Home /News /local-18 /
East Bardhaman News: রক্তের ভাঁড়ার প্রায় শূন্য, রক্তদান শিবিরের অনুরোধ বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের

East Bardhaman News: রক্তের ভাঁড়ার প্রায় শূন্য, রক্তদান শিবিরের অনুরোধ বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল 

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল 

সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সমাজসেবী সংস্থাকে ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্প করার আবেদন করা হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান- গ্রীষ্মকালে প্রতিবছরই রক্ত সংকট দেখা দেয়। ফলে এই সময় রক্ত সংকট, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষগুলির মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই এবার এই চিন্তা থেকে মুক্তি পেতে ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্পের অনুরোধ করল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

    চলতি সপ্তাহের বুধবার, বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংকে সমস্ত নেগেটিভ গ্রুপের রক্তের যোগান ছিল প্রায় শূন্য (East Bardhaman News)। এমনকি রেড ব্লাড সেল (Red Blood Cell) রক্তের প্রায় সব গ্রুপের নেগেটিভ মজুত রক্তের সংখ্যাও ছিল কম। রোগীর রক্তের প্রয়োজনে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাড়িয়েও অনেক ক্ষেত্রেই পাচ্ছেন না রক্ত, বলেও দাবি একাধিক রোগীর পরিবারের আত্মীয়দের। তবে এরইমধ্যে রক্তের টান মেটাতে তৎপর হয়েছে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সমাজসেবী সংগঠনকে ছোট ছোট ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্প করার আবেদন জানানো হয়েছে হাসপাতালের তরফে।

    বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট তাপস কুমার ঘোষ বলেন, প্রতিদিনের চাহিদা অনুযায়ী রক্তের কিছুটা ঘাটতি থাকছে। তাই সেই ঘাটতি পূরণের জন্য সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সমাজসেবী সংস্থাকে ছোট ছোট ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্প করার আবেদন করা হয়েছে। বর্ধমান হাসপাতালের উপর শুধু এই জেলার রোগীরাই নয়, বীরভূম, বাঁকুড়া, হুগলি, পশ্চিম বর্ধমান সহ ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রোগীরাও চিকিৎসার জন্য নির্ভরশীল। ফলে প্রতিদিন রক্তের একটা চাপ থাকেই। এছাড়াও প্রসূতি, শিশু এবং থ্যালাসেমিয়া রোগীদের জন্য গড়ে ৩৫০ থেকে ৪০০ইউনিট রক্ত প্রতিদিন প্রয়োজন হয়। এই সময়ে প্রতিবছর কিছুটা রক্তের টান তৈরি হয়। ফলে হাসপাতালের তরফে ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্প করার আবেদন করা হচ্ছে(East Bardhaman News)।

    অন্যদিকে, বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংকের মেডিক্যাল ইনচার্জ স্বপন বণিক বলেন, হাসপাতালে রক্তের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠনকে যেমন এগিয়ে আসার আবেদন জানানো হয়েছে, পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন থানাগুলিকেও ক্যাম্প করার আবেদন জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, মন্তেশর, গলসি থানা রক্তদান শিবির করেছে। বর্ধমান থানা রক্তদান শিবিরের আয়োজন করবে। ফলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই রক্তের যেটুকু ঘাটতি তৈরি হয়েছে তা মিটে যাবে বলেই আশা করছেন তিনি(East Bardhaman News)।

    উল্লেখ্য, প্রতিবছরই গ্রীষ্ম কালে রক্তের সংকট দেখা দেয় (Blood Crisis)। ফলে আগে ভাগেই সব হাসপাতালই রক্ত মজুত করে রাখতে শুরু করে। গ্রীষ্মকালীন রক্ত সংকটের কথা মাথায় রেখে, রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর বিভিন্ন ক্লাব, সমাজসেবী সংস্থার কাছে রক্তদান শিবিরের অনুরোধ জানায়। আর এবার সেই অনুরোধ জানালো বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

    Malobika Biswas

    First published:

    Tags: Blood crisis, Blood donation camp, East Bardhaman

    পরবর্তী খবর