Home /News /life-style /

Grey Hairs: অল্প বয়সে সাদা চুল! ঘুম নষ্ট না করে ব্যবহার করুন এই মিশ্রণ, যাদুর মতো ফল মিলবে

Grey Hairs: অল্প বয়সে সাদা চুল! ঘুম নষ্ট না করে ব্যবহার করুন এই মিশ্রণ, যাদুর মতো ফল মিলবে

চুল ঠিক রাখতে...

চুল ঠিক রাখতে...

Grey Hairs: নানা কারণে অল্প বয়সেই চুলে পাক ধরে। এর প্রধান কারণ, শরীরের ত্বকের রঙ নির্ধারণ করে যে পিগমেন্ট সেল, তা থেকে মেলানিন নামের একধরনের রঞ্জক কণিকা উৎপাদিত হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: বয়স হলে চুল পাকে। এটাই প্রকৃতির নিয়ম। কিন্তু অল্পবয়সে মাথা ভর্তি কালো চুল সাদা হতে শুরু করলে! চিন্তায় চিন্তায় রাতের ঘুম হারাম। হলটা কী! অনেকে ভাবেন, একাধিকবার ব্লিচ করলে রাসয়নিকের প্রভাবে এমনটা হয়। এটা ভুল ধারণা। প্রাকৃতিক উপায়ে সাদা চুল আবার কালোও করা যায়।

নানা কারণে অল্প বয়সেই চুলে পাক ধরে। এর প্রধান কারণ, শরীরের ত্বকের রঙ নির্ধারণ করে যে পিগমেন্ট সেল, তা থেকে মেলানিন নামের একধরনের রঞ্জক কণিকা উৎপাদিত হয়। সেই মেলানিনের কারণেই চুলের রঙ কালো হয়। কিন্তু শরীরে যখন মেলানিন উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়, তখনই চুল পেকে যায়, অর্থাৎ সাদা হয়ে যায়। এ ছাড়া জিনগত কারণ তথা পারিবারিক কারণেও অনেকের দ্রুত চুল পাকে। পাশাপাশি অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, অপরিমিত খাদ্যাভ্যাস, ভিটামিন A, E ও D–এর অভাব, চুলের যত্ন না নেওয়া, অতিরিক্ত মানসিক চাপ, অতিমাত্রায় ধূমপান-সহ বিভিন্ন কারণেই অল্প বয়সে চুল পাকতে পারে। এবার এ থেকে বাঁচার উপায়গুলি দেখে নেওয়া যাক।

কারি পাতা এবং নারকেল তেল মাথার চুলের জন্য নারকেল পাতার বিকল্প নেই। এবার এর সঙ্গে কারি পাতা যোগ করতে হবে। দুইয়ে মিলে তৈরি হবে অত্যন্ত উপকারী সংমিশ্রণ, যা চুলের বৃদ্ধি এবং পুষ্টিতে সাহায্য করবে। এবার রাতে শোওয়ার আগে ওই মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করতে হবে। সকালে ঘুম থেকে উঠে ধুয়ে ফেললেই হবে। অল্প দিনেই চুল পাকার সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে।

লাউ এবং অলিভ অয়েল লাউকে ছোট ছোট টুকরো করে কেটে ৩-৪ দিন রোদে শুকোতে হবে। তার পর ভালো করে সেদ্ধ করে (কালো হওয়া পর্যন্ত) মেশাতে হবে অলিভ অয়েলের সঙ্গে। এবার সপ্তাহে ২ বার এই মিশ্রণটি মাথার তালুতে মাসাজ করতে হবে। এতে মাথার ত্বকের ডিপ কন্ডিশনিং হয়। চুল পড়া তো আটকাবেই, সাদা চুল কালো করতেও এর জুড়ি মেলা ভার।

আরও পড়ুন: চকোলেটের উপর পাতলা সাদা আস্তরণ! শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে না তো?

পেঁয়াজ ও লেবুর রস পেঁয়াজের রস লাগালে চুল পেকে যাওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। এতে রয়েছে এক ধরনের অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট, যা চুলের গোড়ায় হাইড্রোজেন পার অক্সাইডের মাত্রা কমায়। ফলে চুল পেকে যাওয়ার আশঙ্কা কমে। একই সঙ্গে লেবুর রসের ভিটামিন C কোলাজেন তৈরি করে, যা চুলকে মজবুত করে এবং পিএইচ মাত্রা ঠিক রাখে। এক টেবিল চামচ পেঁয়াজের রস ও এক টেবিল চামচ লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে মাথার ত্বকে ম্যাসাজ করে আধা ঘন্টা অপেক্ষা করতে হবে। এর পর হার্বাল শ্যাম্পুর সাহায্যে চুল ধুয়ে নিতে হবে।

হেনা ও ডিম শুধু সিল্কি, ঘন কালো করতে নয়, সাদা চুল কালো করতেও হেনা ও ডিমের ব্যবহার বহু প্রাচীন। পর্যাপ্ত পরিমাণ যে কোনও হেনার সঙ্গে চুলে লাগানো যেতে পারে। এতে চুল গোড়া থেকে হবে মজবুত।

আরও পড়ুন: প্রতি দিনের রান্নায় বীজ তেল? অজান্তেই বিপদ ডেকে আনছেন নিজের!

সরষের তেল চুলে নিয়মিত সরষের তেল মালিশ করলে ফলিকল মজবুত হয়ে চুল পড়া বন্ধ হয়। ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ সরষের তেলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম মিনারেল এবং ভিটামিন A, D, E ও K। এ ছাড়া থাকে জিঙ্ক, বিটা ক্যারোটিন ও সেলেনিয়াম, যা চুল লম্বা করে এবং অকালে সাদা হওয়া আটকায়।

First published:

Tags: Grey Hair, Hair

পরবর্তী খবর