• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Indoor plant : সামান্য যত্নেই অন্দরসজ্জা পাল্টে দেয়, খুঁটিনাটি জেনে নিন এই চাঁদোয়া-গাছ নিয়ে

Indoor plant : সামান্য যত্নেই অন্দরসজ্জা পাল্টে দেয়, খুঁটিনাটি জেনে নিন এই চাঁদোয়া-গাছ নিয়ে

ইন্ডোর প্ল্যান্ট হিসেবে একে রাখুন বাড়ির এমন এক জায়গায়, যেখানে আলো আছে, কিন্তু রোদ্দুর সরাসরি পড়ে না

ইন্ডোর প্ল্যান্ট হিসেবে একে রাখুন বাড়ির এমন এক জায়গায়, যেখানে আলো আছে, কিন্তু রোদ্দুর সরাসরি পড়ে না

খুব বেশি যত্নআত্তি দরকার হয় না, এমন গাছও আছে ৷ সেরকমই একটি গাছ অ্যালোকিশয়া ক্লাইপেওল্যাটা (Alocasia Clypeolata)৷ অ্যারাশিয়া প্রজাতির এই গাছ পেয়ে যাবেন কোনও ভাল না্র্সারিতেই ৷

  • Share this:

    অন্দরসজ্জার অন্যতম উপকরণ এখন ইন্ডোর প্ল্যান্ট (Indoor Plant)৷ অনেকেরই ধারণা, এই গাছের দাম বেশি৷ প্রতিপালনেও অনেক খরচ৷ কিন্তু তা আদৌ ঠিক নয়৷ বিভিন্ন নার্সারিতে সাধ্যের মধ্যে দামেই পেয়ে যাবেন গাছগুলি৷ তাদের বড় করাও এমন কিছু কঠিন নয়৷ খুব বেশি যত্নআত্তি দরকার হয় না, এমন গাছও আছে ৷ সেরকমই একটি গাছ অ্যালোকিশয়া ক্লাইপেওল্যাটা (Alocasia Clypeolata)৷ অ্যারাশিয়া প্রজাতির এই গাছ পেয়ে যাবেন কোনও ভাল না্র্সারিতেই ৷ অর্ডার দিতে পারেন অনলাইনেও৷

    বিভিন্ন ধরনের অ্যালোকেশিয়া হয় ক্রান্তীয় অঞ্চলে৷ তার মধ্যে একটি হল ‘গ্রিন শিল্ড অ্যালোকেশিয়া’ (Green Shield Alocasia)৷ চেহারায় আমাদের কচুপাতার সঙ্গে মিল আছে৷ আদতে ফিলিপিন্সের এই গাছ যেন চাঁদোয়ার মতো৷ আকৃতির জন্য একে ‘এলিফ্যান্ট ইয়ার’-ও (Elephant Ear) বলে৷ প্রসঙ্গত গ্রিক ভাষায় ‘ক্লাইপেওল্যাটা’ শব্দের অর্থই শিল্ড বা ঢাল৷

    আরও পড়ুন : চুল ভাল রাখতে চান? প্লাস্টিকের নয়, ব্যবহার করুন কাঠের চিরুনি

    এরকম একটি গাছ ঘরে রাখলে বদলে যায় ঘরের সৌন্দর্য৷ ভাল হয়ে যায় মনও৷ তবে অ্যালোকশিয়া গাছ পুরোপুরি আলোবর্জিত স্থানে রাখা যাবে না৷ ইন্ডোর প্ল্যান্ট হিসেবে একে রাখুন বাড়ির এমন এক জায়গায়, যেখানে আলো আছে ৷ কিন্তু রোদ্দুর সরাসরি পড়ে না৷ বিশেষকরে মধ্যাহ্নের রোদ তো একদমই লাগতে দেওয়া যাবে না৷

    এই গাছ যে টবে রাখবেন তার মাটি যেন ঝুরঝুরে হয়৷ গাছের গোড়ায় বা মাটিতে জল বেশি ধরে রাখলে কিন্তু আখেরে ক্ষতি হবে গাছেরই৷ পচে যাবে শিকড়৷

    আরও পড়ুন : ভাতের ফ্যান রোজ ফেলে দেন? এক বার দেখুন কোন কোন উপকারিতা হেলায় হারাচ্ছেন

    তাছাড়া শীতল তাপমাত্রাতেও এই গাছ স্পর্শকাতর হয়ে পড়ে৷ শীতে আলো ও তাপমাত্রা কমে যায় একটু বেশি খেয়াল রাখবেন৷ অনেক সময়েই এই গাছ শীতে প্রাণহীন হয়ে পড়ে৷ যেন সরীসৃপদের মতো শীতঘুমে চলে গিয়েছে৷ পড়ে যেতে পারে পাতাও৷ সে সময় চিন্তা করবেন না৷ বরং গাছটিকে উষ্ণ জায়গায় রাখবেন৷ অনেক সময় নার্সারি থেকে আনার পরও ‘ডরম্যান্সি’ দেখা দিতে পারে৷ পড়ে যায় এর পাতা৷ অনেক সময় নার্সারি থেকে বাড়িতে আনার পরও নিস্তেজ হয়ে যায় এই গাছ৷ তার পর ধীরে ধীরে মানিয়ে নেয় নতুন পরিবেশে৷

    আরও পড়ুন : রুটি নাকি ব্রাউন ব্রেড? কোনটা খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী?

    এই গাছে একবারে বেশি জল দেবেন না৷ টবের মাটি খুব ভিজে থাকলে জল দেওয়ার প্রয়োজন নেই৷  এই গাছের পাতা আক্রমণ করে কীটপতঙ্গরাও৷ নার্সারি থেকে জেনে নিয়ে সে সময় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করুন৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: