণ জটিল অস্ত্রোপচার করা হচ্ছে জেলার বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে। যার ফলে স্বস্তির নিঃশ্বাস একাধিক মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষের। জন্ম থেকেই জোড়া জরায়ু রয়েছে নদিয়ায় পলাশী পাড়ার বাসিন্দা হাসিবুল শেখ এর স্ত্রী মামনি বিবির। এর আগে দুবার সন্তান হারিয়েছেন ওই দম্পতি। তবুও তারা ভেঙে পড়েননি। ক্রমাগত চিকিৎসা ও চিকিৎসকের পরামর্শ চালিয়ে গেছেন।

    এরপর তৃতীয়বার যখন সন্তান গর্ভে আসে চিকিৎসকের মাধ্যমে তারা জানতে পারেন তার জোড়া জড়ায়ুতে রয়েছে দুটি জমজ সন্তান। এই পরিস্থিতিতে দুটি সন্তান তো দুরস্ত, অনেক সময় একটি সন্তানকে বাঁচাতেই রীতিমতো জটিল হয়ে ওঠে চিকিৎসকদের কাছে। কিন্তু অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখালো নদিয়ার শান্তিপুরের স্টেট জেনারেল হাসপাতাল। দুই জমজ সন্তানকে সুস্থভাবে পৃথিবীর আলো দেখালেন শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসকেরা।

    আরও পড়ুনঃ সামাজিক বনসৃজন উৎসব পালন করা হল কৃষ্ণনগরে

    বর্তমানে মা ও রয়েছে সুস্থ বলে জানা যায়। এভাবে দুটি যমজ সন্তানের সুস্থভাবে জন্মানোর ঘটনা চিকিৎসকদের কাছে বিরলতম বলে জানাচ্ছেন তারা। জানা যায় এখনও পর্যন্ত পৃথিবীতে এরকম বিরলতম ঘটনা এখনো পর্যন্ত রয়েছে ১৬ টি। জেলা তো দূর গোটা দেশে এবং জটিল অস্ত্র প্রচারের ঘটনা নেই বললেই চলে।

    আরও পড়ুনঃ স্কুল শিক্ষিকার তৎপরতায় ধরা পড়ল চাল চোর!

    সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখালো শহর কলকাতা থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে নদিয়ার একটি সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকেরা। স্বাভাবিকভাবেই এই বিরলতম অস্ত্রপ্রচারের জন্য চিকিৎসক মহলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছেন রোগীর আত্মীয় পরিজনেরা। দুবার সন্তান হারানোর পরে একসাথে দুটি সন্তানের জন্ম দেওয়ার ফলে খুশি আত্মীয়-স্বজন থেকে শুরু করে সকলেই।

    Mainak Debnath
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Nadia, Shantipur

    পরবর্তী খবর