• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Shedding weight faster : দৈনিক জীবনে সামান্য এই পরিবর্তনে ওজন কমবে জলদি

Shedding weight faster : দৈনিক জীবনে সামান্য এই পরিবর্তনে ওজন কমবে জলদি

নিজের দৈনন্দিন আচরণে কিছু পরিবর্তন আনলে ওজন হ্রাস (weight loss) পায় দ্রুত

নিজের দৈনন্দিন আচরণে কিছু পরিবর্তন আনলে ওজন হ্রাস (weight loss) পায় দ্রুত

Shedding weight faster: আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ ডক্টর দীক্ষা ভাস্বর সম্প্রতি তাঁর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন৷ তাঁর মতে, ওজন কমানোর ক্ষেত্রে এই পরিবর্তনগুলিই ‘প্রকৃত গেমচেঞ্জার’

  • Share this:

    দ্রুত ওজন কমানোর উপায় খুঁজতে ইন্টারনেটে সন্ধানের শেষ নেই (Shedding weight faster )৷ নিয়মিত শরীরচর্চা, সঠিক ডায়েটের পাশাপাশি জীবনযাপনের রুটিনের উপরও নির্ভর করে ওজন বেশি ও কম হওয়া৷ নিজের দৈনন্দিন আচরণে কিছু পরিবর্তন আনলে ওজন হ্রাস (weight loss) পায় দ্রুত৷ আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ ডক্টর দীক্ষা ভাস্বর সম্প্রতি তাঁর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন৷ তাঁর মতে, ওজন কমানোর ক্ষেত্রে এই পরিবর্তনগুলিই ‘প্রকৃত গেমচেঞ্জার’ (changes in lifestyle)৷

    আরও পড়ুন : ভালবাসার প্রকাশই শুধু নয়! সুস্থতায় আলিঙ্গনের উপকারিতাও অঢেল

    এ বার দেখে নেওয়া যাক কী কী বলেছেন দীক্ষা-

    চিনির বদলে খেতে হবে গুড়৷ গুড়ের পুষ্টিগুণ অনেক বেশি৷

    শীত পড়লেই ঈষদুষ্ণ জলপান করার কথা বলেন পরিবারের বৃদ্ধরা৷ ঈষদুষ্ণ জল শরীরের পরিপাক ক্রিয়া উন্নত করে৷ তাছাড়া ঠান্ডা জলের তুলনায় মেটাবলিজম উন্নত হয় ঈষদুষ্ণ জলের প্রভাবে৷

    আরও পড়ুন : ডায়েটে এই খাবারগুলি নিয়মিত থাকলে রোজ সকালে কোষ্ঠকাঠিন্যের কষ্ট থেকে মুক্তি

    শারীরিক ভাবে সক্রিয় থাকা যে কোনও অবস্থার ক্ষেত্রেই খুব গুরুত্বপূর্ণ৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, এক জন সুস্থ পূর্ণবয়স্কের প্রতিদিন ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার পদক্ষেপ ফেলা চাই৷ অর্থাৎ গড়ে ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার পা হাঁটতে হবে৷

    ফলের রসের তুলনায় খান আস্ত ফল৷ এতে শর্করার বদলে ফাইবার পূর্ণমাত্রায় আপনার শরীরে প্রবেশ করবে৷

    আরও পড়ুন : পড়াশোনায় মনঃসংযোগের অভাব? আপনার সন্তান অনিদ্রায় আক্রান্ত নয় তো?

    দিনভর কোনও খাবার বাদ দেবেন না৷ সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২ টোর মধ্যে ভারী খাবার খাওয়া বাঞ্ছনীয়৷ কারণ সে সময় পরিপাকশক্তি থাকে সবথেকে বেশি৷ তাই এই সময়ের মধ্যে দুপুরের খাবার খান৷ আহার হোক সুষম৷

    সূর্যাস্তের পর থেকে আমাদের মেটাবলিজন কমতে থাকে৷ তাই রাতের খাবার সব সময় হাল্কা খাবেন৷ চেষ্টা করবেন রাত 8 টার মধ্যেই নৈশভোজ সম্পূর্ণ করতে৷

    ঘুম কম হলে ওজন বেড়ে যায়৷ তাই প্রতিদিন অন্তত আট ঘণ্টা সুনিদ্রা গুরুত্বপূর্ণ৷ ডক্টর ভাস্বরের মতে, রাত ১০ টার আগে ঘুমোতে যাওয়া প্রয়োজনীয়৷

    নিয়মিত শরীরচর্চা বাধ্যতামূলক৷ সবাইকে যে জিমে যেতে হবে, তার কোনও মানে নেই৷ হাঁটা, যোগাভ্যাস করা, সাইকেল চালানো বা সাঁতার কেটেও শরীরিক অনুশীলন করা যায়৷

    আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ দীক্ষা ভাস্বরের মতে, এই পরিবর্তনগুলি আমাদের ওজন হ্রাসের ক্ষেত্রে দ্রুত কার্যকর হবে৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: