• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • HS RESULT 2021 STUDENTS PROTEST IN BIRBHUM

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার নম্বর নিয়ে অসন্তোষ, একাধিক স্কুলে বিক্ষোভ বীরভূমে

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার নম্বর নিয়ে অসন্তোষ, একাধিক স্কুলে বিক্ষোভ বীরভূমে

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর নিয়ে অসন্তোষের জেরে বীরভূমের একাধিক স্কুলে বিক্ষোভ।

  • Share this:

    মাধব দাস, বীরভূম: উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে অসন্তোষের বাতাবরণ তৈরি হবে তার অশনিসংকেত আগেই মিলেছিল বীরভূমের একাধিক স্কুলে। পরীক্ষার ফলাফল বের হওয়ার পর এমনটাই বাস্তবায়িত হতে দেখা গেল। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর নিয়ে অসন্তোষের জেরে বীরভূমের একাধিক স্কুলে বিক্ষোভ।

    বৃহস্পতিবার ফল প্রকাশের পর শুক্রবার সকাল থেকে এমন বিক্ষোভের ঘটনা প্রথম ঘটে রামপুরহাটের রামপুরহাট গার্লস হাই স্কুলে। বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গেই এমন বিক্ষোভের খবর আসতে শুরু করে বোলপুরের শৈলবালা বালিকা বিদ্যালয়, রামপুরহাটের কাষ্ঠগড়া নেতাজি উচ্চ বিদ্যালয় এবং ময়ূরেশ্বর এক নং ব্লকের দক্ষিণগ্রাম জগত্তারিণী বিদ্যায়তনের মত বিদ্যালয় থেকে।

    এই সকল প্রতিটি বিদ্যালয়ে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়ারা এবং তাদের অভিভাবকরা শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। প্রতিটি স্কুলেই অভিযোগ পরীক্ষায় নম্বর কম এসেছে। কোন কোন বিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের অভিভাবকরা তাদের অনুর্ত্তীণ পরীক্ষার্থীদের উত্তীর্ণ করার দাবি তোলেন। প্রতিটি ক্ষেত্রেই অভিযোগ মূলত একাদশ শ্রেণির পরীক্ষা সঠিক নম্বর দেওয়া হয়নি অথবা নম্বর কম দেওয়া হয়েছে এমনটাই।

    রামপুরহাটের রামপুরহাট গার্লস উচ্চ বিদ্যালয়ের পড়ুয়া এবং তাদের অভিভাবকদের অভিযোগ, “স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা একাদশ শ্রেণির পরীক্ষার খাতায় দেখেননি। রোল নম্বরের ভিত্তিতে প্রতিটি পড়ুয়াদের গড় নম্বর দেওয়া হয়েছে। যে কারনেই উচ্চমাধ্যমিকে এখানকার পড়ুয়াদের ফলাফল খারাপ হয়েছে।” উদাহরণস্বরূপ তারা সৌরিকা দাস নামে এক পরিবার কথা জানান। ওই পড়ুয়া প্রতিটি বিষয়েই ৪১ নম্বর পেয়েছে।

    তবে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রামপুরহাট গার্লস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মল্লিকা হালদার একপ্রকার স্বীকার করে নেন একাদশ শ্রেণির পরীক্ষার খাতা দেখার ক্ষেত্রে তাদের কিছুটা হলেও গাফিলতি হয়েছিল। এই ঘটনায় তিনি জানান, যে সকল পড়ুয়ারা এবং তাদের অভিভাবকেরা নম্বর নিয়ে অসন্তুষ্ট তারা আবেদন করলে আমরা সেই আবেদনের ভিত্তিতে বোর্ডের নম্বর পুনর্বিবেচনার আবেদন রাখবো।

    অন্যদিকে বোলপুরের শৈলবালা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রুবি ঘোষ জানিয়েছেন, "আমরা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার নম্বর দিই নাই। নম্বর দিয়েছে শিক্ষা সংসদ। সুতরাং তারা যে পদ্ধতি বেছে নিয়েছে পরীক্ষার্থীদের নম্বর দেওয়ার জন্য সেই পদ্ধতি অনুযায়ী পরীক্ষার্থীরা নম্বর পেয়েছে। এখানে আমাদের কিছু করার নেই।" তবে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর জেলার একাধিক প্রান্তে যেভাবে ক্ষোভ-বিক্ষোভ তৈরি হচ্ছে এবং স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের ঘিরে বিক্ষোভ লক্ষ্য করা যাচ্ছে তাতে আগামী দিনে পরিস্থিতি কোন দিকে গড়াবে তার দিকেই তাকিয়ে ওয়াকিবহাল মহল।

    প্রসঙ্গত, পরীক্ষা না হওয়া উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার মূল্যায়ন কীভাবে হবে সেই পদ্ধতি শিক্ষা সংসদের তরফ থেকে ঘোষণা করার পরেই বীরভূমের রামপুরহাট গার্লস হাই স্কুল এবং মহঃবাজারের একটি স্কুলে পড়ুয়ারা বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন। তখন থেকেই তাদের মধ্যে দাবি উঠেছিল একাদশ শ্রেণির নম্বর কম দেওয়া হয়েছে ।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: