Home /News /malda /
Malda: বৃষ্টি নেই, মাঠে শুকিয়ে যাচ্ছে পাট! লোকসানের মুখে জেলার পাট চাষিরা

Malda: বৃষ্টি নেই, মাঠে শুকিয়ে যাচ্ছে পাট! লোকসানের মুখে জেলার পাট চাষিরা

title=

পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় একদিকে ধান চাষে সমস্যায় পড়েছেন কৃষকেরা। অপরদিকে বৃষ্টির অভাবে পাট পচাতে সমস্যায় পড়েছেন মালদহের কৃষকেরা।

  • Share this:

    #মালদহ : পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় একদিকে ধান চাষে সমস্যায় পড়েছেন কৃষকেরা। অপরদিকে বৃষ্টির অভাবে পাট পচাতে সমস্যায় পড়েছেন মালদহের কৃষকেরা। গত দুই মাস ধরে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের তুলনায় অনেকটাই কম বৃষ্টিপাত হয়েছে মালদহে। যার জেলে মাঠে শুকোতে শুরু করেছে পাট। এখন পাট কাটার সময় হয়ে এসেছে। কৃষকেরা পাট কাটতে শুরু করেছেন। তবে জলের অভাবে তা পচাতে পারছেন না। অন্যান্য বছর মালদা জেলার বিভিন্ন এলাকায় পুকুর বিল সহ বিভিন্ন জলাশয় বর্ষার জল জমা হয়ে থাকে। সেগুলিতে মূলত জেলার চাষিরা পাট পঁচাতে দেন। এবছর বৃষ্টির অভাবে সেগুলিতে জল নেই, তাই মাঠ থেকে পাট কেটে নিলেও তা পচাতে সমস্যায় পড়ছেন কৃষকেরা মালদহ জেলা কৃষি দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি মরশুমে জেলায় মোট ৩২ হাজার হেক্টর জমিতে পাট চাষ হয়েছে। জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর চাঁচল, রতুয়া, গাজোল, হবিবপুর, কালিয়াচক ব্লক গুলোতে সবথেকে বেশি পরিমাণে পাট চাষ করা হয়। এছাড়াও জেলার অন্যান্য ব্লক গুলিতে কিছুটা জমিতে পাট চাষ করে থাকেন কৃষকেরা।

    চলতি মরসুমে পাট চাষ করে চরম সমস্যায় পড়েছেন জেলার কৃষকেরা। পাট কেটে ফেলে রেখেছেন জমিতে। পাট না কেটে নিলে জমিতে শুকিয়ে যাচ্ছে। এদিকে জল নেই কোন জলাশয়ে। এমন পরিস্থিতিতে লোকসানের মুখে পড়তে চলেছে জেলার কৃষকেরা। ইতিমধ্যে মালদহ জেলা কৃষি দফতরের তরফ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত জমি চিহ্নিত শুরু করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। জেলার প্রতিটি ব্লকে কৃষির দফতরের কর্মীরা মাঠে গিয়ে পাট চাষের ক্ষতির পরিমাণ খতিয়ে দেখবেন।

    আরও পড়ুনঃ সাপে কামড়ালে কী কী করবেন? কর্মশালায় জানালেন বিশেষজ্ঞরা

    জেলা জুড়ে ক্ষতির তালিকা তৈরি করা। জেলায় পাট চাষের ক্ষতির পরিমাণ একত্রিত করে তা পাঠানো হবে রাজ্যে। যে সমস্ত কৃষকদের ক্ষতির পরিমাণ বেশি তাদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হবে। ঠিক কত পরিমান ক্ষতিপূরণ পাবেন কৃষকেরা তা সবটাই ঠিক করবে রাজ্য সরকার। এই মুহূর্তে রাজ্য সরকারের নির্দেশে জেলা কৃষি দফতরের তরফ থেকে ক্ষতির পরিমাণ তালিকা করার নির্দেশ মিলেছে।

    আরও পড়ুনঃ তীরন্দাজিতে জুয়েলের আগামী লক্ষ্য বিশ্বকাপ, চলছে জোর প্রস্তুতি

    চলতি মরশুমে পাট চাষ করে চরম সমস্যার সম্মুখীন কৃষকেরা। ঠিকমতো পাঁটের পচন না হলে ভাল মানের তন্তুজ তৈরি হবে না। ভালো তন্তুষ্ট তৈরি না হলে মিলবে না সঠিক দাম। এখনো জেলার পাট চাষিরা অপেক্ষায় রয়েছেন বৃষ্টির। বৃষ্টি হলে যেটুকু পার্ট রয়েছে তা থেকে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হতে পারে।

    Harashit Singha
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Jute, Malda

    পরবর্তী খবর