Home /News /local-18 /
West Bardhaman- পাচার হওয়ার আগে শেষ মুহূর্তে উদ্ধার ৬ নাবালিকা।

West Bardhaman- পাচার হওয়ার আগে শেষ মুহূর্তে উদ্ধার ৬ নাবালিকা।

রেল পুলিশের হাতে পাকড়াও এক অভিযুক্ত।

রেল পুলিশের হাতে পাকড়াও এক অভিযুক্ত।

দুই পাচারকারীর ক্ষেত্রেই উদ্দেশ্য ছিল একই। নাবালিকাদের যৌনপল্লীতে বিক্রি করে দেওয়া।

  • Share this:

    #পশ্চিম বর্ধমান- পরপর দু'দিন নাবালিকা উদ্ধার হল পশ্চিম বর্ধমানে। মঙ্গলবার রাতের দিকে আসানসোল স্টেশন থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল দুই নাবালিকাকে। বুধবার ফের পাচারকারীর খপ্পর থেকে দুই নাবালিকাকে উদ্ধার করা হয়েছে দুর্গাপুরে। প্রথমদিন উদ্ধার করা হয়েছে ট্রেনের যাত্রী এবং আরপিএফ এর তৎপরতায়। পরেরদিন দুর্বার সমিতির সদস্যদের তৎপরতায় উদ্ধার করা হয়েছে দুই নাবালিকাকে। দুই পাচারকারীর ক্ষেত্রেই উদ্দেশ্য ছিল একই। নাবালিকাদের যৌনপল্লীতে বিক্রি করে দেওয়া। তবে, শেষমেশ ট্রেনের যাত্রী, রেল পুলিশ এবং দুর্বার সমিতির তৎপরতায় পাচারের চক্রান্ত ব্যর্থ হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে  তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, বুধবার দুই নাবালিকাকে ফুসলিয়ে, দুর্গাপুরের কাদারোড যৌনপল্লীতে নিয়ে আসে এক যুবক। তাদের যৌন পেশায় লিপ্ত করানোর জন্য নিয়ে আসা হয়েছিল। তখনই হাতেনাতে ধরা পড়ে ওই যুবক। দুর্গাপুর দুর্বার সমিতির কর্মীরা ওই দুই নাবালিকাকে উদ্ধার করে। ওই পাচারকারী যুবককে দুর্বার সমিতির অফিসে আটক করে রেখে থানায় খবর দেওয়া হয়। তৎপর ঘটনাস্থলে ওয়ারিয়া ফাঁড়ির পুলিস এসে নাবালিকাদের উদ্ধার করে। পাশাপাশি অভিযুক্ত পাচারকারী যুবক, মনিরুল মন্ডলকে আটক করে নিয়ে যায় ওয়ারিয়া ফাঁড়ির পুলিশ। দুর্বার সমিতির সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই দুই নাবালিকাকে ওই যুবক বেনারস থেকে নিয়ে আসে। অভিযুক্ত যুবকের রাজস্থানের জয়পুর, গৌহাটিতে বাড়ি রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। অন্যদিকে, আসানসোল স্টেশনে চারজন নাবালিকা ও দুজন যুবতীকে ট্রেন থেকে উদ্ধার করল রেল পুলিশ। শিয়ালদহ থেকে সম্পর্কক্রান্তি ট্রেনে দিল্লি নিয়ে যাওয়ার পথে তাদের উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় এক ব্যক্তিকে আটক করেছে রেল পুলিশ। জানা গিয়েছে, কাজ দেওয়ার নামে উত্তর ২৪ পরগনার সন্তোষপুর এলাকা থেকে চার নাবালিকা ও দুই যুবতীকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল নিউ দিল্লির কোনও জায়গায়। কিন্তু এই নাবালিকারা তাদের সঙ্গে থাকা ওই ব্যক্তির ফোনের কথোপকথনের মাধ্যমে বুঝতে পারে, তাদের অন্য উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ট্রেনের যাত্রীরা এই বিষয়টি বুঝতে পেরে RPF কে খবর দেয়। এরপর আসানসোল রেল ডিভিশনের আরপিএফের কাছে খবর যায়। তারপরে আসানসোল স্টেশনে ওই ট্রেন থেকে চারজন নাবালিকা ও দু'জন যুবতীকে উদ্ধার করে। তাদের সঙ্গে থাকা অভিযুক্তকেও আটক করা হয়েছে।

    Published by:Samarpita Banerjee
    First published:

    Tags: Asansol, Human Trafficking, West Bardhaman

    পরবর্তী খবর